বৃহস্পতিবার, ২৮শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

১৪ মাস পর কারাবরণ শেষে মুক্তি মিললো তিন বছরের শিশু রেশমির

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ৬, ২০১৯
news-image

 

ডেক্স রিপোর্টঃ

প্রায় ১৪ মাস পর বাইরের আলো-বাতাসের স্বাদ নিল ৩ বছরের শিশু কন্যা রেশমি আকতার। মা রোকসানার অপরাধে এই দীর্ঘ সময় চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে কাটাতে হয় রেশমিকে।

গত বছর এক হাজার ২শ’ পিস ইয়াবাসহ কর্ণফুলী থানা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হলে জেলে পাঠানো হয় রোকসানাকে। তখন ২ বছরের কম বয়সী শিশু রেশমিকেও মায়ের সঙ্গে পাঠানো হয় কারাগারের ৪ দেয়ালের মধ্যে।

সম্প্রতি উচ্চ আদালত থেকে রোকসানার জামিন পাওয়ার পর বুধবার দুপুরে মায়ের সঙ্গে বের হয়ে আসে রেশমিও। বাইরের খোলা পরিবেশ, মুক্ত আলো-বাতাস, গাড়ি ও মানুষের ছোটাছুটি দেখে কৌতূহলী হয়ে ওঠে রেশমি। অনবরত হাসছিল আর চারপাশে হাত-পা ছুড়ছিল। রেশমির এই প্রাণচাঞ্চল্য অনেকেরই দৃষ্টি কেড়েছে। পথচারীদের বলতে শোনা যায়, রেশমির জন্য এ এক নতুন অভিজ্ঞতা, যা চার দেয়ালের চেনা জগত থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন।

রোকসানা কক্সবাজার জেলার টেকনাফ উপজেলার নয়াপাড়া এলাকার মৃত নুরুল আলমের স্ত্রী। অভাবের তাড়নায় ইয়াবা বহন করে পুলিশের জালে ধরা পড়েন স্বামীহারা গৃহবধূ।

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার সূত্র জানায়, বর্তমানে ৪৯১ জন মহিলাসহ সাড়ে ৯ হাজার বন্দি রয়েছে কারাগারে। এর মধ্যে মায়ের সঙ্গে নিষ্পাপ শিশুর সংখ্যা ১২৪ জন। তাদের সবার বয়স ৬ বছরের নিচে। কারাগারের বাইরে কথা হয় রোকসানা আকতারের সঙ্গে।

তিনি যুগান্তরকে বলেন, ‘২০১৮ সালের জানুয়ারিতে টেকনাফ থেকে ১২০০ পিস ইয়াবা নিয়ে বাসে করে ঢাকায় যাচ্ছিলাম। চট্টগ্রামের মইজ্জ্যারটেক এলাকায় পুলিশের তল্লাশির সময় ইয়াবাসহ আটক হই। পরে কর্ণফুলী থানায় সোপর্দ করা হয়। পরদিন আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানা হয়। আমার সঙ্গে রেশমিকেও জেলে পাঠানো হয়। তখন ওর বয়স ছিল প্রায় ২ বছর।’

তিনি বলেন, স্বামী নুরুল আলমের মৃত্যুর পর মেয়েকে নিয়ে বড় ভাইয়ের কাছে উঠি। ঘরের সব কাজ আমিই করতাম। ২০১৭ সালে বড় ভাই ফরিদ আহমেদ ইয়াবাসহ পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়। এখনও তিনি কারাগারে। বড় ভাইয়ের জেল হওয়ার পর সংসারে অভাব-অনটন দেখা দেয়। একদিন ভাবির কথায় তার পরিচিত এক লোকের দেয়া ১২০০ পিস ইয়াবা ঢাকায় পৌঁছে দিতে বলেন। বিনিময়ে ১০ হাজার টাকাও দেয়ার কথা ছিল। লোভে পড়ে ইয়াবা নিয়ে মেয়েকে নিয়ে বাসে রওনা দিই।

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের ডেপুটি জেলার সেলিম উদ্দিন জানান, আদালতের নির্দেশে রেশমিকে তার মায়ের সঙ্গে ১৪ মাস কারাগারে ছিল। বুধবার দুপুরে তারা মুক্ত হন।

আর পড়তে পারেন