সোমবার, ১৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

হাজীগঞ্জে দ্বাদশ গ্রাম ইউপি নির্বাচন দখলের অভিযোগ এনে বিএনপি প্রার্থীর ভোট বর্জন

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ১৫, ২০১৮
news-image

পাপ্পু মাহমুদ, হাজীগঞ্জঃ
চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার দ্বাদশগ্রাম ইউনিয়ন(ইউপি) পরিষদ নির্বাচনে ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে বিএনপি প্রার্তী নির্বাচন বর্জন করেছে। সকালে কেন্দ্রের মধ্যে ভোটারদের উপস্থিতি ছিল লক্ষ্যনীয়। কিন্তু দুপুরের পর ইউনিয়নের প্রায় ভোট কেন্দ্রগুলো আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা দখলে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া যায় । এ অবস্থায় দুপুর দুইটার দিকে বিএনপির প্রার্থী আনোয়ারুল ইসলাম ওরফে বাবুল সংবাদ সম্মেলন করে ভোট বর্জন করে।

সংবাদ সম্মেলনে আনোয়ারুল ইসলাম অভিযোগ করেন, সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে নৌকা মার্কার প্রার্থী খোরশেদ আলম বকাউলের কর্মী-সমর্থকরা মালাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র দখল করার চেষ্টা করলে আধাঘন্টা ভোট গ্রহণ বন্ধ থাকে । পরে প্রশাসন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নিয়ে পুনরায় ভোট চালু করে। দুপুর ১২টার পরে ডিসি ও এসপি কাপাইকাপ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন করে বের হওয়ার পর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা আবার কেন্দ্রটির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে জালভোট প্রয়োগ করে। এই কেন্দ্রে স্বতন্ত্র প্রার্থীর এজেন্ট বসতে দেয়া হয়নি। দুপুরে নাসিরকোর্ট উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র দখলে নেয় নৌকার নেতাকর্মীরা । একই সময়ে ব্রাক্ষ্মনগাঁও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র দখলে নেওয়ায় আধা ঘন্টা ভোট বন্ধ থাকে। চালু হওয়ার পর বেলা তিনটায় পুনরায় কেন্দ্রটি দখলে নেওয়া হয়।

আনোয়ারুল ইসলাম আরো অভিযোগ করেন, বিভিন্ন কেন্দ্রে নৌকা মার্কার কর্মী সমর্থকদের হামলায় আমার অন্তত ২০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে। একের পর এক হামলায় নেতাকর্মীরা টিকতে না পেরে কেন্দ্র ছেড়ে চলে আসেন। এসব অভিযোগ সাথে সাথে কেন্দ্রের দায়িত্বরত ম্যাজিষ্ট্রেটকে জানিয়েও প্রতিকার পাওয়া যায়নি। বুধবার এসব বিষয়ে নির্বাচন কমিশন বরাবর লিখিত অভিযোগ করা হবে।

সকাল ১০টার দিকে সরেজমিনে দেখা গেছে , ব্রাক্ষ্মনগাঁও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি ছিল লক্ষ্যনীয়। দুপুর দেড়টায় একবার এবং বেলা তিনটায় পুনরায় ভোট কেন্দ্রটি দখল হয়।

কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা আক্তার হোসেন বলেন, দুইবার আমাদের কেন্দ্রটি দখল হয়, পরে প্রশাসনের তৎপরতায় ভোট চালু হয়। মালাপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা রেজাউল করিম বলেন, সকালে আধা ঘন্টা ভোট বন্ধ থাকার পর পুনরায় চালু হয়। বেলা দুইটা পর্যন্ত ৮৩৭ ভোটের মধ্যে ৬০০ ভোট কাস্ট হয়। কাপাইকাপ কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম জানান, দুপুর দেড়টার দিকে তার কেন্দ্রে সমস্যা হওয়ায় আধাঘন্টা ভোট বন্ধ থাকে ।
ইছাপুরা গ্রামের বাসিন্দা মুক্তিযোদ্ধা মাহবুবুল আলম বলেন, ইছাপুরা কেন্দ্রটি নিয়ন্ত্রনে নেয়ার জন্য নৌকা মার্কার নেতাকর্মীরা কেন্দ্রের আশপাশে কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায়। জীবনে অনেক ভোট দেখেছি, এরকম পরিবেশে ভোট হতে কখনো দেখিনি।

স্বতন্ত্র প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রব মিয়া অভিযোগ করে বলেন, আমার কেন্দ্রের আশপাশে অনেকগুলো ককটেল বিস্ফোরণ হয়েছে। বহিরাগতরা এসে একের পর এক কেন্দ্র দখল করে নিয়েছেন। ডিসি ও এসপি স্যার কেন্দ্র পরিদর্শনে আসার পর আমি বিষয়টি তাঁদের জানিয়েছি । তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ভোটারদের কষ্ট করতে হয়নি। নৌকা মার্কার নেতাকর্মীরা ভোট দিয়ে বাক্স ভরেছেন।

রির্টানিং কর্মকর্তা নয়ন মনি সূত্রধর সার্বিক বিষয়ে বলেন, আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি। কিছু কিছু কেন্দ্রে সমস্যা হওয়ার পর তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নিয়েছি। এরপরও কয়েকটি কেন্দ্রে অনিয়ম হতে পারে। বিএনপির প্রার্থীর ভোট বর্জন সর্ম্পকে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে তিনি আমাকে কিছু জানাননি।

জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. মাজেদুর রহমান খান বলেন, আমি ও এসপি সাহেব ইউনিয়নের কয়েকটি কেন্দ্র পরিদর্শন করেছি। আমাদের কাছে কোন অনিয়ম ধরা পড়েনি। কেউ আমাদের কাছে অভিযোগও করেনি। বিএনপি প্রার্থীর ভোট বর্জন সর্ম্পকে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আপনার কাছ থেকে বিষয়টি জানলাম। আমরা আইনশৃঙ্খলার বিষয়টি দেখেছি। আর ভোটের বিষয়টি দেখার দায়িত্ব রির্টানিং কর্মকর্তার ।

আর পড়তে পারেন