বৃহস্পতিবার, ৪ঠা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

হাইমচরে বৃদ্ধ ভিক্ষুকের পুনর্বাসনের দায়িত্ব নিলেন নির্বাহী অফিসার

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
এপ্রিল ২৬, ২০১৮
news-image

 

বিএম ইসমাইল, হাইমচরঃ
চাঁদপুরের হাইমচরে ১০৫ বছর বয়সী বৃদ্ধ হাবু ভূইয়া রাস্তায় রাস্তায় ভিক্ষা করার সংবাদ চাঁদপুরের স্থানীয় পত্রিকায় প্রকাশ হলে ঐ বৃদ্ধের পুনর্বাসন করার দায়িত্ব নিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুদুর রহমান। গত ২৪ এপ্রিল হাইমচর উপজেলার আলগী দক্ষিন ইউনিয়নের পশ্চিমচর কৃষ্ণপুর গ্রামের ১০৫ বছর বয়সী বৃদ্ধের মানবতার জীবনযাপনের সংবাদটি স্থানীয় পত্রিকাসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে টক অব দা হাইমচরে পরিণত হয়। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে সংবাদটি হাইমচর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দৃষ্টিগোচর হয়।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় বৃদ্ধাকে তার কার্যালয়ে ডেকে আনেন বৃদ্ধ ভিক্ষুকের জীবনযাপনের করুন ইতিহাস শুনে মর্মাহত হন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাৎক্ষনিক ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে যোগাযোগ করে তার খাবারের জন্য প্রতি মাসে চাউলের ব্যবস্থা নিশ্চিত করেন, পাশাপাশি তার সুচিকিৎসার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য তাৎক্ষনিক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পঃপঃ কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ বেলায়েত হোসেনের সাথে আলাপ করেন। এছাড়া উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোঃ মাসুদুর রহমান বৃদ্ধকে নগদ আর্থিক সহযোগীতা করেন এবং প্রতি মাসে বৃদ্ধাকে ২ হাজার টাকা দেওয়ার পাশাপশি বৃদ্ধের থাকার জন্য তাকে একটি ঘরেরও ব্যবস্থা করবেন বলে আশ্বস্ত করে। আজ বিকেলে ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বার ও সাংবাদিকদের সাথে নিয়ে বৃদ্ধের বাড়িতে গিয়ে তার ছেলে এবং ছেলে বউএর সাথে কথা বলে তাদেরকে এক সাথে থাকার ব্যবস্থা করবেন বলে তিনি জানান।

এসময় উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোঃ মাসুদুর রহমান বৃদ্ধ ভিক্ষুককে বলেন, আপনি আজ থেকে ভিক্ষা করবেন না। যেহেতু আপনি বয়স্ক তাই আপনাকে কোন কাজ করার সুযোগ না থাকায় আমি আপনার থাকা খাওয়া এবং চিকিৎসার সম্পূর্ন দায়িত্ব নিলাম। তিনি আরও বলেন আমরা প্রশাসনিক কর্মকর্তাগন উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়নের তালিকাভুক্ত ভিক্ষুকদের সাথে আলাপ আলোচনা করে তাদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করবো। আমাদের লক্ষ্য হাইমচর উপজেলাকে ভিক্ষুক মুক্ত ঘোষনা করা। আর আমরা তা করার লক্ষেই দ্রুত গতিতে ভিক্ষুক পুনর্বাসনের কার্যক্রম এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি । এজন্য উপজেলার সর্বস্তরের জনগনের সহযোগীতা কামনা করছি।

অপরদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ সংবাদটি ভাইরাল হলে এক প্রবাসী ভিক্ষুক বৃদ্ধকে আর্থিক সহযোগীতা করেছেন। আরো অনেক প্রবাসীরা তাকে আর্থিক সহযোগীতা করার আশ্বাস দিয়েছেন।

আর পড়তে পারেন