বুধবার, ১৪ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সুষ্ঠু নির্বাচনে ইসিতে বিএনপির ২০ দফা প্রস্তাব

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
অক্টোবর ১৫, ২০১৭
news-image

 

ডেস্ক রিপোর্ট :

সংসদ ভেঙে সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দেওয়ার দাবি জানিয়েছে বিএনপি। দলটি জানিয়েছে, সকল রাজনৈতিক দলকে সভা সমাবেশের অনুমতি দিতে হবে।  নির্বাচনে প্রতিরক্ষাবাহিনী  নিয়োজিত করতে হবে।  নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করতে হবে।

রোববার নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে বৈঠক শেষে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর  সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে নির্বচান কমিশনে বিএনপির পক্ষ থেকে ২০ দফা প্রস্তার পেশ করা হয়েছে।  প্রধান নির্বাচন কমিশনার  এসব প্রস্তাবকে  গুরুত্ত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা হবে বলে আমাদের জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, বিরোধী দলের বিরুদ্ধে করা সব মিথ্যা মামলা তুলে দিতে হবে রাজনৈতিক সভা-সমাবেশ করার অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। ইভিএম/ডিভিএম যন্ত্র ব্যবহার করা যাবে না। দলীয়করণ ও ‍চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ বাতিল করতে হবে। সকল সিদ্ধান্ত নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী হবে। একক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা যাবে না।

এদিকে ইসি’র সঙ্গে বিএনপির সংলাপকে ইতিবাচক বলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘সামনে আওয়ামী লীগের সঙ্গেও ইসির সংলাপ আছে। আমরা সংলাপে ১১ দফা উত্থাপন করবো। সেগুলো নিয়ে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে আলোচনা হবে।’ রোববার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের নতুন সচিব নজরুল ইসলামের যোগদান ও পুরাতন সচিবের বিদায় উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, গত নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নিয়ে ভুল করেছিল। আশা করি বিএনপি এবার সে ভুলের পুনরাবৃত্তি করবে না।

এর আগে সকালে বিএনপির সঙ্গে বৈঠকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেন, বিএনপির নেতৃত্বে বহুদলীয় গণতন্ত্রের পুনঃপ্রতিষ্ঠা হয়েছে। বিএনপির সঙ্গে সংলাপের সূচনা বক্তব্যে সিইসি এ মন্তব্য করেন। তিনি জিয়াউর রহমানসহ বিএনপি সরকারের নানা ইতিবাচক কর্মকা- তুলে ধরেন সিইসি।

বিএনপি সরকারের বিভিন্ন কর্মকা- তুলে ধরে সিইসি বলেন, প্রাথমিক শিক্ষা বাধ্যতামূলক, পৃথক প্রাথমিক ও গণশিক্ষা বিভাগ, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা, দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত মেয়েদের শিক্ষা অবৈতনিক , র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন গঠন, দুর্নীতি দমন কমিশন প্রতিষ্ঠা, প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠা, আইন কমিশন গঠন, সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩০ বছরে উন্নীতকরণসহ অনেক উন্নয়ন ও সংস্কারমূলক কার্যক্রম এ দলের শাসনামলে হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি একটি বৃহৎ রাজনৈতিক দল। তাদের সফল রাষ্ট্রপরিচালনার সুদীর্ঘ অভিজ্ঞতা রয়েছে। বৃহৎ রাজনৈতিক দল পরিচালনায় তাদের অভিজ্ঞতা রয়েছে। বিএনপির সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের আজকের সংলাপের দিকে জাতি তাকিয়ে রয়েছে। নির্বাচন কমিশন অধীর আগ্রহ ও অত্যন্ত আন্তরিকতা নিয়ে, অতি ধৈর্য সহকারে অপেক্ষা করছে।’ নির্বাচন কমিশন বিএনপির সঙ্গে সফল সংলাপ প্রত্যাশা করে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

আর পড়তে পারেন