বুধবার, ২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

মুরাদনগরে স্কুল ছাত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার,সন্দেহের তীর পরিবারের দিকে

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১
news-image

 

মাহবুব আলম আরিফ, মুরাদনগরঃ

কুমিল্লার মুরাদনগরে ৮ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানাধীন দৌলতপুর গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত খাদিজা আক্তার (১৪) দৌলতপুর পূর্বপাড়ার জাহাঙ্গীর মিয়ার মেয়ে এবং নার্গিস নজরুল বিদ্যা নিকেতনের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী।

নিহতের মা জানায়, খাদিজার মানষিক সমস্যা থাকার কারনে সে পড়া লেখায় অমনোযোগী ছিলো, সে প্রায় মানুষের সাথে অকারনে গঝগড়া করতো। ঘটনার আগের দিন তিনি বড় মেয়ের বাড়িতে বেড়াতে যায়, খাদিজা বাড়িতে একা ছিলো। পরের দিন সন্ধ্যায় তিনি বাড়ি এসে দরজা জানালা সব বন্ধ দেখে চারিদিকে মেয়েকে খুজতে থাকে। পরে স্থানীয় এক লোকের মাধ্যমে ঘরের জানালা ভেঙ্গে মেয়ের মৃতদেহ ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। পরে বিষয়টি স্থানীয় মেম্বারের মাধ্যমে থানাকে অবগত করা হয়।

তবে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, খাদিজা আক্তারের কোন মানষিক সমস্যা ছিলোনা। মেয়েটির বয়স ১৪ বছরের বেশি হবেনা। মেয়েটির মা কিছুদিন পূর্বে তার বিয়ে ঠিক করেছিলো। তারা আরো জানায়, মেয়েটির লাশ যখন মাটিতে নামানো হয় তখন শরীর অনেক শক্ত ছিলো। মনে হচ্ছিলো অনেক আগেই মেয়েটি মারা গেছে।

আরো জানা গেছে, তার মা তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে উদ্ধারের চেষ্টা করেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে আসার পুর্বেই নিহত খাদিজার মা লাশ নামিয়ে ফেলেন। খবর পেয়ে বাঙ্গরা বাজার থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে।

এ বিষয়ে নার্গিস নজরুল বিদ্যা নিকেতনের প্রধান শিক্ষক জহিরুল ইসলাম জানান, খাদিজা আক্তার আমার বিদ্যালয়ের ছাত্রী, তার কখনোই মানষিক কনো সমস্যা ছিলোবলে মনে হয়নি। মেয়েটি অনেক সুশিল ছিলো।

বাঙ্গরা বাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ কামরুজ্জামান তালুকদার জানান, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে তার মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। এ ব্যাপারে বাঙ্গরা বাজার থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

আর পড়তে পারেন