মঙ্গলবার, ১৯শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

মতলব উত্তরে শীতের শুরুতে জমে উঠেছে ভাপা পিঠার বাজার

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
ডিসেম্বর ১৮, ২০১৭
news-image

মো. দ্বীন ইসলাম:
শীতের আগমন ঘটবে আর ভাপা পিঠার আসর বসবে না তা কি হয়? তাই তো শীতের শুরুতেই মতলব উত্তরে জমে উঠেছে ভাপা পিঠা বিক্রির আসর। ফুটপাত থেকে শুরু করে ভ্রাম্যমাণ পিঠার দোকান বসতে দেখা যায়। সারাদিনই মোড়ে মোড়ে পিঠা বিক্রি হলেও বিশেষ করে সন্ধ্যার সময় এই পিঠার চাহিদা বেশি থাকে। প্রতিদিন সন্ধ্যা থেকে রাত পর্যন্ত চলছে পিঠা বিক্রি ও খাওয়ার পালা। কারণ শীতের সকালে বা সন্ধ্যায় গরম গরম ধোঁয়া ওঠা ভাপা পিঠার যে স্বাদ সেটা অন্য সময় পাওয়া যায় না। এসব দোকানে প্রতি পিছ ভাপা পিঠা ৫ টাকা থেকে ১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া কোন কোন জায়গায় ১৫ টাকায় বিক্রি হয় স্পেশাল ভাপা পিঠা।

আর শীতে যত রকমেরই পিঠা তৈরি হোক না কেনো ভাপা পিঠার সাথে অন্য কোন পিঠার তুলনাই হয় না। এই পিঠা বিক্রি করেই শীতের সময় অনেকে সংসার চালান।উপজেলাধীন বড় বড় বাজারের বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে দোকান নিয়ে বসে পড়েছেন মৌসুমী পিঠা ব্যবসায়ীরা। অনেকেই মৌসুমী এই ব্যবসার সাথে জড়িয়ে পড়েছেন। তেমন একটা পুঁজি লাগে না বলে সহজেই এ ব্যবসা শুরু করেন অনেকেই।

এসব দোকানগুলোতে দেখা যায় পিঠা পাগল লোকজনদের উপচে পড়া ভিড়। বিক্রেতারাও আনন্দের সাথে ভাপা পিঠা বিক্রি করছেন। উপজেলার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের ইসলামীয়া মার্কেট নতুন বাজার, চৌরাস্তা বাজার, সুজাতপুর বাজার, ছেংগারচর বাজার, আমিরাবাদ বাজার অলিগলির মুখে এই পিঠার দোকান দেখা যায়।
ইসলামীয়া মার্কেট এলাকা ঘুরে পিঠা বিক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা যায়- মৌসুমি এই পিঠার প্রতি অনেকের বেশ আগ্রহও দেখা যায়। বছরের সাময়িক সময়ের এই পিঠার বাজার এখন থেকেই জমে উঠেছে, মূলত সকাল ও সন্ধ্যায় পিঠা বিক্রি হলেও বিশেষ করে সন্ধ্যার সময় এই পিঠার চাহিদা বেশি থাকে বলেও জানান বিক্রেতারা।
আমিরাবাদ এলাকার পিঠা বিক্রেতা মাসুম মিয়া জানান, প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও রয়েছে ক্রেতার ভিড়। প্রতিনিয়ত ক্রেতার ভিড় বেড়েই চলেছে।

এতে আয় রোজগারও হচ্ছে ভালো। তিনি আরও জানান, যেহেতু ভাপা পিঠার ব্যবসা শীতকালে ছাড়া অন্য কোন ঋতুতে হয় না।
ক্রেতা শফিকুল ইসলামের সাথে কথা বললে তিনি জানান, শীত মানেই পিঠা খাওয়ার ধুম। তবে সেই পিঠা যদি হয় ভাপা পিঠা তাহলে তো কোন কথাই নেই। নিজেকে রিফ্রেশ করার জন্য দিনের শেষে বন্ধুদের নিয়ে সন্ধ্যায় আসি ভাপা পিঠা খেতে। এতে করে সবার মাঝে ভালো লাগা কাজ করে।

আর পড়তে পারেন