শনিবার, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

মতলব উত্তরে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কল্যাণ কেন্দ্রে স্বাভাবিক প্রসব সেবা কর্মশালা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ৮, ২০১৮
news-image

মাহবুব আলম লাভলুঃ
পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের এমসিএইচ সার্ভিসেস ইউনিয়নের আয়োজনে ও চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে ‘ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কল্যাণ কেন্দ্রে ২৪/৭ (সার্বক্ষনিক) স্বাভাবিক প্রসব সেবা জোড়দারকরণ বিষয়ক এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল ১১ ঘটিকার সময় উপজেলা পরিষদের মায়া বীর বিক্রম অডিটোরিয়ামে এ কর্মশালা আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের যুগ্ম -সচিব ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক মোহাম্মদ নূরুল আলম।

মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মনজুর আহমদ এর সভাপতিত্বে ও উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আ.তা.ম বোরহান উদ্দিনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার, চাঁদপুর জেলা সিভিল সার্জন (ভারপ্রাপ্ত) ডাঃ মোঃ শফিকুল ইসলাম, জেলা বিএমএ’র সভাপতি ডা. এমএন হুদা, মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা ডাঃ শংকর কুমার সাহা প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত করেন ফতেপুর পূর্ব ইউনিয়ন এফপিআই আবু সুফিয়ান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপ-পরিচালক চাঁদপুর পরিবার পরিকল্পনা ডাঃ মোঃ ইলিয়াছ। স্বাভাবিক প্রসব বিষয়ক বক্তব্য উপস্থাপন করেন এমসিএইচ সার্ভিসেস প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডা. ফাহমিদা সুলতানা। উপস্থিত ছিলেন, বাগানবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা নান্নু মিয়া, ফরাযীকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দানেশ, ইসলামাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান সাজেদুর হাসান বাবু (বাতেন), ফতেপুর পশ্চিম ইউপি চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ, উপজেলা সহকারি পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. নুর নবী, মেডিকেল অফিসার ডা. নাছির উদ্দিন, ডা. ইসমাইল হোসেন. ডা. মেহেদী হাসান, ডা. ফৌজিয়া শারমিন’সহ জনপ্রতিনিধি, স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা এবং মাঠকর্মীরা।

কর্মশালায় পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের অধীনস্থ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে ২৪/৭ ঘন্টা চলমান নিরাপদ স্বাভাবিক প্রসব সেবাকে আরো জোরদান করার বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয়। মাতৃমৃত্যু ও শিশু মৃত্যুর হার কমানো এবং নিরাপদ প্রাতিষ্ঠানিক (হাসপাতাল, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও প. প. কেন্দ্র) প্রসবকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে এই কর্মশালার আয়োজন করা হয়। এতে করে বাণিজ্যিক হাসপাতালে করা অপ্রয়োজনীয় সিজারিয়ান সেকশনের হার কমবে বলে মত দেন আলোচকরা।

স্থানীয় পর্যায়ের জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্ততায় আরো বেশি মা যাতে প্রসব সেবা সহ অন্যান্য সেবা সহজে পেতে পারেন সেদিকে গুরুত্বারোপ করা হয়। উল্লেখ্য ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে পরিচালনা পরিষদের সভাপতি সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং সহ-সভাপতি ইউনিয়নের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের নির্বাচিত মহিলা সদস্য। এই বিষয়টি জনপ্রতিনিধিগণ অনেকেই অবগত ছিলেন না। এ কর্মশালার মাধ্যমে এ বিষয়ে অবগত হয়ে তারা আগামীতে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রকে শক্তিশালী করে স্বাভাবিক প্রসব সেবা নিশ্চিত করণে সর্বাত্বক করবেন বলে আশ্বাস দেন।

আর পড়তে পারেন