সোমবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বহিস্কৃত নেতাকে দিয়ে তিতাস উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা ! ফেসবুকে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুলাই ২৩, ২০২১
news-image

স্টাফ রিপোর্টারঃ
কুমিল্লার তিতাস উপজেলা ছাত্রলীগের মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটি বিলুপ্ত করে ১১ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। কাউন্সিল বা সম্মেলন ছাড়াই গোপনে কমিটি ঘোষণা করায় বৈধতা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার(২২ জুলাই) সন্ধ্যায় কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আবু কাউসার অনিক এবং সাধারণ সম্পাদক(ভারপ্রাপ্ত) গাজী বোরহান উদ্দিন ভূইয়া স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে তিতাস উপজেলা ছাত্রলীগের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। একই বিজ্ঞপ্তিতে মেয়াদ উত্তীর্ণ পুবের্র কমিটিকে বিলুপ্ত করা হয়েছে।

আংশিক কমিটিতে কামরুল হাসান তুষারকে সভাপতি এবং খায়রুল খন্দকার রুবেলকে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

ঘোষিত কমিটি নিয়ে তিতাস উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক আহবায়ক তোফাজ্জল হোসেন তাঁর ফেসবুক ওয়ালে সমালোচনা করে লিখেন “ একটি অস্বচ্ছ পদ্ধতিতে সৃষ্ট তিতাস ছাত্রলীগের কমিটি বিতর্কের আরেকটি নতুন অধ্যায়ের সূচনা করলো” ।

কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক তিতাস উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকার বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে যখন সারাদেশে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগসহ অঙ্গসংগঠনের কমিটি গঠন এবং বিলুপ্ত করা নিষেধ, সেখানে ঈদের পরদিন করোনা মহামারির এই কঠিন সময়ে গোপনে কমিটি ঘোষণা কোন উদ্দেশ্য হাসিলের জন্যই! আমি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, অবৈধভাবে ঘোষিত এই কমিটির কার্যক্রম স্থগিত করে কুমিল্লা উত্তরের মেয়াদ উত্তীর্ণ সকল কমিটিকে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ঢেলে সাজানোর জন্য।

সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন সাদ্দাম বলেন, জেলা ছাত্রলীগ কর্তৃক বহিস্কৃত খায়রুল হাসান রুবেলকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে। তার বাড়ী হোমনা উপজেলার নিলুখি গ্রামে। ছয় মাস আগে পাশের মেঘনা উপজেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন হলেও এখন পর্যন্ত কমিটি ঘোষণা হয়নি। আমাদের এখানে কি এমন হয়েছে যে কোন রকমের পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই কমিটি করে দিয়েছে। জেলা ছাত্রলীগের এই অনৈতিক কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে এই কমিটি বাতিল করা দাবী জানাচ্ছি। তা না হলে লকডাউনের পর কঠোর আন্দোলনে নামবে তিতাস উপজেলার তৃণমূলের নেতাকর্মীরা।

জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আহম্মেদ ফকির বলেন, গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন করে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। আর আমি দায়িত্বে থাকাকালীন সংগঠন বিরোধী কাজে জড়িত থাকায় খায়রুল খন্দকার রুবেল বহিস্কার করে ছিলাম। অন্য উপজেলার একজন বহিস্কৃতকে কিভাবে সাধারণ সম্পাদক পদে পদায়ন করে! এ কমিটি ঘোষণার মাধ্যমে ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্রকে কবর দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে কুমিল্লা জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আবু কাউসার অনিক বলেন, কমিটি করার প্রক্রিয়া দু’টি, একটি হলো সম্মেলনের মাধ্যমে, অন্যটি সম্মেলন ছাড়া। সম্মেলনের মাধ্যমে আনুষ্টানিকতা হলো লোক দেখানো। তিতাস উপজেলা ছাত্রলীগের পুর্ণাঙ্গ কমিটি না থাকায় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের মৌখিক নির্দেশে প্রথম অধিবেশন ছাড়াই দ্বিতীয় অধিবেশন করেছি। এখন কারো কোন অভিযোগ থাকলে কেন্দ্রে করুক।

অন্য উপজেলার বহিস্কৃত লোককে পদায়ন করার প্রশ্নে তিনি বলেন, কে কোন উপজেলার সেটা বড় বিষয় নয়, সংগঠনে অবদান আছে কিনা যাচাই করে এলাকার গ্রহনযোগ্যাকে প্রধান্য দিয়েই কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। আর খায়রুল খন্দকার রুবেলের বহিস্কার আদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে।

আর পড়তে পারেন