শনিবার, ২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বরুড়ায় রাজনৈতিক কর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে সামাজিক সংগঠন

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জানুয়ারি ২১, ২০২১
news-image

 

এমডি. আজিজুর রহমান, বরুড়াঃ

কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার পৌরসভাসহ ১৫ টি ইউনিয়নের বেশকিছু সামাজিক সংগঠন রাজনৈতিক কর্তাদের ও জনপ্রতিনিধিদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। সম্প্রতি বেশকিছু সংগঠনের কার্যক্রম পর্যালোচনা করে বিষয়টি নিশ্চিত করা গেছে।

জানা গেছে, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাজহারুল ইসলাম কর্মরত থাকা অবস্থায় বরুড়ায় ক্রীড়া ও শারিরীক শিক্ষার পরিধি বাড়ে। সাবেক ইউএনও নিয়মের বদলি হওয়ার পর বরুড়ায় নির্বাহী অফিসার হিসেবে আসেন মোঃ আনিসুল ইসলাম।

তিনি অল্প সময়ে বরুড়ার মানুষদের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন। ইতিমধ্যে বরুড়ার কর্মজীবনের একবছর অতিবাহিত করেছেন। গত একছরে বরুড়ার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও অধিকাংশ সামাজিক সংগঠনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ গ্রহণ করেন।

এছাড়াও উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নের একাধিক শিল্পপতি, সামাজিক ও মানবিক কয়েকজন চিকিৎসক, বরুড়ার কৃতি সন্তান সরকারি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা হচ্ছেন সামাজিক সংগঠনের প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি।

এতে করে বরুড়ার তরুণদের মাঝে ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। দেখা গেছে, এ সব অতিথিদের বক্তব্যে তরুণ ও যুবসমাজের মাঝে সমাজিক, মানবিক মূল্যবোধের সৃষ্টি হয়েছে। যা সুষ্ঠ ধারার সমাজ গঠনে দারুণ ভূমিকা রাখছে।

অতিতে দেখা গেছে, সামাজিক সংগঠনগুলো অনুদান ও অর্থনৈতিক সহযোগিতার উদ্দেশ্যে রাজনৈতিক কর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের অতিথি করা হতো। সে শূন্যতা অর্থনৈতিক অপূর্ণতা এখন নেই বা থাকলেও নিজেরা ম্যানেজ করে নিচ্ছেন।

গত এক বছরে অধকাংশ সামাজিক সংগঠনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ গ্রহণ করছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আনিসুল ইসলাম। তাঁর গঠনমূলক বক্তব্যে তরুণ যুবকরা উদ্দীপিত। দেখা গেছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তরুণদের ফেইজবুক আইডির প্রোফাইলে ইউএনও’র সাথে তোলা ছবি ব্যবহার করছে। তিনি তরুণদের কাছে আইডলে পরিনত হয়েছে।

এ ব্যাপারে একাধিক সামাজিক সংগঠনের সাথে বলে জানা গেছে, তারা রাজনৈতিক নেতাদের বিষয়ে মন্তব্য করতে অনিহা প্রকাশ করেন। তারা জানান, ইউএনও-কে অতিথি করলে অনুষ্ঠান আলোকিত হয়। তাছাড়া তার কাছে যেকোন সমস্যা নিয়ে গেলে অভিভাবকের মতো ভূমিকা রাখেন।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, সামাজিক সংগঠন থাকলে সমাজে অপরাধ কমে যায়। আমি আমার জায়গা থেকে বরুড়ার মানুষের জন্য কিছু করার চেষ্টা করছি। তিনি আরো জানান, উপজেলার প্রত্যেকটা ইউনিয়নে একটি করে সংগঠন তৈরী করে দিয়ে যাবেন। এতে করে সমাজ আলোকিত হবে।

আর পড়তে পারেন