বৃহস্পতিবার, ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বরুড়ায় কিশোর-কিশোরীদের মাঝে বেড়েছে আত্মহত্যার প্রবণতা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ১৩, ২০২১
news-image

 

এমডি. আজিজুর রহমান, বরুড়া :

কুমিল্লার বরুড়া উপজেলায় আত্মহত্যার প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে। কিশোর, কিশোরী ও গৃহবধূসহ নানা বয়সী নারী ও পুরুষ বিভিন্ন কারণে আত্মহত্যা করছে। গৃহবধূ, নানা বয়সী নারী ও পুরুষ বেশির ভাগ সময় পারিবারিক কলহ, পরকীয়া এবং ঋণগ্রস্ত হওয়াসহ নানাহ কারণে আত্মহত্যার কারণ বেচে নিচ্ছে। বড় আতঙ্ক ও মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাড়িয়েছে কম বয়সী কিশোর ও কিশোরীদের আত্মহত্যার প্রবণতা বৃদ্ধির বিষয়টি।

সম্প্রতি বরুড়ার তলাগ্রামের হামিম নামের এক কিশোর আত্মহত্যা করেছে। প্রাথমিকভাবে তার আত্মহত্যার কারণ জানা যায়নি। অনেক কৌতুহল বসত তার ফেইসবুক প্রোফাইল ঘুরে দেখলাম, সে প্রায় এক মাস যাবৎ ফেইসবুকে তার আইডিতে হতাশার বিষয়টি জানিয়ে আত্মহত্যার ইংগিত দিয়েছিলো। তার আইডিতে এমন একাধিক পোস্ট রয়েছে। তারপর হামিমের এক বন্ধ জানিয়েছে সে প্রেম ঘটিত বিষয়কে কেন্দ্র করে এর পূর্বেও  দুইবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলো৷

হামিম কিশোর বয়সেই এক কিশোরীর সাথে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। কিশোরীর পরিবার সম্পর্কটি মেনে নেয়নি। কিছুদিন পরে কিশোরীর বিয়ে হয়ে যায়। এ সংবাদে সে দুইবার আত্মহত্যার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েও সে সাভাবিক জীবনে ফিরতে পারেনি। মাত্রাতিরিক্ত ঘুমের ঔষধ সেবনের মধ্য দিয়ে নেশার জগতে নাম লিখে নেয়। হতাশাগ্রস্থ হয়ে তৃতীয়বারে আত্মহত্যার চেষ্টায় তামিম মারা যায়। একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে অভাগিনী মায়ের আহাজারিতে শোকের ছায়া নেমে আসে।

গত কয়েকদিন পূর্বে কাসেড্ডা গ্রামে একজন গৃহবধূ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। এটা ছিলো পারিবারিক কলহ। মেয়েটির স্বামী প্রবাসে থাকে। সে তার বয়স্ক শাশুড়ির সাথে বসবাস করতো । স্থানীয়রা জানিয়েছিল তার শাশুড়ি ঠান্ডা প্রকৃতির মানুষ ছিলেন। মেয়েটি একজন বয়স্ক মানুষের সাথেও সংসার করতে পারেনি। তার পেছনেও উল্লেখযোগ্য কারণ ছিলো বাল্য বিবাহ। কম বয়সের কারনে, তার কাছে শশুর বাড়ির শাশুড়ি ও স্বামীর সব কথা  স্বাভাবিক মনে হয়নি।

কিশোর ও কিশোরীদের প্রেমের বিষয়ে অনুৎসাহিত করুন। সে অবসর সময় কোথায় কাটাচ্ছে সে বিষয়ে খোজখবর রাখা রাখুন। কিশোর ধুমপান করছে কিনা সে বিষয়ে খেয়াল রাখুন। নেশার জগতে প্রবেশ হয় ধুমপানের মধ্যে দিয়েই। কিশোর ও কিশোরীর প্রাপ্ত বয়স্ক হলে পছন্দের গুরুত্ব দিন। বাল্য বয়সে বিয়ের সিদ্ধান্ত পরিহার করুন।

আতœহত্যা ধর্মীয় দৃষ্টিকোন থেকে অপরাধ বলা হয়। নৈতিক শিক্ষার পাশাপাশি ধর্মী শিক্ষার প্রতি গুরুত্ব দিতে হবে। আতœহত্যার প্রবণতা কমাতে সামাজিক সংগঠনের প্রতিনিধিদের এগিয়ে আসতে হবে। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে এ বিষয়ে বক্তব্য রাখতে হবে। মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। কিশোর বয়সে প্রেমে জড়িয়ে যাওয়ার বিষয়ে অনুৎসাহিত করতে হবে। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে অভিভাবক সমাবেশ করে সন্তানের অবাধ চলাফেরা, কিশোর বয়সে প্রেমে জড়িয়ে যাওয়া, হতাশাগ্রস্ত হয়ে মাদক সেবন করার বিষয়ে প্রতিরোধমূলক পরামর্শ দিতে হবে।

লেখক :  এমডি. আজিজুর রহমান
সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী।

আর পড়তে পারেন