সোমবার, ২রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বরুড়ায় করোনা রোগীদের চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছে চিকিৎসকরা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুলাই ১৭, ২০২১
news-image

 

এমডি. আজিজুর রহমান, বরুড়া:

কুমিল্লা জেলার বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দিন দিন করোনা রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। শনিবার (১৭ জুলাই) সকাল ৯ টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ দৃশ্য দেখা যায়। তবে, করোনা রোগীর সাথে অভিভাবকদের স্বাস্থবিধি না মেনে রোগীর সাথে খাবার খেতে দেখা গেছে।

জানা গেছে, বরুড়া উপজেলায় পৌরসভাসহ ১৫টি ইউনিয়নে প্রায় ১০ লাখ জন জনসংখ্যা রয়েছে। করোনার মহামারী প্রকোপে ১০ লাখ জনসংখ্যার জন্য ৩১ সয্যার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি এক মাত্র ভরসা।

গতবছর করোনার মহামারীর প্রকোপ মোকাবিলায় স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. নিশাত সুলতানা ও ভারপ্রাপ্ত আরএমও জামিল সিদ্দিকী ভূইয়া বরুড়ার বৃত্তবানদের কাছে সেন্ট্রাল অক্সিজেন স্থাপনের জন্য প্রস্তাবনা রাখেন।

প্রস্তাবনা বাস্তায়নে সড়ক ও জনপথ বিভাগের যুগ্মসচিব মনিন্দ্র কিশোর মজুমদার ও স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপের মার্জেন্ডাইজার কামরুজ্জামান রিমনের সমন্বয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য নাছিমুল আলম চৌধুরী (নজরুল), স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আতিকুর রহমান, পরিচালক তোফাজ্জল আলী ও ঢাকাস্থ বরুড়া উপজেলা জনকল্যাণ সমিতির অর্থায়নে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৬টি সেন্ট্রাল অক্সিজেন মেশিন স্থাপন করেন। সাথে ৬টি হাই প্লো অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ করা হয়। গেলো একবছর এ অক্সিজেন করোনা আক্রান্ত রোগীর সেবায় দারুন ভূমিকা রেখে আসছে।

সম্প্রতি বরুড়ায় ভারতের “ডেল্টা ভ্যারিয়ান্ট” নামক করোনার ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ সব রোগীদের সেন্ট্রাল অক্সিজেন দিয়ে সেবা দেওয়া সম্ভব হচ্ছিলো না। সেবা দিতে হলে পর্যাপ্ত হাই প্লো অক্সিজেন সিলিন্ডারের প্রয়োজন। যা এ মূহুর্তে সংকট দেখা দিয়েছে এবং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পর্যাপ্ত সে সিলিন্ডারও নেই।

গত কিছুদিন পূর্বে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার অনুরোধে স্থানীয় সংসদ সদস্য নাছিমুল আলম চৌধুরী (নজরুল) ও স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আতিকুর রহমান ব্যাক্তিগত অর্থায়নে আরো ৬ টি হাই প্লো অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান করেন। এ ৬ টি হাই প্লো সিলিন্ডার সংযোজনের ফলে এবং আগের ছোট বড় ৩২ টি নরমাল সিলিন্ডার বর্তমানে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা রোগীদের অক্সিজেন সরবরাহ উন্নতি হয়েছে।

করোনা সাসপেক্ট রোগীদের সেম্পল সংগ্রহ করছে টেকনোলজিস্ট ফরিদা ও মিলন। বর্তমানে করোনা ইউনিটে ১২ জন করোনা আক্রান্ত ও সাসপেক্ট ৩ জনসহ মোট ১৫ জন রোগীর নিবিড় চিকিৎসা চলছে। ১০টি বেডের ক্যাপাসিটির বাহিরেও অতিরিক্ত ৬ জন করোনা রোগীকে সেবা প্রদান করা হচ্ছে। রোগীর অবস্থা অবনতি হলেই কেবলমাত্র কুমিল্লা রেফার করা হয়।

এ বিষয়ে বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নিশাত সুলতানা বলেন, আমরা আমাদের সাধ্যমতে সেবা প্রদান করছি। এ ক্ষেত্রে পর্যাপ্ত অক্সিজেনের প্রয়োজন। নতুন কয়েকটি সিলিন্ডার পেয়েছি। ১০টি বেডে নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেন সরবরাহ করা যাবে। অতিরিক্ত রোগীর ক্ষেত্রে ছোট ছোট কিছু সিলিন্ডারের প্রয়োজন আছে। উপজেলা পর্যায়ে এর থেকে বেশীকিছু করা সম্ভব নয়। তিনি স্থানীয় সংসদ সদস্য নাছিমুল আলম চৌধুরী (নজরুল) ও স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আতিকুর রহমানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

আর পড়তে পারেন