মঙ্গলবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য এখনো ত্রাণ তৎপরতা ও পুনর্বাসন কাজ অব্যাহত রয়েছে – মোফাজ্জল হোসেন মায়া চৌধুরী

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
নভেম্বর ৩, ২০১৭
news-image

 

মো. দ্বীন ইসলাম, মতলব উত্তর :
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন মায়া চৌধুরী বলেছেন, রোহিঙ্গারা যদি অপারাধে জড়ায় তাদেরকে ছাড় দেয়া হবে না। ইতিমধ্যে কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটেছে, আমাদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সমস্য আমরা অচিরেই কেটে উঠতে পারবো। তবে এর জন্য সকলের সহযোগিতা লাগবে।
মন্ত্রী বৃহস্পতিবার দুপুরে চাঁদপুরের মতলবে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ কালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন ।
মন্ত্রী মায়া বলেন, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য এখনো ত্রাণ তৎপরতা ও পুনর্বাসন কাজ অব্যাহত রয়েছে। বন্যার টেকসই মোকাবিলার জন্য সরকার বন্যাপ্রবণ এলাকায় নতুন নতুন আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করছে ও ঝুঁকিপূর্ণ মানুষদের ঘরবাড়ি উঁচু করে দিচ্ছে।
মায়া চৌধুরী বলেন, এবছর দীর্ঘ মেয়াদী ও বিস্তৃত এলাকায় বন্যা হয়েছে। কিন্তু একটি মানুষও বন্যার কারনে খাদ্য ও আশ্রয়হীন ছিল না। সরকার ও আওয়ামীলীগ দলীয় নেতৃবৃন্দের সক্রিয় অংশগ্রহণে সরকার সফলতার সাথে বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলা করেছে। তিনি বলেন, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য এখনো ত্রাণ তৎপরতা ও পুনর্বাসন কাজ অব্যাহত রয়েছে। তিনি বলেন, বন্যার টেকসই মোকাবিলার জন্য সরকার বন্যাপ্রবণ এলাকায় নতুন নতুন আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করছে ও ঝুঁকিপূর্ণ মানুষদের ঘরবাড়ি উঁচু করে দিচ্ছে। তিনি আরও বলেন বন্যার পানি দ্রুত নেমে যেতে সরকার গুরুত্বপূর্ণ নদীগুলো ড্রেজিং করার উদ্যোগ নিয়েছে।
বিগত বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ১০ হাজার পরিবারের জন্য ৩০০ মেট্রিক টন ত্রাণ সামগ্রী দিয়েছে তুরস্কের আন্তর্জাতিক সহযোগিতা ও সমন্বয় সংস্থা টিকা। পরিবার প্রতি ৩০ কেজি করে ১০ হাজার প্যাকেটের মাধ্যমে এ ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হবে।
মতলব উত্তর উপজেলার ফরাজীকান্দি, জহিরাবাদ, এখলাছপুর, মোহনপুর, কলাকান্দা ও ষাটনল ইউনিয়নের ১ হাজার পরিবারকে ত্রাণ সামগ্রী প্রদান করা হয়।
এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মতলব উত্তর ইউএনও শারমিন আক্তারের সভাপতিত্বে ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ কুদ্দুসের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন- টিকা’র সমন্বয়কারী আহমেদ রেফিক চিটিংকায়া, উপ-সমন্বয়কারী শেরিফ উজতুর্ক, আলোকিত বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন এর নির্বাহী পরিচালক ইফতেখার হোসেন, চাঁদপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ওচমান গনি পাটওয়ারী, চাঁদপুর জেলা প্রশাসক মো. আবদুস সবুর মন্ডল, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র নাছির উদ্দিন আহমদ, মতলব উত্তর উপজেলা চেয়ারম্যান মনজুর আহমদ।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন- মন্ত্রীর সহধর্মিনী পারভীন চৌধুরী, মন্ত্রী পূত্র সাজেদুল হোসেন চৌধুরী দিপু, মতলব দক্ষিণ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক সিরাজুল মোস্তফা তালুকদার, মতলব দক্ষিণ ইউএনও শহিদুল ইসলাম, মতলব পৌরসভার মেয়র আওলাদ হোসেন লিটন, মতলব উত্তর থানার ওসি আনোয়ারুল হক কামাল, মতলব উত্তর উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এ্যাড. রুহুল আমিন, মতলব উত্তর উপজেলা চেয়ারম্যান কল্যাণ সমিতির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সামছুল হক চৌধুরী বাবুল, মতলব দক্ষিণ উপজেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এএইচএম গিয়াস, সাধারণ সম্পাদক বিএইচ কবির আহমেদ, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম হাওলাদার, সদস্য মিনহাজ উদ্দিন খান, আল-আমিন ফরাজী, মতলব উত্তর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী শরীফ, ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দানেশ, হাজী মোসাদ্দেক হোসেন মুরাদ, হাজী আলী আক্কাছ বাদল, একেএম শরীফ উল্লাহ সরকার, সোবহান সরকার সুভা প্রমুখ।
রোহিঙ্গাদের সার্বিক সহায়তায় এগিয়ে আসায় মন্ত্রী তুরস্ক সরকারকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

আর পড়তে পারেন