শনিবার, ৬ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবায় কমিউনিটি ক্লিনিকের সাফল্য

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ১৯, ২০১৮
news-image

 

মোঃ মাসুদ হোসেন
অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা ও চিকিৎসা মানুষের মৌলিক অধিকার। আর এই পাঁচটি অধিকারের মধ্যে চিকিৎসা একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। স্বাস্থ্য মানুষের অমূল্য সম্পদ। বাংলায় একটি প্রবাদ আছে, ‘স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল। যার স্বাস্থ্য ভালো, তার সবকিছুই ভালো। শরীর অসুস্থ্য হলে এবং স্বাস্থ্য ভালো রাখতে প্রতিটি মানুষই ছুটে যান চিকিৎসকের কাছে। গ্রামাঞ্চলের মধ্যবিত্ত ও নিন্ম আয়ের মানুষগুলো প্রাথমিক চিকিৎসা নিতে যেতে হয় গ্রাম্য ডাক্তারের কাছে।

কিন্তু অনেকের পক্ষে এ চিকিৎসা নেয়াও কষ্টসাধ্য হয়ে ওঠে। এ জন্য গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর দোরগোড়ায় বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা পৌছে দিতে বর্তমান সরকার তৈরি করেছে কমিউনিটি ক্লিনিক।

১৯৯৮ সাল থেকে বর্তমান সরকার গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে প্রতি ৬ হাজার গ্রামীণ মানুষের জন্য চালু করেছে একটি করে কমিউনিটি ক্লিনিক। বর্তমানে দেশে প্রায় সাড়ে ১৩ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা নিচ্ছেন গড়ে ৯৫ লাখ গ্রামাঞ্চলের মানুষ। আর এই কমিউনিটি ক্লিনিক চালু হওয়ার পর থেকে উপজেলা ও সদর হাসপাতালে রোগির চাপ অনেকটা কমেছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। মানুষের দোরগোড়ায় প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা পৌছে দেওয়ার জন্য প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপির) মাধ্যমে ও ৩০ প্রকার ঔষধ বিনামূল্যে প্রদান করেন কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো। এসব ক্লিনিকের মাধ্যমে মা ও শিশুর স্বাস্থ্যসেবা, প্রজনন স্বাস্থ্য, পরিবার পরিকল্পনা সেবা, টিকাদান কর্মসূচি, পুষ্টি, স্বাস্থ্য শিক্ষা, পরামর্শসহ বিভিন্ন সেবা প্রদান করা হচ্ছে এবং জটিলতর রোগের চিকিৎসার জন্য উপজেলা ও জেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে প্রেরণ করা হয়।

পূর্বের স্বাস্থ্যসেবার পাশাপাশি এখন প্রায় ১ হাজার ২০০ ক্লিনিকে স্বাভাবিক প্রসব হচ্ছে, বাকী ক্লিনিকেও স্বাভাবিক প্রসবের আয়োজন করা হচ্ছে। আর এসব সেবা পাচ্ছেন দেশের সকল স্তরের গর্ভবতী মায়েরা। এছাড়াও ডায়াবেটিসের মতো অসংক্রামক রোগ ও উচ্চ রক্তচাপ এখান থেকে শনাক্ত করা যাচ্ছে। দেশের প্রতিটি কমিউনিটি ক্লিনিক এখন ডিজিটালাইজড। সকল উপজেলার ১২ হাজার ৫৩০টি কমিউনিটি ক্লিনিকে ল্যাপটপ ও ইন্টারনেট মডেম বিতরণ করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এর মাধ্যমে তাৎক্ষনিক স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে পারবে সিএইচসিপিগণ।

আর পড়তে পারেন