মঙ্গলবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

প্রচন্ড গরমে চাঁদপুরে ২০ শিক্ষার্থী অসুস্থ

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১৮
news-image

মাসুদ হোসেন, চাঁদপুর :
প্রচন্ড গরমে চাঁদপুর সদর উপজেলার ৫নং রামপুর ইউনিয়নের ছোট সুন্দর এ আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের অন্তত ২০ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়ে। গত কয়েক দিন ধরে অব্যাহত গরমে এ পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়েছে। দফায় দফায় শিক্ষার্থীরা অসুস্থ হওয়ার ঘটনায় অভিভাবকদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ হারুন-অর-রশিদ ছুটিতে থা

কায় তাঁর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বৃহষ্পতিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিভিন্ন শ্রেণির ক্লাস শুরু হওয়ার আগে ও পরে হঠাৎ করে কয়েকজন শিক্ষার্থী মাথা ঘুরে পড়ে যায়। এমন আতঙ্কে অন্য শিক্ষার্থীরাও অসুস্থ হয়ে পড়ে। মাথায় পানি দেওয়ার পর আবার তারা সুস্থ হয়ে উঠে। এতে গোটা স্কুল জুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এমন ঘটনা প্রায় ঘটছে বিদ্যালয়ে। বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ করিম উল্যাহ্ জানান, অনেকদিন ধরে শিক্ষার্থীরা অসুস্থ হওয়ার ঘটনায় শিক্ষক ও অভিভাবকদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। বিদ্যালয়ের প্রতিটি ক্লাশে প্রায় দেড়’শ শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে বিদ্যুৎ এর লোডশেডিং থাকায় প্রচন্ড গরমে দুর্ভোগ পোহাতে হয় শিক্ষার্থীদের। যার কারণে শিক্ষার্থীরা প্রচন্ড গরমে বারবার অসুস্থ্য হয়ে পড়ছে। এদের মধ্যে বেশীরভাগ ছাত্রীরাই এর শিকার হচ্ছেন।

এদিকে খবর পেয়ে ৫নং রামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আল মামুন পাটওয়ারী ও ইউপি সচিব মোঃ রাকিবুল হাসান ছুটে যান বিদ্যালয়টিতে। বিদ্যালয়ের প্রতিটি শ্রেণীকক্ষে গিয়ে শিক্ষার্থীদের আতংক না হওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। ইউপি চেয়ারম্যান আল মামুন পাটওয়ারী  জানান, বিদ্যালয় থেকে এমন ঘটনা আমাকে জানানোর পর সাথে সাথে বিদ্যালয়ে গিয়ে এমন পরিস্থিতি দেখে চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমার পরামর্শ মোতাবেক সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডা: মোঃ শফিকুল ইসলামকে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি তাৎক্ষনিক ইউনিয়ন ও পরে সদর উপজেলা মেডিকেল টিম পাঠিয়ে অসুস্থ শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য পরিক্ষা করেন এবং তারা জানান, চিকিৎসা বিজ্ঞানে এটাকে হিস্টোরিয়া রোগ বলা হয়। একজন আক্রান্ত হলে আতঙ্কে আরেকজন আক্রান্ত হয়। তবে এতে ভয়ের কিছু নেই। মানসিক সমস্যার কারণে শিক্ষার্থীরা বারবার অসুস্থ হয়ে পড়ছে। এমন ঘটনা শুনে স্থানীয় ইউপি সদস্য, বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সদস্য, অভিভাবক ও এলাকার বিভিন্ন পেশার লোকজন উপস্থিত হন।

আর পড়তে পারেন