শনিবার, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

দেবিদ্বারে গলায় ফাঁস দিয়ে ২ সন্তানের জননীর আত্ম হ ত্যা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
আগস্ট ৪, ২০১৯
news-image

মো. জামাল উদ্দিন দুলাল ঃ
কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার উপজেলার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের নোয়াবগঞ্জ (কোটনা) গফুরের বাড়ির মো. কাউসার ওমান প্রবাসী’র স্ত্রী ২ সন্তানের জননী মাহমুদা আক্তার (২৫), রোববার সকাল ৯টায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্ম হ  ত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। দেবিদ্বার থানা পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে বিকেলে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন।

নিহতের আত্মীয় ও স্থানীয়রা সূত্রে জানা যায় উপজেলার মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা থানার পীর কাশেমপুর গ্রামের মো. আবু তাহের এর মেয়ে নিহত মাহমুদা আক্তার কে ১২বছর পূর্বে দেবিদ্বার উপজেলার নোয়াবগঞ্জ (কোটনা) গফুরের বাড়ী’র মো. কাউসার’র নিকট সামাজিক ভাবে ধর্মীয় আইন অনুসারে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে খুব ভালো ভাবে ঘর সংসার চলছিল। কোন এক সময়ে মেয়ে সুখের কথা চিন্তা করে কাউসার’কে বিদেশ পাঠানো হয়। প্রবাসী কাউসার সৎ মা রফেজা ও বাবা মো. বাচ্চু মিয়া বাড়ীতে থাকলেও তাদের সাথে স্ত্রী নিহত মাহমুদা থাকত না। বাড়ীর পাশের একটি ঘরে থাকত। বেশ কয়েক মাস পূর্বে কে বা কাহারা মাহমুদাকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে কাগজে লিখে ঘরের দরজায় ফেলে রাখত। তবে স্বামী কাউসার অত্যান্ত ভালো, বিয়ের পর থেকে কখনো ধরনের ঝগড়া ও তর্ক-বির্তক তাদের মাঝে হয়নি। এই নিয়ে মাহমুদা তার স্বামী কাউসার’র পরামর্শে তাহার ২সন্তানকে নিয়ে বাবার বাড়ীতে জীবন যাপন করে। তবে প্রায় ৫মাস পর গত শনিবার ৩আগষ্ট বিকেলে স্বামী কাউসার নির্দেশে তাদের পাশের বাড়ী লোকমান এর নিকট ফোন করে তাহার বউ ও সন্তানকে আনার জন্য বলে। নিহত মাহমুদাকে তাহার বাবা বাড়ি (পীর কাশেমপুর) থেকে স্বামীর বাড়িতে নিয়ে আসে লোকমান সাথে বোনকে এগিয়ে দিতে বড় ভাই কাইয়ুম আসে। রোববার সকাল প্রায় ৮টায় লোকমানের সাথে দেখা হয়। এর কিছুক্ষন পরে প্রায় ৯টায় সময় ফোন খবর পায় মাহমুদা ঘরের তীরের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্ম হ ত্যা করেছে। নিহত মাহমুদার ২টি ছেলে সন্তান রয়েছে।

এব্যাপারে দেবিদ্বার থানা’র এস আই মো. আলমগীর ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। লাশ সুরত হাল করেছে। আত্ম হ  ত্যার কারণ জানা যায়নি।

দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জহিরুল আনোয়ার জানান,মাহমুদা নামের একজন গলায় ফাঁস দিয়ে আত্ম  হ ত্যা করেছে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য কুমেক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হবে। তবে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রক্রিয়া চলচ্ছে। তদন্ত সাপেক্ষে নিহত হওয়ার রহস্য জানা যাবে।