সোমবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ত্বকের যত্নে পুদিনাপাতা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
সেপ্টেম্বর ২, ২০২১
news-image

 

লাইফ স্টাইল ডেস্কঃ

প্রাচীনকাল থেকেই স্বাস্থ্য ও ত্বকের যত্নে ব্যবহার হয়ে আসছে বিভিন্ন ভেষজ জিনিস তার মধ্যে পুদিনা পাতা অন্যতম।

পুদিনা পাতায় পাওয়া যায় ‘পলিফেনল’ যা একে ঔষধি গুণ দেয়। হাঁপানি, পেটের গোলমাল সারাতে তাই পুদিনা পাতা বিশেষ উপকারী। অপরদিকে এর ক্যালরি, প্রোটিন, চর্বি সবকিছুরই মাত্রা কম। ভিটামিন এ, সি আর বি – কমপ্লেক্স মেলে পুদিনা পাতা থেকে, যা ত্বকের যত্নে আর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে অত্যন্ত জরুরি উপাদান।

পুদিনা স্বাস্থ্যের পক্ষে কতটা উপকারি, তা আমরা অনেকেই জানি। তবে আপনি কি জানেন, স্বাস্থ্যের পাশাপাশি পুদিনা ত্বকের জন্যও দুর্দান্ত! পুদিনা পাতা পুষ্টিগুণে ভরপুর, যা ত্বক সুস্থ রাখতে কার্যকরি। পুদিনা পাতার শক্তিশালী অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য, ক্লিনজার, টোনার এবং ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে।

মশার কামড় থেকে শুরু করে ডার্ক সার্কেল, ব্রণ এবং ত্বকের নানান সমস্যা সমাধানে পুদিনা বা মিন্ট খুবই কাজের।

ডার্ক সার্কেল কমায় পুদিনা পাতায় থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট চোখের নীচের কালো দাগ কমাতে পারে। চোখের তলার ডার্ক সার্কেলে পুদিনা পাতার পেস্ট লাগিয়ে সারারাত রেখে দিন। এতে ডার্ক সার্কেল ধীরে ধীরে হালকা হবে।

ক্ষত সারায় পুদিনা পাতায় থাকা অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি বৈশিষ্ট্য ত্বকের কাটা, ক্ষত, মশার কামড় এবং চুলকানি নিরাময়ে সহায়তা করে। এর জন্য, পুদিনা পাতার রস বের করে ত্বকের আক্রান্ত স্থানে লাগাতে পারেন।

ব্রণ কমায় পুদিনা পাতা স্যালিসিলিক অ্যাসিড এবং ভিটামিন এ সমৃদ্ধ, যা ত্বকে সিবাম অয়েল নিঃসরণ নিয়ন্ত্রণ করে। যাদের তৈলাক্ত ত্বক, তাদের ব্রণ ফেটে যাওয়ার প্রবণতা বেশি থাকে। পুদিনা পাতার অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি-ফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য প্রদাহ রোধ করে এবং ব্রণও নিরাময় করে। পুদিনা পাতার পেস্ট ব্রণের উপর লাগান এবং শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত রেখে দিন। এতে ব্রণের দাগ দূর হবে এবং ত্বকের ছিদ্রও পরিষ্কার করবে।

লেখক- আনিকা নাজনীন

আর পড়তে পারেন