শনিবার, ১৭ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

তিতাসে পরকীয়ার জেরে যুবককে পিটিয়ে হত্যা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ৫, ২০২১
news-image

 

মোঃ জুয়েল রানা, তিতাসঃ
কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় পরকীয়া করতে এসে দূর্বৃত্তদের হাতে খুন হয়েছে এক যুবক।

ঘটনাটি ঘটেছে  বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) রাত আনুমানিক ১০ টায় উপজেলার চর কাঁঠালিয়া (ভাটেরার চর) গ্রামের মৃত মনির মিয়ার বাড়িতে।

নিহত যুবক মো.আরিফ (৩০)দাউদকান্দি উপজেলার সবজিকান্দি গ্রামের মৃত বজলুল হকের ছেলে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ওই বাড়িতে কোন পুরুষ নাই এবং সুমির ঘর তালাবদ্ধ। প্রতিবেশীদের কাছ থেকে জানা যায়, মৃত মনির মিয়ার ছেলে সৌদি প্রাবাসী মুক্তার হোসেনের স্ত্রী মৌসুমি ওরফে সুমি (২৬) এর সাথে আরিফের পরকীয়া সম্পর্কের টানে গতকাল রাতে চর কাঁঠালিয়া সুমির বাড়িতে আসে। এসময় ওই গ্রামের কিছু দূর্বৃত্ত ঘটনাটি আচ করতে পেরে সুমির ঘর থেকে আরিফকে ধরে এনে এলোপাতারী মারধর করে গুরত্বর আহত করে। এসময় আরিফের স্বজনদেরকে ফোনে খবর দিলে তার স্বজনরা এসে আরিফকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে নিয়ে দাউদকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গৌরীপুর নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা রেফার্ট করে, ঢাকা নেওয়ার পথে যাত্রাবাড়ী গিয়ে পৌছলে গাড়িতেই তার মৃত্যু হয়।

নিহত যুবকের মামাতো ভাই নিক্সন জানান, সন্ধা আনুমানিক ৭ টায় আরিফ বাসা থেকে বলে যায় আমি এক যায়গায় যাচ্ছি আসতে দেরী হবে,রাত আনুমানিক ১১:৩০ মিনিটে ছোট ভাই হাসানের নিকট ফোন আসে সুজন নামের এক লোক নৌবাহিনীতে চাকরি করে বলে পরিচয় দিয়ে বলে আপনাদের আরিফ নামের লোক আমাদের এখানে আটক আছে এসে নিয়ে যান,খবর পেয়ে আমারা ঘটনাস্থলে যাই, গিয়ে দেখি আরিফের অবস্থা খুবই খারাপ, এসময় আমরা আরিফকে দ্রুত নিয়ে আসতে চাইলে তারা আমাদেরকে বাঁধা প্রদান করে এবং আমাদের নিকট টাকা দাবী করে,এই নিয়ে তাদের সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আরিফ বমি করে এবং বমির সাথে রক্ত ক্ষরণ হলে তখন তারা একে একে চলে গেলে আমরা আরিফকে নিয়ে আসি এবং গৌরীপুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা রেফার্ট করলে ঢাকা নেওয়ার পথে যাত্রাবাড়ী গিয়ে পৌছলে গাড়িতেই আরিফ মারা যায়।

এ বিষয়ে তিতাস থানা ওসি সৈয়দ মোহাম্মদ আহসানুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে আমরা নিহতের স্বজনদের ফোন দেই এবং তারা লাশ থানায় নিয়ে আসলে সুরত হাল রিপোর্ট করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা প্রেরণ করি। নিহতের শরীরে বিভিন্ন জায়গায় অনেক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে এবং আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এঘটনা হত্যা মাামলা হবে এখনও কোন লিখত অভিযোগ দেয়নি, লিখিত অভিযোগে আসামীদের নাম আসলে তাদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

আর পড়তে পারেন