রবিবার, ১৬ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

‘জুমা নামাজের সময় বায়তুল মোকাররম বোমা মেরে উড়িয়ে দিলে দুর্নীতিবাজের সংখ্যা কমে যাবে’

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
এপ্রিল ১৫, ২০২১
news-image


ডেস্ক রিপোর্টঃ

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার ভাইরাল হওয়া একটি ফেসবুক স্ট্যাটাস নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) দুপুর ১২টা ৩৫ মিনিটে আবদুল কাদের মির্জা তার নিজের ফেসবুকে লেখেন, ‘শুক্রবার জুমা নামাজের সময় বায়তুল মোকাররম মসজিদ বোমা মেরে উড়িয়ে দিলে দেশে দুর্নীতিবাজ এর সংখ্যা কমে যাবে’

পোস্টটি মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায় এবং অনেকে বিভিন্ন রিয়েক্ট ও কমেন্ট করতে থাকেন। তবে ১২টা ৫৫ মিনিট থেকে কাদের মির্জার ওয়ালে আর ওই পোস্টটি দেখা যাচ্ছে না।

কামাল উদ্দিন নামে বসুরহাটের এক ফেসবুক ব্যবহারকারী বলেন, বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখে হয়ত তিনি পোস্টটি মুছে দিয়েছেন।

এদিকে কাদের মির্জার এ পোস্টের স্ক্রিনশট নিয়ে তার তীব্র সমালোচনা করে ফেসবুকে পোস্ট দিচ্ছেন অনেকে। কেউ কেউ ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের দায়ে বিরূপ মন্তব্যও করছেন।

কোম্পানীগঞ্জের সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল লিখেছেন, ‘আ. কা. মির্জা (আবদুল কাদের মির্জা) মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অনতিবিলম্বে গ্রেফতারের জোর দাবি জানাচ্ছি।’

কাদের মির্জার ভাগনে ফখরুল ইসলাম রাহাত লিখেছেন, ‘বাংলাদেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের আবেগের জায়গা জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম বোমা মেরে উড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিলেন আ কা মির্জা (আবদুল কাদের মির্জা)। ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার অপরাধে দ্রুত আবদুল কাদের মির্জাকে গ্রেফতার করার দাবি জানাচ্ছি।’

এছাড়া ‘নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগ’ নামে একটি আইডি থেকে কাদের মির্জার ওই পোস্টের সমালোচনা করা হয়েছে। সেখানেও স্ক্রিনশট দিয়ে লেখা হয়েছে, ‘আবদুল কাদের মির্জারে পাগলা কুত্তায় কামড় দিয়েছে।’

হাসান ইমাম নামে একজন লিখেছেন, ‘এবার তিনি বলবেন আমার আইডি হ্যাক হয়েছে। এসব কী দেখছি।’

সাগর ভুইয়া নামে এক ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘প্রিয় নেতা আবদুল কাদের মির্জা ভাইয়ের ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছে। কেউ বিভ্রান্ত হবেন না।

তবে এ ব্যাপারে মেয়র কাদের মির্জাকে বার বার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেননি। পরে ক্ষুদেবার্তা পাঠিয়েও কোনো উত্তর পাওয়া যায়নি।

আর পড়তে পারেন