বুধবার, ১লা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চৌদ্দগ্রাম উপজেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক কমিটির বৈধতা তদন্তের নির্দেশ মির্জা ফখরুলের

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
এপ্রিল ২২, ২০১৭
news-image

মো ঃ বেলাল হোসাইন,চৌদ্দগ্রাম ঃ
গত ৮ ফেব্রুয়ারী কুমিল্লা দ. জেলা বিএনপি’র সভাপতি রাবেয়া চৌধুরী ও সাধারন সম্পাদক হাজী ইয়াছিন কর্তৃক স্বাক্ষরিত পত্রের আলোকে কামরুল হুদার নেতৃত্বে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটি গঠনে অনিয়ম ও দলীয় শৃঙ্খলা না মানার অভিযোগের বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গত শুক্রবার রাতে ই-মেইলে পাঠানো উপজেলা বিএনপি’র প্যাডে এক পত্রের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেন জিএম তাহের পলাশী ও সাজেদুর রহমান মোল্লা হিরণ। অভিযোগপত্রে মির্জা ফখরুল কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ শাহজাহানকে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা বিএনপি’র কমিটি পরিবর্তন করে নতুন আহবায়ক কমিটি গঠনের বিষয়টি তদন্ত করে দেখার জন্য বলেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি তাহের পলাশী ও সেক্রেটারী সাজেদুর রহমান মোল্লা হিরণ জানান, বিগত ২০০৯ সালে বর্তমান কমিটি দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই হরতাল অবরোধসহ কেন্দ্র ও জেলা ঘোষিত সকল কর্মসূচী রাজপথে থেকেই পালন করে বর্তমান কমিটির নেতৃবৃন্দ। যা বিগত সময়ের বিভিন্ন জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। একটি স্বার্থান্বেষী মহল উপজেলা বিএনপি’র কার্যক্রমকে বাধাগ্রস্থ করার লক্ষে বিগত ২০১৬ সালের ২৭ জুলাই জেলা কমিটির মাধ্যমে একটি আহবায়ক কমিটির ঘোষনা দেয়। পরবর্তীতে ৩০ জুলাই আমাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ন মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহম্মেদ ও কেন্দ্রীয় দফতর কর্তৃক প্রেরিত পৃথক পত্রের মাধ্যমে (বিএনপি/সাধারন/৭৬/৪৪/২০১৬) কামরুল হুদার নেতৃত্বে অবৈধভাবে গঠিত আহবায়ক কমিটি বাতিল এবং কেন্দ্রীয় নির্দেশনা ব্যতিত তাহের পলাশী ও হিরণ মোল্লা নেতৃত্বাধীন পূর্বের কমিটিকে সাংগঠনিক কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এছাড়াও রিজভী আহম্মেদ স্বাক্ষরিত পত্রে জানানো হয়, ইতিপূর্বে গঠনকৃত আহবায়ক কমিটির কোন ধরনের কার্যকারিতা থাকবে না।
তারা দাবী করেন যেহেতু ইতিপূর্বেও একবার কেন্দ্রীয় হস্তক্ষেপের মাধ্যমে পূর্বের আহবায়ক কমিটি বাতিল করা হয়েছে সেহেতু জেলা কমিটি কোনভাবেই কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত ব্যতিত উপজেলার আহবায়ক কমিটি দিতে পারে না তারা আরও দাবী করেন, কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের আলোকে এখনো পূর্বের কমিটিই বহাল থেকে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা এবং বিভিন্ন ইউনিয়নের পূর্বের কমিটি নিয়ে সাংগঠনিক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে।

আর পড়তে পারেন