মঙ্গলবার, ২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চৌদ্দগ্রামে ধানের শীষের কেন্দ্র পরিচালক টিপু সুলতান গ্রেফতার

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
ডিসেম্বর ১৭, ২০১৮
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলায় ধানের শীষ প্রতীকের কেন্দ্র পরিচালক টিপু সুলতানকে গ্রেফতার করেছে।

সোমবার (১৭ ডিসেম্বর) দুপুরে তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

গ্রেফতার হওয়া টিপু সুলতান পৌর এলাকার জয়ন্তীনগর কেন্দ্রের ধানের শীষ প্রতীকের কেন্দ্র পরিচালক ।

এদিকে সোমবার দুপুরে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে কুমিল্লা-১১ ( চৌদ্দগ্রাম) আসনের ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী ডাঃ আব্দুল্লাহ মোঃ তাহের জানান,  কোন মামলা ছাড়াই পুলিশ ধানের শীষ প্রতীকের কেন্দ্র পরিচালক টিপু সুলতানকে গ্রেফতার করেছে। আওয়ামী যুবলীগের হেলমেট বাহিনী কর্তৃক ঐক্যফ্রন্টের সমর্থক ১০ পরিবারকে হুমকি প্রদান করেছে। এক কর্মীকে মারধর ও দুই কর্মীকে আ’লীগ অফিসে আটকে রেখে শারিরীক নির্যাতন করেছে। যুব ও ছাত্রলীগের হেলমেট বাহিনী দিয়ে ধানের শীষ প্রতীকের ব্যানার-পোস্টার পুড়ে ফেলা ও নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হুমকি-ধমকি প্রদর্শন করা হচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে রোববার রাতে শ্রীপুর ইউনিয়নের ভাঙ্গারপুস্করণী কেন্দ্রের ধানের শীষ কমিটির সদস্য মাওলানা দেলোয়ার, মুন্সিরহাট ইউনিয়নের চাঁনপুর গ্রামের বিএনপি প্রজন্ম ৭১ এর কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম মোহন, একই গ্রামের ২০ দলীয় জোট নেতা আবদুস সালাম, সিংরাইশ কেন্দ্র কমিটির পরিচালক কারাবন্দি হাফেজ রবিউল আলমের দুই ছেলে কামরুল, ওবায়েদ, চিওড়া ইউনিয়নের সুজাতপুর গ্রামের ২০ দলীয় জোট নেতা রেজাউল করিম ও রিপনের বাড়িতে গিয়ে যুবলীগের হেলমেট বাহিনী তাদেরকে নির্বাচনের দিন পর্যন্ত এলাকায় না থাকার হুমকি দেয়। সোমবার সকালে ঘোলপাশা ইউনিয়নের ধনুসাড়া বাজারে ধানের শীষ পোস্টার লাগানোর পর মাওলানা মান্নান, জুয়েল, কামাল, সোহাগ ও শাহীনকে যুবলীগ নেতা মাসুমের নেতৃত্বে হেলমেট বাহিনী বাড়ি থেকে ধরে মারধর শেষে আ’লীগ অফিসে আটকে রাখে। দুপুরে নির্বাচনের সময় এলাকায় থাকতে পারবে না এমন স্বীকারোক্তি দিয়ে ছেড়ে দেয়। এর আগে মুন্সিরহাট ইউনিয়নের সিংরাইশ গ্রামের ধানের শীষের কর্মী সবুজকে হেলমেট বাহিনী মারধর করে। পুলিশ বাহিনীর সহায়তায় তারা তান্ডব চালিয়ে যাচ্ছে।

এ বিষয়ে চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহ আল মাহফুজ জানান, টিপু সুলতান ২ মামলার আসামি। তাই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া পুলিশ কাউকে হয়রানি করছে না। চৌদ্দগ্রামে নির্বাচনের প্রচারণায় সুষ্ঠু পরিবেশ বিরাজ করছে। কোথাও কোন অপ্রীতিকর অবস্থার সৃষ্টি হয়নি।

আর পড়তে পারেন