শুক্রবার, ৫ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চান্দিনায় মেয়াদোত্তীর্ণ গুঁড়ো দুধ দিয়ে তৈরি হচ্ছে ভেজাল মিষ্টি

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
আগস্ট ২৮, ২০১৯
news-image

 

সাকিব আল হেলাল।।
সব শ্রেণির মানুষের কাছেই মিষ্টি অধিক প্রিয় একটি খাবার। কিন্তু এই মিষ্টির তৈরি করার প্রধাণ উপকরণ ছানা তৈরিতে গরুর দুধের পরিবর্তে ব্যবহার করা হচ্ছে মেয়াদোত্তীর্ণ ও নষ্ট গুঁড়ো দুধের চাক। অনুমোদনহীন অস্বাস্থ্যকর গুঁড়ো দুধ ব্যবহার হচ্ছে মিষ্টি তৈরিতে। আর সেই মিষ্টি সরবরাহ করা হচ্ছে বিভিন্ন মিষ্টির দোকানে। মিষ্টি তৈরির এসব কারখানার কাজ চলে লোকচক্ষুর অন্তরালে নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে। আর এসব ভেজাল মিষ্টি খেয়ে শিশু, যুবক, বৃদ্ধাসহ সব বয়সের মানুষের স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়ছে দিন দিন।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সংলগ্ন কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার মাধাইয়া বাস স্টেশনের উত্তর পার্শ্বে মাধাইয়া জেনারেল হাসপাতাল পার্শ্বস্থ ছাত্তার মার্কেটের শেষ প্রান্তে গড়ে উঠেছে ওই ভেজাল মিষ্টি তৈরির এই কারখানা। কারখানার ৩’শ গজ সামনে মহাসড়কের দক্ষিণ পাশে ‘মায়ের দোয়া মাতৃভান্ডার’ নামে ভেজাল মিষ্টির পসরা সাজিয়ে বসেছেন কারখানা কর্তৃপক্ষ।

মাতৃভান্ডারের রসমালাইয়ের চমকপ্রদ সাইনবোর্ড টানিয়ে দেশের দূর-দূরান্ত থেকে আসা লোকজন ও উপজেলার বিভিন্ন মিষ্টির দোকানে কুমিল্লা মাতৃভান্ডারের আসল রসমালাই বলে বিক্রি করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে রসমালাই। তৈরি হচ্ছে এই অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে।
মাধাইয়া বাজারের বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী মো. কামরুজ্জামান বলেন, জনস্বাস্থ্যের কথা বিবেচনা করে এসব ভেজাল কারখানার বিরুদ্ধে প্রশাসনের কঠোর ব্যাবস্থা নেওয়া প্রয়োজন।

মাধাইয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. অহিদ উল্লাহ বলেন, মাধাইয়া বাজারে মায়ের দোয়া মাতৃ ভান্ডার নামে কোন কারখানা ব্যাবসা পরিচালনার জন্য আমার ইউনিয়ন পরিষদ থেকে কোন ট্রেড লাইসেন্স নেওয়া হয়নি। এখানে যে ভেজাল মিষ্টির কারখানা রয়েছে আমি তা জানি না।
মিষ্টি কারখানার মালিক মো. আব্দুল জলিল বলেন, আমি এখানে মিষ্টির কারখানা করেছি অনেক দিন হয়েছে। বেশ নামকাম রয়েছে। আমার কোন কাগজপত্র লাগে না। আমি কাগজ দিয়ে কি করব?

এ ব্যাপারে চান্দিনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস.এম.জাকারিয়া বলেন, এটা আমার জানা ছিল না। জানতে পেরেছি যখন খুব শীঘ্রই প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহণ করবো।

আর পড়তে পারেন