সোমবার, ২৯শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চাঁদপুরে চাষ হচ্ছে দুই রঙের ইতালিয়ান চেরি টমেটো

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ১১, ২০২১
news-image

 

মাসুদ হোসেন, চাঁদপুরঃ

উচ্চফলনশীল হলুদ ও লাল রঙের ইতালি চেরি টমেটো। রঙের পাশাপাশি এর আকৃতি ও রোগ প্রতিরোধক্ষমতাও অন্য টমেটোর চেয়ে বেশি। আঙুরের মতো থোকায় থোকায় ঝুলে থাকা চেরি টমেটো এখন চাষ হচ্ছে চাঁদপুরেই।

চাঁদপুর সদর উপজেলার শাহতলীতে পরিত্যক্ত সেই ইটভাটায় ফ্রুটস ভ্যালী এগ্রো’র নতুন আকর্ষণ এটি। পরিত্যক্ত ইটভাটার মালিক মো. হেলাল উদ্দিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বলেন, কৃষকদের ভাগ্য বদলে “ম্যাগলিয়া রোসা” আঙ্গুরের মত থোকায় থোকায় নান্দনিকভাবে ঝুলে থাকা অসাধারণ একটি সবজী চেরি টমেটো। চাঁদপুরের “ফ্রুট্স ভ্যালী এগ্রো’র নতুন আকর্ষন। আনকমন ভ্যারাইটির দুর্দান্ত স্বাদযুক্ত ইতালিয়ান চেরি টমেটো “ম্যাগলিয়া রোসা”। রূপে-গুনে আর স্বাদে অতুলনীয়। সচরাচর চেরি টমেটো গোল হলেও এটি উন্নত লম্বা জাত। সারা বিশ্বেই বেশি পুষ্টিগুণের জন্যে এ জাতটি জনপ্রিয়। স্বাদ এতই চমৎকার যে ফলের মত কাচা খাওয়া যায়। বাংলাদেশে এ প্রথম ফ্রুটস ভ্যালীতেই হলুদ ও লাল রংয়ের ম্যাগলিয়া রোসার বাম্পার ফলন হয়েছে। এটি শীত প্রধান দেশের শস্য হলেও এদেশের আবহাওয়ায় এত ভাল ফলন আশা করিনি।
ফ্রুট্স ভ্যালীর এ সাফল্যে অচিরেই সারা দেশে ছড়িযে যাবে চেরির নতুন জাত “ম্যাগলিয়া রোসা”। যা কৃষকদের ভাগ্য বদলে দিতে পারে। অতি উচ্চ ফলনশীলতা, দীর্ঘ্য সময় ধরে ফলন, কম পচনশীলতা ও বাজারে উচ্চ চাহিদার কারণে চেরি টমেটো চাষ নতুন খামারীদের জন্য হতে অপার সম্ভাবনার উৎস। একেবারেই অল্প বিনিয়োগে অনেক বেশী মুনাফা
ফ্রুট্স ভ্যালীতে উচ্চ ফলনশীল ম্যাগলিয়া রোসার পরীক্ষামূলক চাষ হয়েছে সম্পূর্ণ অর্গানিক পদ্ধতিতে।

সারা বিশ্বেই চেরি টমেটো সবচেয়ে দামী সবজী। খোজ নিয়ে দেখলাম, ঢাকার সুপারশপগুলোতে আমদানি করা ম্যাগলিয়া রোসা চেরি টমেটো বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৯শ’ টাকা।
এ বিষয়ে চাঁদপুর সদর উপজেলা উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামান দৈনিক আজকের কুমিল্লাকে বলেন, দৃষ্টিনন্দন আন কমন ভ্যারাইটির দুর্দান্ত স্বাদযুক্ত ইতালিয়ান চেরি টমেটো “ম্যাগলিয়া রোসা” এই জাতটি পুষ্টিগুণের জন্যে সারা বিশ্বেই জনপ্রিয়। বাংলাদেশে এ প্রথম ফ্রুট্স ভ্যালীতে আমার তত্ত্বাবধাণে হলুদ ও লাল রংয়ের এই দুর্লভ জাতের চেরি টমেটো গুলোর সফল চাষাবাদ হয়েছে। এটি শীত প্রধান দেশের জাত হলেও ফ্রুটস ভ্যালিতে বাম্পার ফলন হয়েছে। বর্তমানে উদ্যোক্তা হেলাল উদ্দিন এই টমেটো বিক্রি করছেন কেজি প্রতি ৩শ’ টাকায়।
ফ্রুটস ভ্যালীর এ সাফল্য শীঘ্রই সারা দেশে ছড়িযে যাবে। সারা দেশের তরুণ কৃষি উদ্যোক্তারা চেরি টমেটো চাষে উদ্যোগী হবে। কৃষকরা বিদ্যমান কৃষি ফসল আবাদ থেকে বেরিয়ে এসে নতুন আধুনিক ও উচ্চ মূল্যের এই চেরি টমেটো চাষাবাদে আগ্রহী হবে। কৃষি হবে শিল্প, সুযোগ সৃষ্টি হবে নতুন শিক্ষিত বেকার তরুণ-তরুণীদের কর্মসংস্থানের এমনটাই মনে করছি। কারণ অতি উচ্চ ফলনশীল, দীর্ঘ সময় ধরে ফলন, কম পচনশীলতা ও বাজারে উচ্চ চাহিদার কারণে চেরি টমেটো চাষ নতুন খামারীদের জন্য হতে পারে সম্ভাবনার উৎস। একেবারেই অল্প বিনিয়োগে অনেক বেশী মুনাফা।

উল্লেখ্য, গবেষকদের মতে এই টমেটো দেশে উদ্ভাবিত চেরি টমেটোর মধ্যে এটিই সবচেয়ে বেশি ফলনশীল। আকারে ও গুণমানে অনন্য। এই জাতের টমেটোর রং, আকৃতি ও রোগ প্রতিরোধক্ষমতা অন্য টমেটোর চেয়ে বেশি। অন্য যেকোনো জাতের টমেটোর চেয়ে এই টমেটোতে বেশি পরিমাণে লাইকোপিন ও ফ্ল্যাভোনয়েড এন্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। লাইকোপিন ক্যানসার ও হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়। আর ফ্ল্যাভোনয়েড ডেঙ্গু প্রতিরোধে কার্যকরী।

আর পড়তে পারেন