সোমবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চাঁদপুরে কঠোর অবস্থানে প্রশাসন : প্রয়োজন ছাড়া রিকশাও চলাচলে বাঁধা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুলাই ২৬, ২০২১
news-image

মাসুদ হোসেন, চাঁদপুরঃ

চাঁদপুর জেলায় করোনা পরিস্থিতির ভয়াবহ রুপ নিচ্ছে। প্রতিদিনই করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের মিছিল দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে। এর ফলে করোনা পরিস্তিতি অবনতি হওয়ায় আরও কঠোর অবস্থানে যেতে হয়েছে প্রশাসনকে। তাই আজ সোমবার থেকে চলমান বিধিনিষেধের বাইরে থাকা রিকশাও চলাচল করতে দেয়া হচ্ছে না। নির্দেশ অমান্য করলে জরিমানার পাশাপাশি প্রয়োজনে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হবে বলে জানানো হয়েছে।

সোমবার (২৬ জুলাই) “সরকার ঘোষিত লকডাউন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসক অঞ্জনাখান মজলিস এর নির্দেশনায় জেলার আট উপজেলায় রয়েছে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট। সেই সাথে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন সেনাবাহিনীর সদস্যরাও। এদিকে চাঁদপুর জেলা পুলিশ সুপার মোঃ মিলন মাহমুদ বিপিএম-বার এর নির্দেশনায় চাঁদপুর জেলার বিভিন্ন স্থানে ২৮টি টহল টিম ও ৩০টি চেকপোস্ট বসানোর পাশাপাশি বিশেষ টহল পরিচালনা করা হচ্ছে। প্রতিটি চেকপোস্টের পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ মোড়, বাজার ও সড়কে অবস্থান করে তৎপরতার সহিত দায়িত্ব পালন করছে চাঁদপুর জেলা পুলিশ।

এর আগে রোববার (২৫ জুলাই) জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির ভার্চুয়াল সভায় লকডাউন বাস্তবায়নে এসব কঠিন সিদ্ধান্তের কথা জানান জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ।

তিনি বলেন, ‘জেলায় করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসছে না। দিন দিন শনাক্তের হার বেড়েই চলছে। শনাক্ত ও মৃত্যুর হার বাড়লেও বেশির ভাগ মানুষ অসচেতন। অসচেতনতা এখন বেশির ভাগই মানুষের মধ্যে পরিলক্ষিত হচ্ছে। কোনও কারণ ছাড়াই ঘর থেকে বেরিয়ে রাস্তায় আসছে। রিকশা চলাচল করার সুযোগে এক রিকশায় ৩-৪ জন করে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এ অবস্থা কোনোভাবেই চলতে দেওয়া যায় না।’

জেলা কারাগারের জেলারের উদ্দেশ্যে ডিসি বলেন, ‘লকডাউনে যারা গ্রেফতার হবে তাদেরকে আলাদা সেলে রাখবেন। যাতে তাদের মাধ্যমে অন্যরা সংক্রমিত না হয়। করোনার ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ পরিস্থিতিতে এমন কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়া ছাড়া আমাদের উপায় ছিল না।’

সভায় আরও বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র মো.জিল্লুর রহমান জুয়েল, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপারেশন ও অপরাধ) সুদীপ্ত রায়, চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. হাবিব উল করিম, সিভিল সার্জন ডা. মো. সাখাওয়াত উল্যাহ, ডিডি এনএসআই শেখ আরমান আহমেদ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটোয়ারী দুলাল, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার এম এ ওয়াদুদ, ফরিদগঞ্জ পৌরসভার মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটোয়ারী, মতলব উত্তর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুস ও মতলব পৌরসভার মেয়র আওলাদ হোসেন লিটন প্রমুখ।

জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ৫৯০ টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে ১৮০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নতুন করে মৃত্যু হয়েছে আরো ৪ জন।

আর পড়তে পারেন