সোমবার, ৮ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কৌশলী রাজনীতিতে সফল সাক্কু

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ১৪, ২০১৭
news-image

ইমতিয়াজ আহমেদ জিতুঃ
অনেক জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে শপথ নিলেন সদ্য নির্বাচিত কুসিক মেয়র মনিরুল হক সাক্কু। এ নিয়ে টানা দুবার কুসিক মেয়রের আসন অলংকিত করতে যাচ্ছেন কৌশলী এ রাজনীতিবিদ। তাঁর মরহুম ভাই সাবেক মন্ত্রী লে.কর্ণেল (অবঃ) আকবর হোসেন এমপির চেনানো পথ ধরে এগিয়ে যাওয়া সাক্কু কুমিল্লার রাজনীতিতে বরাবরের মতো এবারও সফল।
৩০ মার্চ সিটি নির্বাচনে অনেকেই ভেবেছিলেন এবার হয়তো সাক্কু আর সফল হবে না। কুমিল্লা মহানগরের দুর্দশা, বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে মামলা, দলের সাংগাঠনিক অবস্থা দুর্বল হওয়ায় সাক্কুর অবস্থা নড়বড়ে ছিল। এছাড়া স্মরণকালের সবচেয়ে বেশি আ’লীগের কেন্দ্রীয় নেতাকর্মী আ’লীগ দলীয় প্রার্থী আনজুম সুলতানা সীমার পক্ষে মাঠে ছিল। যদিও আ’লীগের নেতাকর্মীরা কুমিল্লায় এসে ফটোসেশন , রসমালাই আর খাদি কাপড়ের উপহার নিয়েই ব্যস্ত ছিল।
কিন্তু সাক্কু বলে কথা। যেখানে সারা দেশের বিএনপির নেতাকর্মীরা মামলা-গ্রেফতার আর কারাবরণ নিয়েই ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে গত ৮ বছর ধরে। আর দেশের বিভিন্ন সিটি কর্পোরেশনে বিএনপিপন্থী মেয়রদের তো আরো নাজেহাল অবস্থা। মামলা-গ্রেফতার আর কারাবরণেই তাদের দিন অতিবাহিত হচ্ছে।
কিন্তু সাক্কু সেক্ষেত্রে ব্যতিক্রম। প্রথমবার মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন আ’লীগের অর্ন্তকোন্দলের সুযোগ আর আ’লীগের এক গ্রুপের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায়। আর ৫ বছর মেয়রের পদে বেশ স্বাচ্ছন্দেই কাটিয়েছেন। কোন প্রকার মামলা হয়নি তাঁর বিরুদ্ধে। সরকার দলীয় এমপির সাথে ছিল তার সখ্যতা। ফলে কোন রকম সমস্যাই হয়নি তার। যদিও সাক্কু সব সময় বলে আসছেন, কুমিল্লার উন্নয়নের স্বার্থে এমপি বাহারের সাথে তার সখ্যতা। যাহোক এ নির্বাচনেও সাক্কু সফল। আ’লীগের একটি গ্রুপ এবারও সাক্কুর পক্ষে কাজ করেছে। নৌকার ব্যাজ বুকে লাগিয়ে সাক্কুর জন্য মাঠে ছিল আ’লীগের একটি গ্রুপ। ফলে সহজেই বিজয়ী হয়ে দ্বিতীয় বারের মত কুসিক মেয়র নির্বাচিত হন সাক্কু।
বিজয়ী হওয়ার পর তার বিরুদ্ধে দায়ের করা পূর্বের দুদকের দুটি মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়। সেই থেকে বিভিন্ন গুঞ্জন ছড়াতে থাকে দেশজুড়ে। সাক্কু গ্রেফতার হচ্ছেন, শপথ নিতে পারবেন না , হয়তো এই ৫ বছর কারাবরণ করেই কাটাতে হবে। গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পর থেকে সাক্কুও আতœগোপনে চলে যান। কিন্তু শেষ খেলাটা সঠিকভাবেই খেলেছেন মনিরুল হক সাক্কু। হঠাৎ আতœগোপন থেকে বের হয়ে আদালতে গেলেন। জামিনও পেলেন। অবশেষে ১১ মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে মেয়র হিসেবে শপথ বাক্য পাঠ করলেন। আবার শপথ শেষে পা ছুঁয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দোয়াও নিলেন। পা ছুঁয়ে দোয়া নেওয়ার ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে ইতিমধ্যে। গত দুদিন ধরে এ ছবি নিয়েই আলোচনা হচ্ছে চারদিকে। ফেসবুকে এটা নিয়ে চলছে বিরূপ মন্তব্য ।

জানা যায়, সাক্কু পুনরায় মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর দলীয় নেত্রী বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সাথে দেখা করে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। এদিকে শপথ নেওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পা ছুঁয়ে সালাম করে দোয়া নিলেন। এটাও তার রাজনীতি কৌশলের একটি অংশ বলে বিভিন্ন জন বলছেন। বিভিন্ন সূত্র বলছে, আগামী ৫ বছর ক্ষমতায় থাকার জন্য তিনি এ দোয়া চেয়েছেন । এতে তিনি কতটা সফল হন তা ভবিষ্যতই বলে দিবে।
যে যাই বলুক, সাক্কু সফল। কোন কিছুই সাক্কুকে আটকাতে পারেনি। বিভিন্ন সূত্রমতে, কুমিল্লা মহানগর আ’লীগের একটি অংশের সাথে সাক্কুর মধূর সর্ম্পক এর পাশাপাশি কেন্দ্রীয় আ’লীগের কিছু নেতৃবৃন্দের সাথে সাক্কুর প্রায় সমঝোতা হয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে । যদিও এ খবরের সত্যতা মিলেনি। তবে সাক্কুর রাজনীতির কাছে আ’লীগের রাজনীতি যে পেরে উঠছে না, তা প্রমাণ হচ্ছে বার বার। এখন দেখার বিষয়, কিভাবে সাক্কু ৫ বছর আবার ক্ষমতায় বসে কাটান। এবার কোন কৌশল অবলম্বন করেন।

আর পড়তে পারেন