মঙ্গলবার, ১৩ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কোরবানির হাট কাঁপাবে কুমিল্লার নবাব

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
আগস্ট ১৬, ২০১৮
news-image

 

সেলিম সজীবঃ

কুমিল্লা বিগত ৩ বছরে দেশের অন্যতম বড় বড় গরু পালন করা হয়েছে। এ বছরেও জেলায় তাক লাগিয়েছে নবাব নামের গরুটি কুমিল্লা বিবির বাজারের রিমন হোসেনের।

এবার কোরবানির হাটের জন্য তিনি পাঁচটি গরু পালন করেছেন। শখ করে তার সবচেয়ে বড় গরুটির নাম রেখেছেন নবাব। ৬ ফুট উচ্চতা ও ২৫ মণ ওজনের নবাব দেখতে প্রতিদিনই ভিড় করছে সাধারন মানুষ। সম্পূর্ন দেশীয় খাবার খাইয়ে লালন পালন করা হয়েছে নবাব।

খাবার তালিকায় প্রতিদিন কাঁচা ঘাস,গমের ভূষি,মিষ্টি লাউ,পেয়ারা,আপেল,কলা,ধান ও গম ভাঙ্গা,আখের গুড়, আঙ্গুর, মালটা, চিড়া, ছোলা পরিবেশন করা হয়। গত বছর রিমন হোসেন তারই গ্রাম থেকে দুই বয়সী হলিস্টিন ফ্রিজিয়ান জাতের ষাড়টি কিনেছিলেন।

২৫ মণ ওজনের এ ষাঁড়টিকে ঠান্ডা রাখার জন্য ব্যবহার করা হয় পাচঁটি ফ্যান। পরিষ্কার পরিছন্ন রাখতে ষাড়টিকে রাতে দিনে ১০ বার গোসল করানো হয়। আর এসকল কাজ করার জন্য রিমন হোসেন এক বছর আগেই দুই জন সার্বক্ষনিক শ্রমিক নিয়োগ করেছেন।

রিমন হোসেন দৈনিক আজকের কুমিল্লাকে জানান, শখের বসেই তিনি নবাব লালন পালন করছেন। তবে,ন্যায্য দাম পেলে তিনি ষাঁড়টিকে বিক্রি করে দিবেন। প্রথম ৬ মাস নবাব প্রতিদিন ১২০০ থেকে ১৫০০ টাকার খাবার খাওয়ানো হয়েছে। পরের ৬ মাস প্রতিদিন প্রায় ১৫০০ টাকার খাবার খাওয়ানো হয়েছে।

তিনি ছাড়াও নবাব দেখাভাল করার জন্য দুই শ্রমিক নিয়োগ করেছেন। এতে করে এক বছরে নবাব পেছনে প্রায় ৩ থেকে ৪ লাখ টাকা খরচ হয়েছে। দূর দূরান্ত থেকে অনেকেই ষাঁড়টি কিনতে আসছেন। এখন পর্যন্ত সাড়ে ৬ লাখ টাকা দাম বলেছেন ক্রেতারা। তবে তিনি ৮ লাখ টাকা দাম পেলে ষাঁড়টি বিক্রি করবেন।

বিগত বছরগুলোতে কুমিল্লা খামারিরা দেশের সবচেয়ে বড় গরু পালন করে আলোচনায় ছিল। এ বছরেও রিমন হোসেনের নবাব নামের ষাঁড়টি কুমিল্লায় তাক লাগিয়েছে। এ ষাঁড়টি লালন পালনে কোন ধরনের ওষুধ ও রাসায়নিক উপাদান ব্যবহার করা হয়নি। নিয়মিত ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে।

আর পড়তে পারেন