মঙ্গলবার, ১৩ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কুমিল্লা সি ডি প্যাথ এন্ড হসপিটালে ৪০ টাকার মূল্যের ঔষধের বিল ২ হাজার টাকা !

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
আগস্ট ২১, ২০১৭
news-image

ইমতিয়াজ আহমেদ জিতুঃ
কুমিল্লা নগরীতে ব্যাঙের ছাতার মত গড়ে উঠেছে প্রাইভেট হাসপাতাল। বড় বড় চিকিৎসকের নেমপ্লেট টানিয়ে দূর-দূরান্তের রোগিদের আকৃষ্ট করছে এসব হাসপাতাল। যতটা না চিকিৎসা সেবা, তার চেয়ে অনেকগুণ বেশি হয়রানি হচ্ছে রোগি ও তার পরিবার। এসব হাসপাতালগুলোর তদারকি করা সংশ্লিষ্ট সরকারি দফতরের যথাযথ তদারকির অভাবে কুমিল্লার প্রাইভেট স্বাস্থ্যখাতে অরাজকতা চলছে। সিট ভাড়া, অপারেশন , ঔষধের মূল্যের বাড়তি ভূতুড়ে বিল বানিয়ে ধরিয়ে দেয়া হচ্ছে রোগির পরিবারের হাতে। এ হয়রানির শিকার হচ্ছে দূর-দূরান্ত থেকে আসা গরীব-অসহায় মানুষেরা।
সম্প্রতি ৬ আগষ্ট কিডনিজনিত সমস্যা নিয়ে চাদঁপুর জেলার শাহরাস্তি উপজেলার রঘুরামপুর গ্রামের বাসিন্দা বাহার আলী কুমিল্লা নগরীর বাদুরতলা এলাকার সি ডি প্যাথ এন্ড হসপিটালে চিকিৎসা নিতে আসে। এই রোগির পরিবারের কাছ থেকে ৪০ টাকা মূল্যের ১০টি ট্যাবলেটের মূল্য রাখা হয় ২ হাজার টাকা।
রোগির ভাগিনা মোতালেব মিয়া অভিযোগ করে বলেন, হাসপাতালে মামাকে ভর্তি করানোর পর চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন নিয়ে ওই হাসপাতালের ফার্মেসিতে গেলে ১০টি সোডিয়াম ক্লোরাইড (ঘধঈষ) ট্যাবলেটের মূল্য ২ হাজার টাকা লিখে বিল ধরিয়ে দেওয়া হয় আমাদের হাতে।
পরে আমরা নগরীর অন্য ফার্মেসীতে খবর নিয়ে জানতে পারি, ওই ১০টি ট্যাবলেটের প্রকৃত মূল্য ৪০ টাকা। এরপর আমাদের সাথে ঔষধের মূল্য নিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কথা কাটাকাটি হয়। চিকিৎসাসেবায় হয়রানি দেখে আমরা অসুস্থ মামাকে নিয়ে নগরীর অন্য আরেকটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে ৭ আগষ্ট সেখানে মামার মৃত্যু হয়।
এ বিষয়ে রবিবার সকালে সি ডি প্যাথ এন্ড হসপিটাল কর্তৃপক্ষের মুঠোফোনে কল দিলে তারা জানান, আমাদের ভুল হয়েছে। রোগির পরিবারের সাথে সমঝোতা হয়েছে। তাদেরকে বাড়তি টাকা ফেরত দেওয়া হয়েছে।
এ বিষয়ে কুমিল্লার সিভিল সার্জন ডাঃ মুজিবুর রহমান জানান, এ বিষয়ে রোগির পরিবার আমাদের কাছে অভিযোগ করলে আমরা অবশ্যই বিষয়টি তদন্ত করে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো।
কুমিল্লার সচেতন মানুষ মনে করেন, রোগির পরিবারের অসহায়ত্বের সুযোগ নিয়ে এমন গলা কাটা বিল করছে কুমিল্লার বেশির ভাগ প্রাইভেট হাসপাতালগুলো। এমন হাসপাতালগুলোর দিকে কঠোর নজরদারি বাড়ানো উচিত স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের।

আর পড়তে পারেন