মঙ্গলবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কুমিল্লায় ৫ পাসপোর্ট দালালকে সাজা ও জরিমানা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৯
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টার:
কুমিল্লা পাসপোর্ট অফিসে দিন দিন দালালদের দৌরাত্ম বৃদ্ধি পেয়েছে। এর পাশাপাশি হয়রানির শিকারও হচ্ছেন গ্রাহকরা। গতকাল বুধবার দুপুরে কুমিল্লা জেলা প্রশাসকের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে র‌্যাব ১১ এর সহযোগিতায় পাসপোর্ট অফিসের আশেপাশের ভবন ও নগরীর রেসকোর্স এলাকায় ৭২ টি পাসপোর্ট সহ ৫ জনকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। চার জনকে ৫০ হাজার টাকা করে ও একজনকে ১লক্ষ টাকা সর্বমোট ৩ লক্ষ টাকা জরিমানা করেন তাদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে দালাল চক্রের দৌরাত্ম্য, ঘুষ, দুর্নীতি, অনিয়মসহ নানা অপরাধের শিকার হচ্ছেন পাসপোর্ট আবেদনকারীরা। ভাসমান দালাল, কর্তব্যরত আনসার সদস্য, কিছু অসাধু পুলিশ সদস্য, ভুয়া সাংবাদিক, রাজনৈতিক নেতা এবং পাসপোর্ট অফিসের কিছু অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারী মিলে গড়ে তুলেছেন সংঘবদ্ধ সিন্ডিকেট। আর এ সিন্ডিকেটের খপ্পরে পড়ে হয়রানির শিকার হচ্ছেন আবেদনকারীরা। বিঘিœত হচ্ছে নাগরিক সেবা। এখানে পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে এসে ভোগান্তি সহ্য করা সাধারণ বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। দালালরা ব্যাংকে টাকা জমা দেয়ার লাইনে দাঁড়ানো, পাসপোর্ট প্রার্থীদের ফরম পূরণ, ফরম সত্যায়ন, ব্যাংকে ফি জমা, কাগজপত্র ঘাটতি, ভুল বা ভুয়া কাগজপত্র, এমনকি ২ হাজার থেকে ৬ হাজার টাকায় ভেরিফিকেশন ছাড়া অতি দ্রুত পাসপোর্ট তৈরি করে দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে কৌশলে তাদের নিকট হতে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়। আবার কখনো কখনো অনেক হয়রানির পর পাসপোর্ট প্রদান এবং অনেক সময় পাসপোর্ট প্রদান না করেই প্রতারণা করে আসছে এরা।

এই ঘটনার অভিযোগের ভিত্তিতে কুমিল্লা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের দালাল চক্রের বিরুদ্ধে বুধবার দুপুরে আবারো র‌্যাব ১১ সিপিসি ২ এর ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি কমান্ডার প্রণব কুমার ও জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট রুবাইয়া খানম এর নেতৃত্বে অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযানে ৫ দালাল আটক ৩ লক্ষ টাকা জরিমানা ও বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করা হয়। এছাড়াও এসময় দালাদের কাছ থেকে ৭২ পাসপোর্ট, একাধিক নকল সীল ও জাল সার্টিফিকেট সহ নকল সনদপত্র উদ্ধার ও জব্দ করা হয়। এছাড়াও মালিক পালিয়ে যাওয়ায় সেলিম এয়ার ট্রাভেলস নামের একটি প্রতিষ্ঠানকে সীলগালা করা হয় এসময়। র‌্যাব ও প্রশাসনের ঝটিকা অভিযান শুরু হলে উপস্থিতি টের পেয়ে অনেকেই পালিয়ে যায়। নগীরর রেসকোর্স পুরাতন পাসপোর্ট অফিস সংলগ্ন এলাকা থেকে আটককৃত দালালরা হলো মোঃ সেলিম সুজন তাকে ১ মাস জেল ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, মোঃ মনির হোসেনকে ১ মাসের জেল ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, মোঃ আবু তাহের কে ১৫ দিনের জেল ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, আবু বক্কর সিদ্দিক (শিল্পি) কে ১৫ দিনের জেল ১লাখ টাকা জরিমানা এবং নজরুল ইসলাম কে ১৫ দিনের জেল ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জেল ও জরিমানা রায় প্রদান করেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট রুবাইয়া খানম।

কুমিল্লা র‌্যাব ১১ সিপিসি ২ এর ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি কমান্ডার সহকারী পুলিশ সুপার প্রণব কুমার বলেন, যতক্ষণ পর্যন্ত কুমিল্লা পাসপোর্ট অফিস সম্পূর্ণ দালাল মুক্ত না হবে র‌্যাবের এই অভিযান নিয়মিত অব্যাহত থাকবে। কুমিল্লা পাসপোর্ট অফিস কে দালাল ও হয়রানি মুক্ত করেই ছাড়বো।

কুমিল্লার র‌্যাব ১১ সিপিসি -২ এর ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি কমান্ডার প্রণব কুমার বলেন, দীর্ঘদিন ধরে র‌্যাবের গোয়েন্দাদের নজরদারিতে ছিল কুমিল্লার পাসপোর্ট অফিসের স্থানীয় দালালদের এই চক্র।

উল্লেখ্য-গত ২৯ আগষ্ট হাতেনাতে দালাল ধরতে কুমিল্লার আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের পাশের দুইটি ভবন কেআলী মার্কেট ও ইউসুফ ম্যানশনে র‌্যাব এবং জেলা প্রশাসন যৌথ ঝটিকা অভিযান পরিচালনা করেছে। নোয়াপাড়া এলাকার ওই মার্কেটগুলোতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে তিন শতাধিক পাসপোর্ট জব্দসহ ৮ দালালকে আটকের পর জেল জরিমানা প্রদান করা হয়েছে। আটককৃত দালালরা হলো, জাকির হোসাইন (২৮), জহুরুল হক (৩৭), আলমগীর হোসাইন (৬৫), শোজিব হোসাইন (২৬), হুমায়ন কবির (৪৫), সালাউদ্দিন (৩২), আবু মূসা (৫৫) এবং জামাল মিয়া (৬৫)।

আর পড়তে পারেন