মঙ্গলবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কুমিল্লায় সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় হয়রানীর প্রতিবাদে মানববন্ধন

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ১৩, ২০২০
news-image

 

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলা প্রেসক্লাবের সদস্য তোফায়েল মাহমুদ ভূইয়া বাহারের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানীর প্রতিবাদে মানবন্ধন করেছে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা প্রেসক্লাবের সদস্যরা।

বুধবার (১৩ মে) সকালে ঢাকা- চট্রগ্রাম মহাসড়কের পদুয়ার বাজার বিশ্বরোডে সামাজিক দুরুত্ব বজায় রেখে সড়কের পাশে দাড়িঁয়ে মামলা প্রত্যাহারের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করে কর্মরত সাংবাদিকরা।

প্রতিবাদ সমাবেশে সাংবাদিকরা বলেন, তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া বাহারের বিরুদ্ধে তার নিজ গ্রাম বড় সাঙ্গিশ্বরের মোশারফ হোসেন নামে এক ব্যাক্তি ০১/০৫/২০২০ইং তারিখে মিথ্যা মামলা করে ,মামলা নং ১ এই মামলায় ১২ জনকে আসামী করেছেন।

এসময় প্রেসক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা বীরমুক্তিযোদ্ধা সালাহ্উদ্দিন আহম্মদ বলেন, সাংবাদিক বাহারের নামে যে মিথ্যা মামলা দায়ের করে হয়রানী করছে তা অচিরেই প্রত্যাহারের দাবী জানাই।

ক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক সমাজকন্ঠ পত্রিকার সম্পাদক জসিম উদ্দিন চাষী বলেন, অতিদ্রুত সময়ে তদন্ত করে সত্যতা যাচাই করে বাহারকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়ার আহবান করছি পুলিশ প্রশাসনের নিকট।

দৈনিক বাংলাদেশ সময় কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধি ও ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব কবির, বলেন, সাংবাদিক একজন মিডিয়া কর্মী হিসেবে ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকতেই পারে, তাই বলে তাকে মামলার আসামী করা হবে, এটা মোটেও ঠিক নয়।

ডেইলি বাংলাদেশ পোস্ট পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি ও ক্লাবের সহ সভাপতি খন্দকার দেলোয়ার হোসেন বলেন, সারাদেশে সাংবাদিকদের হয়রানী করা ও বাহারের বিরুদ্ধে যে মিথ্যা মামলা হয়েছে তা প্রত্যারের দাবী জানাচ্ছি।

দৈনিক আজকের কুমিল্লার সদর দক্ষিণ প্রতিনিধি ও ক্লাবের সহ সাধারণ সম্পাদক রকিবুল হাসান রকি বলেন, সাংবাদিক বাহারের নামে কেন মামলা করা হল ? তাহা প্রশাসনসহ কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নজরে এনে সাংবাদিক বাহারকে অব্যহতি দিতে জোরদাবী জানাচ্ছি।

দৈনিক সকালের সময় ও প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক এইচ এম মহিউদ্দিন বলেন, তোফালে মাহমুদ বাহার নিজ গ্রামের হতে পারে, তাই বলে অন্তকোন্দল নিয়ে এই মামলায় সাংবাদিক বাহারকে জড়িয়ে দেয়া মোটেও ঠিক নয়, বিষয়টি প্রশাসন সঠিক তদন্তের মাধ্যমে তাকে অব্যাহতির দাবী জানাচ্ছি।

দৈনিক ময়নামতি পত্রিকার লালমাই প্রতিনিধি খান মোহাম্মদ রুবেল হোসাইন বলেন, বাহার ভাইয়ের নামে এই হরানীমূলক মামলা প্রত্যারের দাবী জানাই।

উল্লেখ্য, গত ২৭ এপ্রিল রাতে নুরুল আমিনের চা ও মুদি দোকানে স্থানীয় চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির মজুমদার গ্রামবাসীকে নিয়ে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করার জন্য আলোচনা সভা করেন। এসময় চেয়ারম্যান গ্রামবাসীর কাছে বিচার দেন, তার বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক অপপ্রচার করেন, একই গ্রামের বর্তমান মামলার বাদী মোশারফের ভাতিজা এম এ মজুমদার প্রকাশ মোহাম্মদ আলী মিঠু। তখন মোশারফ গংরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে এসে চেয়ারম্যানের উপর হামলা চালায়। হামলায় উভয় গ্রুপের ৯ জন আহত হয়। এতে সাংবাদিক বাহারকে ৬ নং আসামি করে ১২ জনের বিরুদ্ধে নাঙ্গলকোট থানায় মামলা দায়ের করেন।

আর পড়তে পারেন