সোমবার, ২৯শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইমনকে পিপিএম পদক পড়িয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জানুয়ারি ৮, ২০১৮
news-image

 

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পিপিএম পদক পড়িয়ে দিলেন কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানভীর সালেহীন ইমনকে ।

দক্ষতা, সততা, সাহসিকতা ও পেশাদারীত্বের স্বীকৃতি স্বরূপ কুমিল্লা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানভীর সালেহীন ইমনকে রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক প্রদান করা হয়।

সোমবার পুলিশ সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঐতিহাসিক রাজারবাগ প্যারেড গ্রাউন্ডে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কুচকাওয়াজ পরিদর্শন শেষে গত বছর বীরত্ব ও কৃতিত্বপূর্ণ কর্মের স্বীকৃতি স্বরূপ ১৮২ জন পুলিশ সদস্যকে বিপিএম, পিপিএম পদক প্রদান করেন। চৌকস ও তরুণ পুলিশ কর্মকর্তা ইমন কুমিল্লা সদর সার্কেলে ২০১৬ সালে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদান করে ২৮ টি আগ্নেয়াস্ত্র, ৯৫৫১ কেজি গাজা, ২ লক্ষ ৫১ হাজার পিস ইয়াবা, মাদক পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত ৩২ টি গাড়ি উদ্ধার সহ ৯৩০ টি মাদক মামলায় ১১৫৭ জন মাদক ব্যবসায়ী আটক, ৫ টি ডাকাতি মামলা, আলোচিত ৪০ লক্ষ টাকা ছিনতাই, ০২ টি শিশু ধর্ষণ সহ সকল মামলার রহস্য উদঘাটন ও আসামী গ্রেফতারে দক্ষতার সাথে তদারকি করেন। সাবেক জাতীয় বিতার্কিক হিসেবে জেলা পুলিশ কুমিল্লার আয়োজনে অন্তঃজেলা মাদক ইভটিজিং ও জঙ্গিবাদ বিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতার সমন্বয়ক হিসেবে দুই সহস্রাধিক শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে ৭১ টি বিতর্ক অনুষ্ঠান সম্পন্ন করায় তা সকলের কাছে প্রশংসিত হয়। মহান মুক্তিযুদ্ধে কুমিল্লা জেলা পুলিশের অবদান নিয়ে পুলিশ সুপার মোঃ শাহ আবিদ হোসেন বিপিএম এর নির্দেশনায় মামুন সিদ্দিকী রচিত গবেষণা গ্রন্থ ১৯৭১ : কুমিল্লা পুলিশ লাইন্সের সমন্বয়কের দায়িত্ব তিনি সফলভাবে সম্পন্ন করেন। গতবছর ভালো কাজের স্বীকৃতিস্বরুপ তাকে আইজিপি ব্যাজ প্রদান করা হয়। একজন সুবক্তা হিসেবে তিনি ২০১৬ পুলিশ সপ্তাহে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারদের পক্ষে কল্যাণ সভায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সমীপে বক্তব্য উপস্থাপন করেন।

পদক প্রাপ্তির প্রতিক্রিয়ায় তিনি জানান, ভালো কাজের স্বীকৃতি কর্মস্পৃহাকে উদ্দীপ্ত ও অনুপ্রেরণার মাধ্যমে ব্যক্তিকে অধিক দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের দায়বদ্ধতা সৃষ্টি করে। আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় কুমিল্লার সকল স্তরের মানুষের সহযোগিতার জন্যে এই সাফল্যের অংশীদার সবাই। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিলেন ” স্বাধীন বাংলাদেশের পুলিশ হবে জনগণের পুলিশ যাদের নিয়ে গর্ব করা যাবে” সেই চেতনাকে ধারন করে সেবার সুমহান ব্রতে জনগণের আস্থা, ভালোবাসায় সততা ও দেশপ্রেমে অবিচল থেকে দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে কাজ করতে চাই।

আর পড়তে পারেন