মঙ্গলবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কুবিতে ফের ছাত্রলীগের হাতে সাংবাদিক লাঞ্ছিত

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
এপ্রিল ১, ২০১৮
news-image

 

কুবি প্রতিনিধি:

ফেব্রুয়ারির শেষে এক সাংবাদিকের উপর কতিপয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীর হামলার ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে(কুবি) দুই ছাত্রলীগের নেতার হাতে আবারও এক সাংবাদিক লাঞ্ছিত হয়েছেন।

রবিবার (১ এপ্রিল) বিকালে ক্যাম্পাসের কাঠাঁল তলায় ‘দৈনিক পুর্বাশা’র সাংবাদিক ও বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সদস্য মহিউদ্দিন মাহিকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে ছাত্রলীগ নেতারা। একের পর এক সাংবাদিক লাঞ্ছনার বিচার না হওয়ায় ক্যাম্পাসে সাংবাদিকদের উপর ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠনের কতিপয় উশৃঙ্খল নেতাকর্মীদের এমন আচরণ বেড়েই চলছে। লাঞ্ছনার শিকার হওয়া সাংবাদিক মহিউদ্দিন মাহি রবিবার বিকালে প্রক্টরের কাছে লাঞ্ছনার বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ১১তম ব্যাচের শিক্ষার্থী।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, রবিবার বিকালে ক্যাম্পাসের কাঁঠাল তলায় বাংলা বিভাগের ১১তম ব্যাচের শিক্ষার্থী মো: আব্দুর রহমান (শাখা ছাত্রলীগের সদস্য) ও একই বিভাগের ১০ম ব্যাচের শিক্ষার্থী মো: নুরুদ্দীন রাসেল (শাখা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক) তাকে র‌্যাগ দেওয়ার উদ্দেশ্যে ডেকে নেয়। এ সময় তারা মাহিকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে। লাঞ্ছনাকারীরা মাহিকে হুমকি-ধমকি দিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে এবং ক্যাম্পাস ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য হুমকি প্রদান করে। তিনি শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত হয়ে নিরপত্তাহীনতা ভুগছেন এবং মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন উল্লেখ করে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন। এর আগে গত ২০ ডিসেম্বর, ২০১৬ তে মো: নুরুদ্দীন রাসেল সাংবাদিকদের লাঞ্ছিত করে।

এ বিষয়ে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইলিয়াস হোসেন সবুজ বলেন, ‘দোষীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিকভাবে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন বলেন, ‘আমি একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অপরাধীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ প্রসঙ্গত, এর আগে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি এক সাংবাদিকের উপর হামলা করে শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বায়জিদ ইসলাম গল্পের নেতৃত্বে শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি দ্বীন ইসলাম লিখন এবং মুনতাসির আহমেদ হৃদয়সহ (ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কৃত) আরও ৭/৮জন। এর আগে ২০১৬, ২০১৭ তে বেশ কয়েকবার সাংবাদিক লাঞ্ছনার শিকার হলেও কোন বিচার করেনি প্রশাসন।

আর পড়তে পারেন