বৃহস্পতিবার, ২৮শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কাতারে যুব দিবসে প্রবাসী তরুণদের নিয়ে বন্ধুসভার আয়োজন

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
আগস্ট ১৭, ২০২১
news-image

 

ইউসুফ পাটোয়ারী লিংকনঃ

প্রাণবন্ত তারুণ্যের বর্ণিল উপস্থিতির মধ্য দিয়ে কাতারে আন্তর্জাতিক যুব দিবস পালন করেছে প্রথম আলো বন্ধুসভা কাতার শাখা।

১৩ আগস্ট শুক্রবার রাতে এই উপলক্ষে কাতারের রাজধানী দোহায় ম্যাজেস্টি হোটেলের হলরুমে ‘প্রবাসে তারুণ্য: সম্ভাবনার দিগন্ত’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কাতারের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রবাসী তরুণরা উপস্থিত হন এই অনুষ্ঠানে।

তামীম রায়হানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. জসীম উদ্দিন। সভাপতিত্ব করেন প্রথম আলো বন্ধুসভা কাতার শাখার আহবায়ক মিজানুর রহমান। স্বাগত বক্তব্য দেন সদস্যসচিব আবজল আহমদ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ কমিউনিটির সভাপতি আনোয়ার হোসেন আকন, বীর মুক্তিযোদ্ধা ওমর ফারুক চৌধুরী, কাতার ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল হাসান এবং অনুষ্ঠান আয়োজনে বিশেষ সহযোগী কাতার প্রবাসী তরুণ উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ী রাকিবুল হাসান।

এছাড়া অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন জাহিরুল ইসলাম, মো. শাহেদ, নুরুল কবির চৌধুরী, মোসলেমউদ্দীন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. জসীম উদ্দিন বলেন, এমন পরিবেশে এই বিপুলসংখ্যক তরুণের উপস্থিতি আমাকে আশাবাদী করে তুলেছে। বন্ধুসভার যে কোনো ভালো উদ্যোগের পাশে বাংলাদেশ দূতাবাস এবং বাংলাদেশি কমিউনিটি থাকবে।

বঙ্গবন্ধু আমাদেরকে যে স্বপ্ন দেখিয়েছেন, তা আজও অধরা। এই স্বপ্ন বাস্তবায়নে যারা কাজ করবে, তারাই আপনারা। তিনি আরও বলেন, নমস্য হয়ে উঠার লক্ষ্যে অন্যের জন্য কাজ করবেন না। বরং অন্যের জন্য করা কাজগুলো আপনাদের জীবনকে পরিপূর্ণ করে তুলবে। নমস্য হলেন কি হলেন না, তা নিয়ে কখনো ভাববেন না। বরং অন্যদেরকেও এমন ভালো কাজে উৎসাহিত করুন।

রাষ্ট্রদূত আরও বলেন, আলো শব্দের মধ্যে এক ধরণের আশ্বাস আছে। যুবকরা যখন আলোর কথা বলেন, তখন শব্দটি অর্থময় হয়ে ওঠে। আপনারা তাই আলোর কারবারি হয়ে উঠুন। আলোকবর্তিকা থাকুক আপনাদের হাতে।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ থেকে অনলাইনে যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন বন্ধুসভা কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ড. মুমিত আল রশিদ এবং সাধারণ সম্পাদক কামরুন্নাহার মৌ। তারা প্রবাসে বন্ধুশাখার এমন আয়োজনে সংশ্লিষ্ট সবাইকে শুভেচ্ছা জানান এবং বাংলাদেশে বন্ধুসভার কার্যক্রম সম্পর্কে আলোকপাত করেন।

বক্তারা তরুণদের এমন উপস্থিতির প্রশংসা করে বলেন, তরুণরা যদি জেগে উঠেন তবে প্রবাসে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব আরও বেগবান হবে। সব ধরণের আঞ্চলিকতা বা সীমাবদ্ধতার উর্ধ্বে শুধু তরুণদের নিয়ে এই আয়োজন অন্যদের কাছে অনুকরণীয় হয়ে থাকবে।

বন্ধুসভার এই আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন বোরহানউদ্দীন, শাকিল আহমদ, নাহিদ ইসলাম, নাসিম, এহসান, সিফাত খান প্রমুখ।

আর পড়তে পারেন