মঙ্গলবার, ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কমলার খোসার পুষ্টিগুন ও স্বাস্থ্য উপকারিতা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ৭, ২০১৮
news-image

 

ডেস্ক রিপোর্ট :

কমলা দেখতে অনেক সুন্দর। এটি গোলগাল, বাহির যেমন সুন্দর ঠিক ভেতরটা দেখলেও প্রাণ পরিপূর্ণ হয়। আর যদি তা মিস্ট হয় তাহলে তো কোনো কথাই নেই। কমলা পুষ্টিগুণে ভরপুর। এতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি রয়েছে। কেবল কমলা ফলই নয়, এর খোসাতেও অনন্য কিছু গুণ রয়েছে।

তাহলে কমলার প্রতিটি বস্তুই পুষ্টিতে ঘেরা। এর খোসার অনেক উপকারিতা রয়েছে। যা কিনা নানাবিধ অসুখ থেকে দূরে রাখতে সাহায্য করে। কিন্তু ক’জন মানুষ এই কমলার খোসার ব্যবহার জানে। সকলেই তো খোসা ফেলে দেয়। আসুন এবার কমলার খোসার কিছু পুষ্টিগুণ ও উপকারীতা সম্পর্কে জেনে নেই-

বুক জ্বালাপোড়া কমায় : খুব সহজেই কমলার খোসার মাধ্যমে মুক্তি পেতে পারেন বুক জ্বালাপোড়ার যন্ত্রণা থেকে। গবেষণায় দেখা যায় কমলার খোসার অ্যাক্টিভ কেমিক্যাল বুক জ্বালাপোড়ার সমস্যা থেকে স্থায়ী মুক্তি দিতে পারে। টানা ২০ দিন সাধারণ খাবারের সাথে কমলার খোসা কুচি খেয়ে দেখুন। ভালো ফল পাবেন।

ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায় : ক্যান্সারে আক্রান্ত হলে আমাদের দেহের ভালো কোষ থেকে অক্সিজেনের মৌল দূর হতে থাকে। এতে করে বাড়তে থাকে ক্যান্সার। কিন্তু কমলার খোসার কেমিক্যাল কম্পাউন্ড এই অক্সিজেনের মৌল কোষে ধরে রাখতে সহায়ক। সুতরাং দেহে ক্যান্সারের কোষ বৃদ্ধি বাঁধা পায়। এতে করে ক্যান্সারের ঝুঁকি অনেকাংশে কমে যায়।

শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যা দূর করে : কমলার খোসায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি যা দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এছাড়াও কমলার খোসার ভিটামিন সি এবং কমলার খোসার স্বাস্থ্য উপকারিতা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যা যেমন, ব্রংকাইটিস, অ্যাজমা, ফ্লু এমনকি ফুসফুসের ক্যান্সারের হাত থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে।

কোলেস্টোরল কমায় : এলডিএল অর্থাৎ খারাপ কোলেস্টোরল আমাদের হৃদপিণ্ডের শিরা উপশিরায় রক্ত কল্ট ও প্লাকের সৃষ্টি করে। এতে করে হৃদপিণ্ডে ব্লকের সমস্যা দেখা দেয়। কমলার খোসার অ্যান্টি কোলেস্টোরল উপাদান দেহ থেকে এই এলডিএল কোলেস্টোরল কমাতে সাহায্য করে। তাই কমলার খোসা কুচি করে খাবার বা সালাদ হিসেবে খেয়ে নিতে পারেন।

আর পড়তে পারেন