শনিবার, ১৭ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

আধিপত্য বিস্তারের জন্য ওবায়দুল কাদের আমাকে বাঁকা চোখে দেখছেন : কাদের মির্জা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ৭, ২০২১
news-image

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের তার আধিপত্য বিস্তারের জন্য আমাকে বাঁকা চোখে দেখছেন।’ আজ রোববার ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে সকাল ১০টায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে তিনি একথা বলেন।

আবদুল কাদের মির্জা বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে সকল অপশক্তি একজোট হয়েছে। আমাদের নেতা ওবায়দুল কাদের সাহেব আজ দিশেহারা। অপশক্তি ও ষড়যন্ত্রকারীদের খপ্পরে পড়ে আজকে তার (ওবায়দুল কাদের) উসকানিতে, মদদে বিভিন্ন জায়গায় সমাবেশ করার চেষ্টা করছে। অথচ আমাদের দল কেন্দ্রীয়ভাবে সমাবেশ বন্ধের ঘোষণা করেছেন। ওবায়দুল কাদের তার আধিপত্য বিস্তারের জন্য আমাকে বাঁকা চোখে দেখছেন।’

বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার নেতৃত্বে আজ রোববার সকালে বসুরহাটে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে সেখানে ৭ মার্চের কর্মসূচি শুরু হয়। বিকেলে বসুরহাট পৌরসভা মিলনায়তনে আলোচনা সভার পর সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কাদের মির্জার ঘোষিত কমিটির কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার আওয়ামী লীগের সভাপতি ইস্কান্দার হায়দার চৌধুরী বাবুল, সাধারণ সম্পাদক মো. ইউনুছ, বসুরহাট পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল খায়ের, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক গোলাম ছারওয়ার, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট শাহীদুর রহমান তুহিন, সাধারণ সম্পাদক লুৎফুর রহমান মিন্টু প্রমুখ।

অপরদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খানের সভাপতিত্বে ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আজম পাশা চৌধুরী রুমেল এর সঞ্চালনায় শোভাযাত্রা শেষে বসুরহাট ডাক বাংলো শহিদ নুরুল হক বীরউত্তম অটিটোরিয়ামে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তব্য দেন, নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুর নবী চৌধুরী, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আরজুমান পারভীন রুনু প্রমুখ।

মিজানুর রহমান বাদল মেয়র আবদুল কাদের মির্জার উদ্দেশ্যে বলেন, ‘১৯৯৬ সাল থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত ২৫ বছর আমরা একটা ব্যক্তির কাছে জিম্মি হয়ে রয়েছি। ৪৭ বছর তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতি করেছেন। তার এ ৪৭ বছরের রাজনৈতিক জীবনে ৪৭ হাজার নেতাকর্মীকে দল থেকে বিতাড়িত করেছেন। আপনার এ অপরাজনীতির কারণে আজ আপনার বিরুদ্ধে গণবিস্ফোরণ ঘটেছে। আমরা এখন থেকে নেতার পূঁজা করব না, নীতির পূঁজা করব।’

আর পড়তে পারেন