সোমবার, ২৯শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

আগামী সাংসদ নির্বাচনে মনোনয়নের প্রত্যাশায় একাধিক নতুন ও তরুন প্রার্থী

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
নভেম্বর ৫, ২০১৭
news-image

ইমতিয়াজ আহমেদ জিতু ঃ
আগামী সাংসদ নির্বাচন ঘনিয়ে আসছে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে হওয়ার কথা রয়েছে জাতীয় সংসদ নির্বাচন । তবে এও শোনা যাচ্ছে আগাম নির্বাচনের কথা ভাবছে সরকার। নির্বাচন নির্দিষ্ট সময়ে হোক বা আগাম নির্বাচনই হোক মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীরা বসে নেই। নিজ নিজ সংসদীয় আসনে সাধারণ মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন প্রার্থীরা। এবার বিভিন্ন আসনে দেখা যাচ্ছে নতুন ও তরুন রাজনীতিবিদদের। মনোনয়নের প্রত্যাশায় মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন এসব প্রার্থীরা। কেউ নৌকার মাঝি হতে চান , আবার কেউ ধানের শীষ , কেউ নাঙ্গল প্রতীক পেতে চান। তাদের নিয়েই এবারের আয়োজন।


কুমিল্লা-১ (দাউদকান্দি ও মেঘনা): এ আসনে বিএনপি থেকে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের পরিবর্তে তার ছেলে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মারুফ হোসেনের প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া আ’লীগ থেকে কুমিল্লা উত্তর জেলা আ’লীগের সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য ব্যারিষ্টার নাঈম হাসান ও মেঘনা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শফিকুল ইসলাম মনোনয়ন প্রত্যাশী । এ আসনে আ’লীগের মনোনয়নের জন্য তাদের লড়াই করতে হবে বর্তমান সাংসদ মেজর (অবঃ) সুবিদ আলী ভূইয়ার সাথে। এ আসনে জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ছাত্রসমাজের সাবেক সভাপতি এবং জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির ছাত্র বিষয়ক যুগ্ম সম্পাদক আবু জায়েদ আল মাহমুদ মাখন সরকার উপজেলাঘুরে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।
ব্যারিষ্টার নাঈম হাসান জানান, আমি গত সাংসদ নির্বাচনে নির্বাচন করেছি। এবার দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে আমি আশাবাদি। আমি ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছি। সরকারের উন্নয়নের কথা সাধারণ জনগণের সামনে তুলে ধরছি। দাউদকান্দি পৌর এলাকার বাসিন্দা কলেজ ছাত্রী ফারিয়া জাহান জানান, জনপ্রতিনিধিরা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নির্বাচনের সময় দেওয়া প্রতিশ্রুতি রাখতে ব্যর্থ হন। তাই দুর্ভোগ পোহাতে হয় সাধারণ জনগণকে। তাই নতুন নেতৃত্বের প্রতি আস্থা রাখতে চায় ভোটাররা।

কুমিল্লা-২ (হোমনা-তিতাস):
এ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী কুমিল্লা উত্তর জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক, গাজীপুর খান মডেল বহুমূখী হাইস্কুল এন্ড কলেজ গর্ভনিং বডির সভাপতি মোঃ সারোয়ার হোসেন বাবু। উত্তর জেলার প্রভাবশালী এ যুবলীগ নেতা তরুন ভোটারদের মাঝে বেশ জনপ্রিয়। তিনি বিভিন্ন অনুষ্ঠান, আলোচনা সভায় অংশ নিয়ে, ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে বেশ জোরে সোরে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী কুমিল্লা উত্তর জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মোঃ সারোয়ার হোসেন বাবু জানান, যতটুকু জানি আগামি সাংসদ নির্বাচনে জনপ্রিয় ও তরুন নেতৃত্বরা দলীয় মনোনয়নের ক্ষেত্রে প্রাধাণ্য পাবে। সেই ফলশ্রুতিতে আমিও আশাবাদি। তিতাসের কড়িকান্দি এলাকার বাসিন্দা নাজমুল হক জানান, বাংলাদেশের দলগুলোর উচিত বয়স্ক, দুর্নীতিবাজদের বাদ দিয়ে তরুন, জনপ্রিয় নেতৃত্বকে সামনে আনা। যারা তরুন সমাজকে মাদকমুক্ত করবে। সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স সৃষ্টি করবে।

কুমিল্লা-৩ (মুরাদনগর): এ আসনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান কাজী শাহ মোফাজ্জল হোসেইন কায়কোবাদ মামলার কারণে নির্বাচন করতে না পারলে তার (কায়কোবাদ) মামা ইঞ্জি. সৈয়দ শফিকুল ইসলাম অথবা তার ভাই কাজী মুজিবুর রহমান প্রার্থী হতে পারেন।

কুমিল্লা-৫ (বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া):
এ আসনে আ’লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী ব্যারিস্টার সোহরাব খান চৌধুরী বুড়িচং-বি পাড়া উপজেলা ঘুরে ঘুরে সাধারণ মানুষের কাছে সরকারের উন্নয়নের লিফলেট বিতরণ করছেন। পাশাপাশি নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। যদিও মনোনয়নের জন্য তাকে এ আসনে লড়তে হবে বর্তমান এমপি, সাবেক আইনমন্ত্রী এড. আবদুল মতিন খসরুর সাথে। ব্যারিস্টার সোহরাব খান চৌধুরী জানান, গতবারই নির্বাচন করতে চেয়েছিলাম। পরে দলের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেছি। এবার আশা করি নেত্রী আমার উপর আস্থা রাখবেন। আমি মাঠে থেকে রাজনীতি করি। এর সুফল পাবো ইনশাল্লাহ। তবে দলীয় সিদ্ধান্তকে মেনে নিবো। কুমিল্লা-৫ (বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া) আসনের বর্তমান সাংসদ সাবেক আইনমন্ত্রী এড. আবদুল মতিন খসরু জানান, আমার জনসম্পৃক্ততা রয়েছে। জনগণের সাথে আমার কখনো দূরত্ব সৃষ্টি হয়নি। দলীয় নেত্রী অতীতেও আমার উপর আস্থা রেখেছে। ভবিষ্যতে রাখবে বলে আমি আশাবাদি।

কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা):
এ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হয়ে গত দুয়েক মাস ধরে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে , মাঠে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি , স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত । তাকে এ আসনে মনোনয়নের জন্য লড়াই করতে হবে বর্তমান এমপি, সাবেক ডেপুটি স্পীকার অধ্যাপক আলী আশরাফের সাথে । ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত জানান, আগামী সাংসদ নির্বাচনে দলীয় নেত্রীর কাছে আমি মনোনয়ন চাইবো। এটা আমার মনের সুপ্ত বাসনা। চিকিৎসক হিসেবে মানুষের সেবা করে যাচ্ছি। আমার মনে হয় একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে আরো কাজ করার সুবিধা আছে। তবে দল যাকে মনোনয়ন দিবে তার জন্যই কাজ করবো। চান্দিনার মাধাইয়া ইউনিয়নের ভোটার আরিফুল ইসলাম জানান, রাস্তাঘাটের বেহাল দশা। সামান্য বৃষ্টিতে রাস্তাঘাট ডুবে যায়। যে আমাদের সকল সমস্যা দূর করতে প্রতিশ্রুতি দিবেন তাকেই ভোট দিবো। যদিও জনপ্রতিনিধি হওয়ার পর জনগণের কাছে দেওয়া প্রতিশ্রুতি ভুলে যান প্রার্থীরা।

বর্তমান সাংসদ, সাবেক ডেপুটি স্পীকার অধ্যাপক আলী আশরাফ জানান, নির্বাচন আসলে অনেকেই মাঠে নামে। এরা সুসময়ের পাখি। দুঃসময়ে এদের খুঁজে পাওয়া যায় না। আমি সব সময় মাঠে আছি , থাকবো। নেত্রী এবারোও আমাকে মনোনয়ন দিবেন বলে আমি শতভাগ আশাবাদি।


কুমিল্লা-৯ (লাকসাম ও মনোহরগঞ্জ): এ আসনে সম্প্রতি সাবেক এমপি কর্নেল (অব.) আনোয়ারুল আজিম পদত্যাগ করেছেন । তাই এ আসনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন দৌড়ে রয়েছেন লাকসাম উপজেলা বিএনপির সভাপতি শিল্পপতি আবুল কালাম (চৈতী কালাম) । তিনি এলাকায় নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন। কুমিল্লা-৯ (লাকসাম ও মনোহরগঞ্জ) আসনে বিএনপি দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী লাকসাম উপজেলা বিএনপির সভাপতি শিল্পপতি আবুল কালাম (চৈতী কালাম) জানান, এ আসনে আমিই মাঠে আছি। মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে শতভাগ আশাবাদি। তবে দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে যাবো না।

আর পড়তে পারেন