বৃহস্পতিবার, ২৪শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

আইসিএল এর প্রতারণায় সেনাবাহিনীর সাবেক সি. ওয়ারেন্ট অফিসার মোস্তাফিজুরের মানবেতর জীবনযাপন

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
নভেম্বর ১, ২০১৭
news-image

আরিফ আজগরঃ
আইডিয়াল কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিঃ (আইসিএল) এর প্রতারণার কাছে জিম্মি হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান।
কুমিল্লার শাকতলা উঃ পাড়া নিবাসী মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান ১৯৮০ সালে যোগদান করেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে। ২০১১ সালে এসে দীর্ঘ ৩১ বছর কর্মজীবনের ইতি টানেন সাবেক এই সেনাকর্মকর্তা। পরিবারে স্ত্রী, দুই ছেলে আর একমাত্র মেয়েকে নিয়ে সুখেই জীবনযাপন করে আসছিলেন। কিন্তু আইডিয়াল কো- অপারেটিভ সোসাইটি লিঃ এর কাছে অন্ধ বিশ্বাস বিক্রি করে সর্বস্ব হারান তিনি। আইসিএল চেয়ারম্যান শফিকুর রহমানের সাথে সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ হওয়ায় উঠে পড়ে লাগেন তার প্রতিষ্ঠানে টাকা বিনিয়োগের জন্য। ফোন করে এবং সরাসরি বাসায় এসে অনুরোধ করতেন বিনিয়োগে। তবুও বিশ্বাসের কিছুটা কমতি থাকতো যদি সাবেক বীমা কর্মকর্তা না জড়িত থাকতেন। আইসিএল চেয়ারম্যান এবং সাবেক বীমা কর্মকর্তার উৎপীড়নে অবশেষে পেনশন এবং বিদেশ মিশনের মোট ৩২ লাখ টাকা এমএফডিআর (নং ১৪৪০) করেন আইসিএলের কান্দিরপাড় শাখায়। কথা ছিল প্রতি লাখে ২ হাজার টাকা লভ্যাংশ প্রদান করার।কয়েক মাস তা প্রদান করে আসলেও ২০১২ সালের ডিসেম্বরের পর থেকে আর কোনো টাকা পয়সা প্রদান থেকে বিরত থাকে প্রতিষ্ঠানটি। নাছোড়বান্দা সেনাকর্মকর্তা হতাশ হয়ে ছুটেন আইসিএল কর্মকর্তাদের পিছু, কিন্তু কোনো সুফল বয়ে আনেনি তার এই ছুটেচলা। আইসিএল চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান পাওনা টাকা দেবো দিচ্ছি করে কয়েকদিন আশ্বস্ত করলেও কদিন পর নিরুদ্দেশ হন তিনিও। শুধু চেয়ারম্যান ই নয়, কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায় গোটা আইসিএলের। তিন সন্তানের ভবিষ্যৎ নির্র্ভর ৩২লাখ টাকা হারানোর শোকে স্ত্রী পারুল আক্তার আক্রান্ত হন দুরারোগ্যে। স্ত্রীকে সুস্থ করতে বিক্রি করেন শেষ সম্বলের ৯০ ভাগ। কিন্তু ভাগ্যের পরিহাসে বাঁচাতে পারলেন না স্ত্রীকেও। তাই জীবনযুূদ্ধের শেষ সময়ে এসে আত্মসমর্পণ করে তিন সন্তানের সুদূর ভবিষ্যৎ জলাঞ্জলি করে তাদের লেখাপড়া বন্ধ করে আবাসের সামনেই অতি সামান্য মুদির দোকানি হয়ে কোনোরকম বেঁচে আছেন তিন সন্তান নিয়ে। এমতাবস্থায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান।

আর পড়তে পারেন