সোমবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

অছাত্র-বিবাহিতদের দিয়ে দেবিদ্বার পৌর ছাত্রলীগের কমিটি গঠনের অভিযোগ

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
আগস্ট ৩, ২০২১
news-image

স্টাফ রিপোর্টার:

বিবাহিত ও অছাত্রদের নিয়ে কুমিল্লার দেবিদ্বার পৌর ছাত্রলীগের কমিটি গঠনের অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে কুমিল্লা উত্তর জেলা ও দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগের মধ্যে দ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করেছে।

সূত্র মতে, গত ৩১ জুলাই রাতে কুমিল্লা (উ.) জেলা ছাত্রলীগের প্যাডে সভাপতি আবু কাউছার অনিক ও সাধারণ সম্পাদক বোরহান উদ্দিন স্বাক্ষরিত একটি চিঠিতে দেবিদ্বার পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি হিসাবে ছাব্বির আহমেদ ও নাজমুল হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে এক বছরের কমিটি করা হয়। সেটি অনিকের ফেসবুক আইডি থেকে পোস্ট করা হয়।

কিছুক্ষণ পরেই দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক ইকবাল হোসেন রুবেল তার আইডি থেকে জানান, দেবিদ্বার পৌর ছাত্রলীগের কোনো কমিটি গঠন করা হয়নি। এরপর থেকেই দৃশ্যমান হয়ে ওঠে দেবিদ্বার উপজেলা এবং কুমিল্লা উত্তর ছাত্রলীগের মধ্যে চরম অসন্তোষ। অনিকের দেওয়া পোস্টে ইকবাল হোসেন রুবেলের একটি মন্তব্য স্ক্রিনশট দিয়ে অনেক সদস্যকে পোস্ট দিতেও দেখা যায়। সেই মন্তব্যে অনিককে উদ্দেশ্য করে রুবেল লিখেছেন, তোর কপালে দুর্গতি আছে।

ছাত্রলীগ কর্মীরা জানান, নবগঠিত পৌর কমিটির সভাপতি বিবাহিত এবং সাধারণ সম্পাদক অছাত্র। সভাপতি সাব্বির আহমেদ সম্প্রতি পার্শ্ববর্তী মুরাদনগর উপজেলার পাহাড়পুর গ্রামে বিয়ে করেন এবং সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হাসান বিগত ৭-৮ বছর আগে পড়াশোনা ছেড়ে দিয়েছেন।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক ইকবাল হোসেন রুবেল কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু কাউছার অনিক বলেন, দেবিদ্বার পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের মাস্টার্স শেষ পর্বের ছাত্র। সাধারণ সম্পাদকও কুমিল্লা সরকারি কলেজের ছাত্র। দলের জন্য এদের অনেক ত্যাগ রয়েছে। যদি কেউ প্রমাণ করতে পারে এদের কেউ বিবাহিত বা অছাত্র তাহলে সাথে সাথে কমিটি বাতিল করা হবে। বাণিজ্যের বিষয়ের অভিযোগ সঠিক নয় বলে তিনি দাবি করেন।

দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন, গত ২৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ উপনির্বাচনে নৌকার পক্ষে কাজ করায় পৌর কমিটি ভেঙে দেওয়া হয়েছে। যাদের দিয়ে বর্তমান কমিটি করা হয়েছে তারা বিবাহিত ও অছাত্র বলে অনেক নেতাকর্মী ফেসবুকে লেখালেখি করেছেন।

আর পড়তে পারেন