শুক্রবার, ২৩শে আগস্ট, ২০১৯ ইং

দাউদকান্দির বিআরডিবিতে  গোপন নিলামে ৩০ লাখ টাকার মালামাল সোয়া ৩ লাখ টাকায় বিক্রি !

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুলাই ২২, ২০১৯
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ
কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলা বিআরডিবি অফিসের প্রায় ২০ লাখ ৬৫ হাজার টাকার পুরাতন মালামাল মাত্র ৩ লাখ ৩০ হাজার টাকায় বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে। কাগজপত্র ঠিক রেখে এ গোপন নিলাম ডাকে সরকারের ক্ষতি হয়েছে ১৭ লাখ টাকা।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের আওতাধীন উপজেলার অবলুপ্ত এমআরডিবি প্রকল্পের গুদামে রক্ষিত পুরাতন মেশিনারিজ, খুচরা যন্ত্রাংশ, এলএলপি ডেলিভারী পাইপ, মোটর সাইকেল, পাওয়ার ট্রিলার, হ্যান্ড ট্রাক্টর, সেলাই মেশিন ও কৃষি যন্ত্রপাতিসহ একশো ৬৫ প্রকার মালামাল রয়েছে। এ মালামালের সম্ভাব্য মূল্য তালিকা করার জন্য ১৬ মার্চ জেলা বিআরডিবি কর্মকর্তা জোবেদা বেগমকে সভাপতি করে সাত সদস্যের নিলাম কমিটি গঠন করে বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক মোঃ আব্দুল জলিল মিঞা। ওই কমিটি কাগজপত্রে মূল্য তালিকা তৈরি করে ২৫ লাখ টাকার মালামালকে দেখানো হয়েছে মাত্র তিন লাখ ২৮ হাজার টাকা।

জানা যায়, গত ১০ জুলাই নিলাম বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হলেও তা অফিস ফাইলেই সীমাবদ্ধ থাকে আর জেলার এমন পত্রিকায় দেয়া হয়েছে যে পত্রিকা দাউদকান্দিতে কখনো আসেনা। অফিসের কতিপয় কর্মকর্তার যোগসাজসে স্থানীয় আকাশ এন্টারপ্রাইজ, জাকির এন্টারপ্রাইজ ও নাফিজ এন্টারপ্রাইজ নামে তিনজন ঠিকাদারকে কাগজপত্রে দেখানো হয়। নিলাম কমিটির মূল্য থেকে দুই হাজার টাকা বেশি দিয়ে নাফিজ এন্টারপ্রাইজ চুড়ান্ত নিলাম দাতা হয়।

উপজেলা বিআরডিবি চেয়ারম্যান মনির হোসেন সরকার জানান, এই গোপন নিলামে সরকার প্রায় ২৫ লাখ টাকা থেকে বঞ্চিত হয়েছে। আমি এখানকার সভাপতি হয়েও নিলাম বিজ্ঞপ্তি পাইনি আর সাধারণ ঠিকাদার বা ব্যবসায়ীরা জানবে কিভাবে? উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা কতিপয় ঠিকাদারের সাথে যোগসাজসে ৩০ লাখ টাকার মালামাল ৩ লাখ ৩০ হাজার টাকায় বিক্রি করেছে।

এদিকে গোডাউনে রক্ষিত মালামালে ছবি ধারন করতে চাইলে বিআরডিবি কর্মকর্তা আজ না কাল বলে গড়িমসি করে বলে অভিযোগ স্থানীয় সাংবাদিকদের।

উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা টিপু সুলতান অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমরা নিয়ম মোতাবেক সবকিছু করেছি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল ইসলাম খান বলেন, এই নিলাম নিয়ে মৌখিক কিছু অভিযোগ পেয়েছি। লিখিত অভিযোগ পেলে ভালো হতো তারপরও বিষয়টি আমি দেখবো।

আর পড়তে পারেন