মঙ্গলবার, ১৬ই জুলাই, ২০১৯ ইং

বৃষ্টিতে ডুবে গেল কুমিল্লা নগরী!

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুলাই ১৪, ২০১৯
news-image

 

মাছুম কামাল ঃ
চারিদিকে থৈ-থৈ বৃষ্টিজল। এর মধ্যেই পানি কেটে-কেটে এগিয়ে যাচ্ছে রিকশা, সি এন জি, ইজিবাইক্সহ অন্যান্য যানবাহনগুলো। এগিয়ে যাচ্ছে নানা বয়সের নারী-পুরুষ, শিশু ও বৃদ্ধ।

না, কোনো গল্প কিংবা সিনেমার কাহিনী হয়। বলছি কুমিল্লা মহানগরীর কথা। টানা বৃষ্টিতে ডুবে গেছে কুমিল্লা শহরের প্রাণকেন্দ্র কান্দিরপাড়সহ শহরের অধিকাংশ রাস্তাগুলো। রাস্তা সংলগ্ন মার্কেটগুলোর দোকান-পাটেও অবাধে প্রবেশ করছে বৃষ্টির পানি।

আজ সকালে সরেজমিনে নগরীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এই চিত্র লক্ষ্য করা গেছে। খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, পর্যাপ্ত পানি নিষ্কাশনের অভাবেই এমন জলাবদ্ধতার সৃষ্টি। এ বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে রেইসকোর্স এলাকার বাসিন্দা জয়নাল মিঞা বলেন, ‘ড্রেন না কইরা রাস্তা করলে এমনি হইবো। এত টাকার রাস্তা এখন পানির নিচে’। এসময় ক্ষোভ প্রকাশ করেন অন্যান্য যাত্রী ও পথচারীরাও।

তবে, এই জলাবদ্ধতার জন্য অপর্যাপ্ত ড্রেনেজ ব্যবস্থা যেমন দায়ী, তেমনি জনসচেতনতারও অভাব রয়েছে বলে অনেকেই। বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্যের উচ্ছিষ্ট, প্লাস্টিক জাতীয় বর্জ্য ইত্যাদি ড্রেনে নিক্ষেপের ফলে দ্রুত অকেজো হয়ে পড়ে ড্রেনগুলো। এমত অবস্থায় রাস্তাঘাট নির্মাণ ও সংস্কারের সময় পর্যাপ্ত ড্রেনেজ সিস্টেমও জরুরি বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে টানা বৃষ্টিতে বিপাকে পড়েছেন খেটে খাওয়া ও দিনমজুর মানুষেরা। কথা হয়, উত্তরবঙ্গ থেকে কাজের খোঁজে আসা কয়েকজন দিনমজুরের সাথে। নগরীর টাউনহল মাঠ সংলগ্ন ফুটপাতে তারা কোদাল ও টুকরি নিয়ে কাজের আশায় বসেছেন। জানালেন, দুঃখের কথা। টানা বৃষ্টির কারণে কাজ পাচ্ছেন না তেমন। জলিল নামের একজন বললেন, গত দুদিন ধরে ভাত খাওয়ার পয়সাও নেই তার কাছে।

এদিকে ভারী বর্ষণের ফলে বিপাকে পড়েছেন ফুটপাতের ব্যবসায়ীরা। অনেকেই জানালেন কমে গেছে বেচাকেনা। ভারী বর্ষণের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন নিমসার ও লালমাই এলকার সবজী চাষীরাও। হঠাৎ আসা বর্ষায় তলিয়ে গেছে সবজীর ঝাড়। তবে, পাইকারদের কাছে নায্যমূল্য পেলে ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে পারবেন বলে জানিয়েছেন তারা।

আর পড়তে পারেন