বৃহস্পতিবার, ২২শে আগস্ট, ২০১৯ ইং

চাঁদপুরে সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে ৪ সাংবাদিকের উপর অতর্কিত হামলা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুন ২২, ২০১৯
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টার :
চাঁদপুর সদর উপজেলার ১নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে ৪ সাংবাদিকের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়েছে স্থানীয় একদল সন্ত্রাসী যুবক।

জানা গেছে, ১নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের পশ্চিম মনোহরখাদী এলাকায় মসজিদ কমিটি নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে বিরোধ বাঁধে। উক্ত ঘটনার সংবাদ কভারেজ করতে গিয়ে ৪ সাংবাদিকের উপর অতর্কিত হামলা চালায় স্থানীয় উৎশৃংখল সন্ত্রাসীরা।

শুক্রবার (২১ জুন) জুম’আর নামাজের পর ১নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের পশ্চিম মনোহরখাদী এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। হামলার স্বীকার গুরুত্বর আহত সাংবাদিকরা হলেন দৈনিক চাঁদপুর কন্ঠের সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার ও দৈনিক জনতার মিজানুর রহমান, দৈনিক চাঁদপুর প্রবাহের স্টাফ রিপোর্টার গাজী মোঃ মহসিন, দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার ও দৈনিক আজকের কুমিল্লার চাঁদপুর প্রতিনিধি মাসুদ হোসেন ও দৈনিক চাঁদপুর জমিন পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার ইমাম হাসান গাজী। এ দিকে আহত দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার ও দৈনিক আজকের কুমিল্লার চাঁদপুর প্রতিনিধি মাসুদ হোসেন জানান, ১নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের বকাউল বাড়িতে জাতীয় সংসদের সরকার দলীয় চিপ হুইপ নূরে আলম চৌধুরী লিটনের অনুষ্ঠানে যাওয়ার পথে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে একই ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড ২নং রামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন পশ্চিম মনোহারখাদি জামে মসজিদে কমিটির বিরোধ নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে দীর্ঘদিন যাবত ঝামেলা চলছিলো। উক্ত সংবাদেও ভিত্তিতে আমরা ৪জন সাংবাদিক এর সত্যতা যাচাইয়ের জন্য সেখানে যাই এবং আমরা ওই মসজিদে জুমআর নামাজ আদায় করি।

পরে সবাই জুম্মার নামাজ আদায় করে মসজিদ কমিটির সভাপতি ও সেক্রেটারীর কাছ থেকে তথ্য নেওয়ার জন্য অপেক্ষা করলে এক সময় মসজিদ কমিটির দু’পক্ষের মধ্যে তর্ক বিতর্ক চলাকালীন এক পক্ষের প্রায় ১৫-২০ জন কোন কারন ছাড়াই সাংবাদিকদের লক্ষ্য করে তাদের উপর হামলা চালায় এবং বেধরক মারধর করে রক্তাক্ত জমখ করেন। সে সময় সাংবাদিকদের অর্কথ্য ভাষায় গালাগাল করে প্রাণনাশের উদ্দেশ্যে তাদের উপর অতর্কিত এ হামলা চালায়। এ সময় সাংবাদিকরা কোন উপায় না পেয়ে পার্শ্ববর্তী কয়েকটি বাড়িতে যার যার মত করে দৌঁড়ে গিয়ে আশ্রয় নেন। হামলা কারীরা সাংবাদিকদের সাথে থাকা মোবাইল ফোন, ক্যামেরা ও মানিব্যাগ ছিনতাই করে নিয়ে যায় এবং সাংবাদিকদের মোটর সাইকেল ভাংচুর করে।

সাংবাদিকরা এসময় এলাকার এক ব্যক্তির মোবাইল দিয়ে দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার সম্পাদক সোহেল রুশদীকে অবহিত করলে তিনি চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নাসিম উদ্দিন ও চাঁদপুর সদর সার্কেল জাহেদ পারভেজ চৌধুরীকে বিষয়টি অবহিত করেন। তাৎক্ষণিক চাঁদপুর মডেল থানার এসআই দিলীপ ও হাসেম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে যান এবং সাংবাদিকদের হামলার ঘটনার সত্যতা পান। অপরদিকে বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তাদেরকে উদ্ধার করেন। সেই এমন অনাকাঙ্খিত ঘটনার কথা শুনে বিষ্ণুপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ নাসির উদ্দিন খান শামীম, চাঁদপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজিজ খান বাদল ঘটনাস্থলে ছুটে যান। এ ব্যাপারে হামলাকারী সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন। পুলিশ উক্ত ঘটনার সত্যতা তদন্ত করতে গিয়ে সাংবাদিকদের কোন অপরাধ দেখতে পাননি।
আহত সাংবাদিকরা ঘটনাস্থল থেকে চিকিৎসা নেওয়ার জন্য দ্রুত ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁদপুর সদর হাসপাতালে এসে ভর্তি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। এ ঘটনায় দৈনিক চাঁদপুর প্রবাহের স্টাফ রিপোর্টার সাংবাদিক গাজী মোঃ মহসিন বাদী হয়ে শুক্রবার ২১ জুন ২০১৯ইং তারিখে চাঁদপুর মডেল থানায় এজহার দাখিল করেছেন। এজহারে আসামী করা হয়েছে, ১নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড নুরু বেপারীর ছেলে মোবারক বেপারী, মৃত হাফেজ জালাল বেপারীর ছেলে এমরান বেপারী, দুলাল বেপারীর ছেলে রিয়াদ বেপারী, লেয়াকত আলী প্রধানীয়ার ছেলে আবুল কালাম প্রধানীয়া, হুমায়ুন কবির প্রধানীয়া, মৃত সমিদ বেপারীর ছেলে দুলাল বেপারী, হান্নান বেপারীর ছেলে রাসেল বেপারী, মৃত আঃ রব বেপারীর ছেলে শাহাদাত বেপারী, আলমগীর প্রধানীয়ার ছেলে কামরুল প্রধানীয়া, মৃত ইলিয়াস বেপারীর ছেলে মনির হোসেন বেপারী, আঃ হালিম বেপারীর ছেলে ছালাউদ্দিন বেপারী, সোহেল বেপারী ও জহিরুল সরকারসহ আরো অজ্ঞাত ৩০ জন।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী তদন্ত কর্মকর্তা এসআই দিলীপ জানান, আমরা খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে মসজিদ কমিটির কিছু লোক সাংবাদিকদের উপর বিনা অপরাধে অতর্কিত হামলা চালানোর সত্যতা পেয়েছি। এ বিষয়ে আমরা কঠোর ভাবে বিষয়টি খতিয়ে দেখছি। ঘটনার সাথে জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে। বিষ্ণুপুর ইউপি চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন খান শামীম জানান, আমি ঘটনাটি শুনেছি এবং ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। এমন অনাকাঙ্খিত ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। সেই সাথে অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি কামনা করছি। চাঁদপুর সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. নাসিম উদ্দিন উক্ত ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, সাংবাদিকদের উপর বিনা অপরাধে হামলার ঘটনাটি খতিয়ে দেখে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিনা অপরাধে এমন অনাকাঙ্খিত ঘটনায় চাঁদপুরের বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্স, প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিকদের মনে ক্ষোভ বিরাজ করছে এবং তীব্র নিন্দা জানিয়ে অপরাধীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবী করছেন।

আর পড়তে পারেন