বুধবার, ২৫শে জুন, ২০১৯ ইং

অবশেষে মেঘনারচরে মিলল কুমিল্লার শিক্ষাবোর্ড মডেল কলেজ ছাত্রের মরদেহ

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুন ১৩, ২০১৯
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ
চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনার বালুচরে গোসলে নেমে নিখোঁজ কলেজ ছাত্রের মরদেহ বৃহস্পতিবার সকালে উদ্ধার করা হয়েছে। সকাল সাড়ে ১০টায় পদ্মা-মেঘনার মোহনার অদূরের চরে রাফিদুল ইসলামের মরদেহের সন্ধান পায় পুলিশ।

চাঁদপুর ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক ফরিদ আহমেদ বলেন, ফায়ার সার্ভিস ও নৌ পুলিশের ডুবরি দলের প্রায় ২০ ঘণ্টার চেষ্টায় মরদেহ উদ্ধার হয়।

চাঁদপুর মডেল থানার ওসি মো. নাসিম উদ্দিন বলেন, কুমিল্লার শিক্ষাবোর্ড সরকারি মডেল কলেজ ছাত্র রাফিদুলের মরদেহ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তার পরিবারকে জানানো হয়। পরিবারের কোনো অভিযোগ না থাকায় মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই হস্তান্তর করা হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, পদ্মার চর চাঁদপুরের ‘মিনি কক্সবাজার’ হিসেবে পরিচিতি পাওয়া পদ্মা নদীর চরে গোসল করতে গিয়ে নিখোঁজ হন কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড সরকারি মডেল কলেজের ছাত্র দ্বাদশ শ্রণির ছাত্র রাফিদুল ইসলাম। সে কুমিল্লার বন বিভাগের কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামের ছেলে। বুধবার (১২ জুন) দুপুর ১২টার দিকে নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হন রাফিদুল ইসলাম রাফিদ। রাফিদ কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড সরকারি মডেল কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র। তার সঙ্গী সাখাওয়াত, হাবীব, জিসান, সুদিপ্ত, মিঠু এবং রাজীব জানান, তারা আট বন্ধু বুধবার সকাল ৮টার দিকে চাঁদপুরের উদ্দেশে রওনা হন। চাঁদপুরের বড়স্টেশন এসে একটি ট্রলারে করে দুপুর ১২টার দিকে মিনি কক্সবাজার খ্যাত পদ্মা নদীর মাঝখানে জেগে উঠা চরে ঘুরতে যান তারা। সেখানে তারা সাঁতার কাটছিলেন। একপর্যায়ে ঢেউয়ের তোড়ে স্রোতের টানে নিখোঁজ হয়ে যান রাফিদ। তবে অন্য সাত জন তীরে ফিরে আসতে পারেন।চাঁদপুর নৌপুলিশের এসআই হালিম বলেন, ‘কলেজছাত্র নিখোঁজের খবর পেয়ে তার খোঁজে আমরা উদ্ধার অভিযান চালালেও সন্ধ্যা পর্যন্ত মরদেহের সন্ধান পাইনি, তার বন্ধুরা আমাদের জানিয়েছে নদীতে গোসল করতে নেমে ঢেউয়ের আঘাতে সে পানিতে তলিয়ে যায়।’ বৃহস্পতিবার সকালে মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

 

আর পড়তে পারেন