বুধবার, ১৯শে জুন, ২০১৯ ইং

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাংলাদেশের জয়কে অঘটন বলে কটুক্তি ভারতীয় মিডিয়ার

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুন ৩, ২০১৯
news-image

 

স্পোর্টস ডেস্ক ঃ

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুর্দান্ত জয়ের পরও বাংলাদেশকে হেয় প্রতিপন্ন করেছে ভারতের গণমাধ্যম। দেশটির শীর্ষস্থানীয় মিডিয়া এনডিটিভি বাংলাদেশের রেকর্ড গড়া ম্যাচের এ জয়কে অঘটন হিসেবে প্রকাশ করেছে।  চ্যানেল এনডিটিভি বাংলাদেশের জয়কে ব্রেকিং নিউজ হিসেবে দিয়ে লিখে, ‘বিশ্বকাপের প্রথম অঘটন, বাংলাদেশ চমকে দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকাকে।’

ভারতীয় মিডিয়া বুঝাতে চেয়েছে বাংলাদেশে হঠাৎ করে এমন একটা জয় পেয়েছে, যেটা তাদের প্রত্যাশা ছিল না।

ভারতীয় মিডিয়া জেনেও না জানার ভান করছে। মাশরাফি বিন মুর্তজার নেতৃত্বাধীন এই দলের বিপক্ষেই ২০১৫ সালে বাংলাদেশ সফরে এসে পাত্তাই পায়নি ভারতীয় ক্রিকেট দল। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ২-১ ব্যবধানে হেরে যায় ভারত।

ভারতের পর বাংলাদেশে সফরে আসে দক্ষিণ আফ্রিকা। হাশিম আমলার নেতৃত্বে সেই সফরে দক্ষিণ আফ্রিকা টাইগারদের কাছে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ হারে।

শুধু তাই নয়, ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে এই বাংলাদেশের বিপক্ষে হেরে গেছে ভারত। মাশরাফির গতির মুখে পড়ে ১৯১ রানে অলআউট হওয়া রাহুল দ্রাবিদের নেতৃত্বাধীন ভারতকে ৫ উইকেটে হারায় হাবিবুল বাশার সুমনের নেতৃত্বাধীন দল।

২০১২ সালের এশিয়া কাপে মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বাধীন ভারতীয় দলকে হারিয়ে টুর্নামেন্টের ফাইনালে খেলে বাংলাদেশ।

বিশ্বকাপ এবং এশিয়া কাপের মতো বড় টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ দলের বিপক্ষে হেরে যাওয়া ভারত টাইগারদের জয়ে কুর্ণিশ করার পরিবর্তে হেয় করছে।

তবে ভারতের সাবেক ক্রিকেটারদের মুখে ছিল মাশরাফি বাহিনীর জয়জয়কার। ভারতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার মোহাম্মদ কাইফ লিখেন, ‘বাংলাদেশের দারুণ জয়। অলরাউন্ড ব্যাটিং পারফরম্যান্স এবং বোলাররা দক্ষিণ আফ্রিকাকে রান করতে দেয়নি।’

ভিভিএস লক্ষ্মণ লিখেন, ‘বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ, ওয়ানডেতে নিজেদের সর্বোচ্চ দলীয় স্কোর করার জন্য কি দারুণ দিন! কৌশলগত দিক দিয়ে তারা দুর্দান্ত ছিল পাশাপাশি শেষে দক্ষিণ আফ্রিকার মজুদে পর্যাপ্ত ফায়ার পাওয়ারও ছিল না।’

খেলা শেষ হওয়ার আগে পাকিস্তানি ক্রিকেটার শোয়েব আখতার লিখেছেন, ‘কী নিখুঁত পারফরম্যান্স বাংলাদেশের। এখন বোলাররা ৩৩০ রান কীভাবে ডিফেন্ড করে সেটি দেখার।’

আর পড়তে পারেন