শনিবার, ১৭ই আগস্ট, ২০১৯ ইং

প্রায় সাড়ে ৩ শতাধিক আসন নিয়ে পুনরায় দিল্লীর মসনদে মোদি

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ২৩, ২০১৯
news-image

 

ডেক্স রিপোর্টঃ

বিশাল জয় নিয়ে দিল্লীর মসনদে আবারো বসতে যাচ্ছেন টি বয় নরেন্দ্র মোদি। ভারতের লোকসভা নির্বাচনে ৩৪৩ আসনে এগিয়ে রয়েছে দেশটির ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) ও শরিকরা। আর বিজেপির প্রতিদ্বন্দ্বী কংগ্রেস জোট একশরও কম আসনে এগিয়ে।

ভারতীয় সময় বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় ভোট গণনা শুরু হয়। চূড়ান্ত ফল জানা যাবে সন্ধ্যায়।

ভোট গণনার প্রাথমিক তথ্যের ভিত্তিতে ভারতের গণমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট এগিয়ে আছে ৩৪৭ আসনে। অন্যদিকে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ জোট এগিয়ে ৮৭ আসন। অন্যান্য দল এগিয়ে আছে ১০৮ আসন।

আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট ৩৪৩ আসনে বিজয়ী হতে যাচ্ছে। অন্যদিকে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ জোট এগিয়ে আছে ৯৩ আসন। অন্যান্য দল পেতে যাচ্ছে ১০৬ আসন।

এ ছাড়া নিউজ এইট্টিনের খবরে বলা হয়েছে, বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট ৩৪৩ আসনে বিজয়ী হতে যাচ্ছে। অন্যদিকে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ জোট এগিয়ে আছে ৯৪ আসন। অন্যান্য দল পেতে যাচ্ছে ১০৫ আসন।

এদিকে লোকসভা নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদির বিজয় সুনিশ্চিত ভেবে দলের ২০ হাজার কর্মীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে বিজেপি।

আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজধানী নয়াদিল্লিতে দলের সদর দফতরে যাবেন এসব কর্মী। বিজেপি নেতারা বলছেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে জাঁকালো সংবর্ধনা দিতেই এমন আয়োজন।

আর জয়ী নেতাদের ২৫ মের মধ্যে দিল্লিতে আসতে আমন্ত্রণ জানিয়েছে বিজেপি। বুথফেরত জরিপে জয়ের আভাস পেয়ে গত মঙ্গলবার এনডিএ একটি বৈঠক করে। সেখানে মোদিকে ফুলের মালা দিয়ে অভ্যর্থনা জানানো হয়।

ভারতীয় পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ লোকসভার ৫৪৩ আসনে ভোট হয়েছে। কোনো দলকে সরকার গঠন করতে হলে পেতে হবে ২৭২ আসন।

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের বুথফেরত সমীক্ষায় ক্ষমতাসীন বিজেপি জোটের জয়ের আভাস মিললেও বিরোধী জোট এটা মানতে পারছিল না।

আজ সকালে সারা দেশে একযোগে ভোট গণনা শুরু হয়।

নির্বাচন কর্মকর্তারা মনে করছেন, সকাল ৮টা থেকে ভোট গণনা শুরু হলেও অনেক রাতে হয়ত ফল জানা যাবে।

এরই মধ্যে সরকার গঠনের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং বিজেপিপ্রধান অমিত শাহ পরিকল্পনা উন্মোচন করেছেন।

ভারতের সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ ১১ এপ্রিল শুরু হয়ে ১৯ মে শেষ হয়। ৯০ কোটি ভোটারের এ নির্বাচন হয় ৯ কোটি ভোটকেন্দ্রে।

আর পড়তে পারেন