বুধবার, ২৬শে জুন, ২০১৯ ইং

কুমিল্লায় জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ২০, ২০১৯
news-image

সাকিব আল হেলাল :

মুসলিম বিশ্বের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর। মহান সৃষ্টিকর্তার ইবাদতের উদ্দেশ্যে এক মাসের রমজান শেষে আসে পবিত্র ঈদুল ফিতর।

মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসবের একটি হলো ঈদুল ফিতর। ঈদের আনন্দকে আরো আনন্দময় করে তুলতে নতুন জামা, জুতা ও কসমেটিকস কেনা আমাদের আরেকটি আনন্দের বিষয়।

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেশী বিদেশী নতুন নতুন বাহারী পোশাকে সাজিয়ে বসেছে দোকানিরা। ঈদের বাকী আরো ১৫/১৬ দিন ইতিমধ্যেই জমে উঠেছে কুমিল্লার ঈদের বিভিন্ন মার্কেটগুলো।

বিশেষ করে গার্মেন্টস, কসমেটিকস ও জুতার দোকানগুলোতেই ক্রেতাদের বেশি ভীড় লক্ষ্য করা গেছে। কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্ট সুপার মার্কেট, সেনাকল্যাণ মার্কেট ও পুরাতন মার্কেট,কুমিল্লা শহরের প্রাঁন কেন্দ্র কান্দিরপাড়ের বাহার মার্কেট,খন্দকার হক টাওয়ার, ছাত্তার খান কমপ্লেক্স ,ইষ্টার্ন ইয়াকুব প্লাজাসহ নিউমার্কেট।

তাছাড়া বুড়িচং,চান্দিনা,বরুড়া,লাকসাম,দেবিদ্বারের গার্মেন্টসের দোকান গুলোতে জমে উঠেছে ঈদের বেঁচাকেনা ।

কুমিল্লার বিভিন্ন মার্কেটগুলোতে ঘুরে দেখা যায় দোকানিদের বিক্রির ব্যস্ততা। পুরুষের চেয়ে নারী ক্রেতাদের সংখ্যাই বেশী লক্ষ্য করা যায়।

কয়েকজন ক্রেতার সাথে কথা বলে জানা যায়, একটু আগে আগেই ঈদের কেনাকাটা সেরে ফেলতে চান তারা। দর দামের বিষয়ে একেক জনের একেক রকম মতামত।

তৈরি পোশাকের দোকান, জুতার দোকান,ক্রোকারিজের দোকানগুলোতেও ছুটছেন ক্রেতারা।

ছাত্তার খান কমপ্লেক্সের ব্যাবসায়ীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ঈদের দিন ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে ক্রেতাদের উপস্থিতিও বাড়ছে দিন দিন। বিক্রি ভালো তাই খোশ মেজাজে থাকা দোকানীরা জানান, এবারের ঈদে তরুণীদের পছন্দ ইন্ডিয়ান পোষাক আর পুরুষদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে জিন্স প্যান্ট ও পাঞ্জাবি। ঈদ উপলক্ষে নতুন মালে বোঝাই করেছেন দোকান। অধিকাংশ ক্রেতারাই কেনাকাটা করছেন। তবে অনেকেই দরদাম যাচাই করে দামে না বনলে ঘুরে ফিরে দেখে চলে যাচ্ছেন। ক্রেতাদের কাছে আশানুরূপ বেচাকেনা হবে বলেই ধারণা ব্যাবসায়িদের।

মধ্যবিত্ত ও নিন্মমধ্যবিত্ত ক্রেতাদের ভীড় খোলা বাজারের কাপড় ও জুতার দোকান গুলোতেও লক্ষ্য করা যায়। এসব দোকানগুলোতেও উপচে পড়া ভীড় করছেন নিম্ন আয়ের মানুষেরা। নিজেরদের সাধ্যের মধ্যে পরিবারের সকলের জন্যই কেনাকাটা করতে দেখা যায় নারী পুরুষদের।

প্রায় সকল মার্কেটেই অভিভাবকদের সাথে দেখা গেছে পরিবারের ছোট বড় সদস্যদেরও। এছাড়া কুমিল্লা শহরসহ বিভিন্ন উপজেলা সদরের বড় মার্কেটগুলোতে জমে উঠতে শুরু করেছে ঈদের বাজার। ক্রেতাদের আকর্ষণ বাড়াতে বিভিন্ন মার্কেটে রাফেল ড্র ও কুপনের ব্যাবস্থাও করা হয়েছে ব্যাবসায়িদের সমন্বয়ে । আবার কোথাও কোথাও বাহারী গেইট ও রঙ্গিন আলোর বাতি দিয়ে সাঁজানো হয়েছে বিভিন্ন মার্কেট।

সব মিলিয়ে পবিত্র ঈদুল ফিতরের আগমনে নতুন পোষাক, জামা, জুতা, শাড়ি কসমেটিকসসহ গৃহস্থালির সামগ্রী বেঁচাকেনায় উৎসব মূখর পরিবেশ লক্ষ্য করা যায়।

ঈদের আনন্দে আনন্দিত হোক প্রতিটি মানুষের হৃদয়। ধনী গরিব সকলের মাঝে ঈদ বয়ে আনুক অনাবিল আনন্দের ধারা এমনটাই প্রত্যাশা সকলের।

আর পড়তে পারেন