শনিবার, ১৭ই আগস্ট, ২০১৯ ইং

শিশু নাঈম পুরষ্কারের ৫ হাজার ডলার এতিমখানায় দিতে চান

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ৩১, ২০১৯
news-image

 

ডেস্ক রিপোর্ট :

শিশু নাঈম যিনি মানবিকতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন বনানীর অগ্নিকাণ্ডের সময়ে। অধিকাংশ মানুষ যেখানে ছবি তুলতে ব্যস্ত ছিলো, সেখানে যেন ব্যতিক্রম শিশুটি। অনেকে ফেসবুকে শিশুটির ছবি শেয়ার দিয়ে তার কাজের প্রশংসা করেছেন। শিশু নাঈমের এই মানবিক কাজে খুশি হয়ে তাকে উপহার স্বরূপ ৫ হাজার ডলার প্রদানের ঘোষণা দিলেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ও সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার সন্তান ওমর ফারুক সামি। পাশাপাশি তার যাবতীয় পড়ালেখার দায়িত্ব গ্রহণেরও কথা জানিয়েছিলেন তিনি।

বনানীর অগ্নিকাণ্ডের পর ফায়ার সার্ভিসের ছেঁড়া পাইপ চেপে ধরে পানি আটকিয়ে রাখার দৃশ্য এখন সবার মোবাইলের পর্দায় ভাসছে। কড়াইল বস্তির সেই শিশু নাইমের মানবিক কাজে খুশি হয়ে তার পাশে দাঁড়িয়েছেন এই যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী।

কিন্তু সেই নাঈম কি সেই সাহায্যর টাকাগুলো নিবেন? নিলেও বা কিসে খরচ করবেন বাংলাদেশি মূল্য প্রায় লাখ পরিমাণ এই টাকা? সেই প্রশ্ন করেছিলেন জনপ্রিয় উপস্থাপক ও অভিনেতা শাহরিয়ার নাজিম জয়। জনপ্রিয় এই উপস্থাপকের একান্ত ব্যক্তিগত এক সাক্ষাতকারে হাজির হয়েছিলেন বনানী ট্র্যাজেডির সেই বীর নাঈম। তার সঙ্গে ছিল তার বাবা-মা। বছর কয়েক আগে তার বাবা-মায়ের ডিভোর্স হয়ে যায়। এরপর থেকে মায়ের কাছেই বড় হচ্ছেন নাঈম। কিন্তু ছেলের বীরত্বের সঙ্গী হিসেবে সেই অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন তারাও।

সাহসিকতার পরিচয় দিয়ে ভবিষ্যতে পাওয়া কিংবা টাকা কিসে খরচ করবেন নাঈম? জয়ের এমন প্রশ্নের উত্তরে নাঈম বলেন, সেই টাকাগুলো সে গ্রতিমখানায় দান করে দিবেন। টাকাগুলো সে এতিমখানার অনাথ শিশুদের জন্যই দান করে দিতে চান। ছেলের এই জবাবে সায় দেন তার মা-বাবাও।

উল্লেখ্য, শিশু নাঈম ইসলাম কড়াইল বস্তি এলাকার বৌবাজারের রুহুল আমীনের ছেলে। বৌবাজারের আনন্দ স্কুলে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ুয়া নাইম অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পাইপের লিকেজে পলিথিন পেচিয়ে ধরে বসে ছিল। গতকাল থেকে সামাজিক মাধ্যমে সেই ছবিটি হয়েছে ভাইরাল। প্রশংসায় ভাসছে সে।

আর পড়তে পারেন