সোমবার, ২২শে জুলাই, ২০১৯ ইং

কুমিল্লায় আবাসিক গ্যাস-সংযোগের অপেক্ষায় বিজিডিসিএল এর পাঁচ জেলা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ২৪, ২০১৯
news-image

 

মনির হোসেন:

বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের (বিজিডিসিএল) অধীনে কুমিল্লা, নোয়াখালী, ফেনী, লক্ষ্মীপুর ও ব্রাহ্মনবাড়িয়ায় সহ পাঁচ জেলারপ্রায় ৪০ হাজার নতুন গ্রাহক আবাসিক গ্যাস-সংযোগের অপেক্ষায় রয়েছেন।

নতুনকরে গ্যাস-সংযোগ পাওয়ার আশায় প্রতিদিনই কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের চাপাপুর প্রধান কার্যালয়ে ভিড় করছেন আবেদনকারীরা। এদিকে বিজিডিসিএল কর্তৃক মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট বিজিডিসিএল ঠিকাদার ফোরামের গত ১৮ মার্চ আবাসিক গ্রাহকের গ্যাস সংযোগ চালু করার আবেদন জানান। আবাসিক খাতে বন্ধ রয়েছে তিতাস গ্যাস,কর্ণফুলী গ্যাস,জালালাবাদ গ্যাস,সুন্দরবন গ্যাস যার কারনে এসব গ্রাহক ও ঠিকাদারদের মাঝে হতাশা ও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা, নোয়াখালী, ফেনী, লক্ষ্মীপুর, লাকসাম, দেবিদ্বার, মুরাদনগর, বসুরহাট, চাঁদপুর, বুড়িচং, ব্রাহ্মনপাড়া, মাইজদী, গৌরীপুর, দেবিদ্বার ও ব্রাহ্মনবাড়িয়ায় বিগত প্রায় ০৩ বৎসর আবাসিক গ্যাস
সংযোগ বন্ধ রয়েছে। পেট্রোবাংলার আদেশের প্রেক্ষিতে ইতিপূর্বে বিজিডিসিএল কর্তৃক অনুমোদিত ও ইস্যুকৃত নিরাপদ জামানতের অর্থ পরিশোধিত অপেক্ষামান নতুন গ্রাহকদের গ্যাস সংযোগ না পেয়ে আবাসিক গ্রাহকদের মাঝে হতাশা ও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। বর্তমানে নতুন সংযোগের জন্য প্রায় ২০ হাজার আবেদন জমা পড়ে
রয়েছে। এছাড়াও প্রায় ৪০ হাজার গ্রাহকের ডিমান্ড নোটের টাকা জমা আছে, রাইজার উত্তোলনের অপেক্ষায় প্রায় ৪০ হাজার এবং শুধুমাত্র সংযোগের অপেক্ষায় রয়েছে অন্ততঃ ২০ হাজার আবাসিক গ্রাহক। এমতবস্থায় পেট্রোবাংলার আদেশ ঠিকাদার সহ গ্রাহকদের মাঝে উদ্বিগ্নতা সৃষ্টি করেছে। নতুন সিদ্ধান্তের কারনে পুরানো আবেদনগুলোর ভ্যাগ্য অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। বিজিডিসিএল এর কয়েক জন ঠিকাদার জানান, বিজিডিসিএল কর্তৃপক্ষ যথা সময়ে আবাসিক গ্যাস সংযোগ প্রদান না করায় গ্রাহকগন ঠিকাদারদের সাথে অশোভন আচরণ,
হয়রানী, নাজেহাল সহ অপমান ও অপদস্থ করছে বলে জানান। বিজিডিসিএল এর তালিকাভূক্ত প্রায় ৪শতাধিক ঠিকাদার নিয়মিত ট্যাক্স প্রদান করে সরকারের রাজস্ব খাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে আসছে। তারা আরো বলেন, ৪০০ জন ঠিকাদার সহ আরো ৪০০ পরিবারের সদস্য আবাসিক গ্যাস সংযোগ কাজে জড়িত আছেন এবং তাদের আয়ের উপরে তাদের পরিবারের ভরন পোষন নির্ভর করছে। আবাসিক খাতে বর্ধিত
গ্যাস সংযোগ বন্ধ থাকায় তালিকাভূক্ত ঠিকাদারগন পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। আমরা এ দেশের নাগরিক হিসাবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবী করছি অনতিবিলম্বে আবাসিক গ্যাস সংযোগ প্রদান কার্যক্রম শুরু করার জন্য।

বিজিডিসিএল ঠিকাদার ফোরামের সাধারণ সম্পাদক মো: খোরশেদ আলম সরকার জানান,বর্তমান সরকারের নির্বাচনী অংঙ্গীকার গ্রামকে শহর করবে। এমপি মহোদয়গন নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন এইবার সরকার গঠন করলে ঘরে ঘরে আবাসিক গ্যাস সংযোগ পৌছে দিবেন। গণ-প্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় সফল প্রধানমন্ত্রীর নিকট কুমিল্লা বাসীর পক্ষে ঠিকাদার নেতৃবৃন্দগন সবিনয়ে
অনুরোধ জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য যে, ১ মিলিয়ন গ্যাস ব্যবহার ১০লক্ষ সিএফটি, একটি দ্বৈত চুলার গ্যাস ব্যবহার করা হয় ২১ সিএফটি। বর্তমানে বিজিডিএল এর আবাসিক খাতে গ্যাস ব্যবহার হয় সর্বোচ্চ ৪০ মিলিয়ন। বিগত ০৩ বৎসর যাবত অপেক্ষামান আবাসিক গ্রাহকদের গ্যাস সংযোগ প্রদান সহ আবাসিক সংযোগ চালু করলে প্রতিদিন ৫০০
মিলিয়ন গ্যাস এর মাত্র ১০ থেকে ১২% গ্যাস আবাসিক খাতে ব্যবহার হবে।

আর পড়তে পারেন