মঙ্গলবার, ১৮ই মার্চ, ২০১৯ ইং

মেসির জোড়া গোল, মেসিময় ম্যাচে কোয়ার্টারে বার্সা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ১৪, ২০১৯
news-image

স্পোর্টস ডেস্কঃ

প্রথম লেগ গোলশূন্য ড্র হয়েছিল। কিন্তু দ্বিতীয় লেগে সেই দুঃখ সুদে-আসলে মিটিয়ে নিল বার্সেলোনা। ঘরের মাঠে অলিম্পিক লিওঁ’র বিপক্ষে রীতিমত গোল উৎসব করল কাতালানরা। তবে ম্যাচের আসল নায়ক অবশ্যই আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসি। নিজে ২ গোল করলেন, সতীর্থদের দিয়ে করালেন ২ গোল। আর তাতেই দুই লেগ মিলিয়ে ৫-১ গোলের ব্যবধান নিয়ে কোয়ার্টারে পা রাখলো কাতালান জায়ান্টরা।

বুধবার (১৩ মার্চ) রাতে ক্যাম্প ন্যুয়ে অনুষ্ঠিত চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর ম্যাচের চতুর্থ মিনিটেই গোল পাওয়ার খুব কাছে চলে গিয়েছিলেন মেসি। বক্সের বাইরে থেকে বল বাড়িয়ে দিয়েছিলেন সুয়ারেজ কিন্তু লিওঁ’র পর্তুগিজ গোলরক্ষক অ্যান্থনি লোপেস কর্নারের বিনিময়ে মেসির শট ঠেকিয়ে দেন। কিন্তু গোল পেতে খুব বেশি সময় অপেক্ষায় থাকতে হয়নি মেসিকে। ১৬ মিনিটে শট নিতে উদ্যত সুয়ারেজকে ঠেকাতে গিয়ে ফাউল করে বসেন লিওঁ গোলরক্ষক। রেফারি সরাসরি পেনাল্টির বাঁশি বাজান। দারুণ এক চিপে লোপেসকে বোকা বানিয়ে চলতি আসরে নিজের ৭ম গোল করেন বার্সা অধিনায়ক।

বার্সার দ্বিতীয় গোলটি আসে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ফিলিপ্পে কৌতিনহোর পা থেকে। খেলার ৩১তম মিনিটে পায়ের আলতো ছোঁয়ায় বল বক্সে থাকা সুয়ারেজের কাছে পৌঁছে দেন ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার আর্থার। সুয়ারেজ লিওঁ’র ডিফেন্ডার ফার্নান্দো মার্সেলকে পাশ কাটিয়ে বল দেন কৌতিনহোর পায়ে। এমন সহজ সুযোগ হেলায় নষ্ট করেননি তিনি।

প্রথমার্ধের খেলা শেষে ম্যাচে ফেরার প্রাণপণ চেষ্টা চালায় লিওঁ। ৫৮তম মিনিটে ফলও পেয়ে যায় ফরাসি ক্লাবটি। ডাচ তারকা ম্যামফিস ডিপে’র ক্রস থামাতে নিজের লাইন ছেড়ে উঠে আসেন বার্সা গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে টের স্টেগান। ওদিকে বার্সা ডিফেন্ডার ল্যাংলেটকে পরাস্ত করে বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে হেড করেন মার্সেলো আর গোলমুখে বল পেয়ে নিচু শটে বল জালে জড়িয়ে ব্যবধান কমান লিওঁমিডফিল্ডার লুকাস তৌসার্ট।

ম্যাচের ৭৮তম মিনিটে নিজের দ্বিতীয় ও দলের দ্বিতীয় গোল করেন মেসি। সার্জিও বুসকেতসের পাস থেকে বল নিয়ে একক প্রচেষ্টায় লিওঁ’র ডিফেন্স ভেদ করে ডান পায়ে জোরালো শট নেন মেসি, কিন্তু প্রথমবার হাত লাগিয়ে সেই শট ঠেকিয়ে দেন লিওঁ গোলরক্ষক। তবে তার গোল ঠেকানোর এই চেষ্টা ব্যর্থ হয়। চ্যাম্পিয়নস লিগের চলতি মৌসুমে নিজের ৮ম গোল করে শীর্ষ গোলদাতা বনে যান মেসি। তবে এই তালিকায় সমান ৮ গোল নিয়ে যৌথভাবে শীর্ষে আছেন বায়ার্ন মিউনিখের রবার্ট লেভানডভস্কি।

এদিকে দলের এমন গোল উৎসবে অংশ নেন বার্সা ডিফেন্ডার জেরার্ড পিকেও। তবে গোলের উৎস কিন্তু পুরো ম্যাচেই অসাধারণ খেলতে থাকা মেসি। কাউন্টার অ্যাটাক থেকে বল নিয়ে ডি-বক্সে পাহারাবিহীন অবস্থায় থাকা পিকের দিকে বল তিনিই বাড়িয়ে দেন আর অমন সুযোগ কেউ মিস করে! মিস করেননি পিকে।

লিওঁ’র কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেন উসমানে ডেম্বেলে। লিওঁ ডিফেন্সের একদম মাঝখানে দৌড়ে গিয়ে মেসি আলতো পাসে বল ঠেলে দেন আনমার্ক অবস্থায় থাকা ডেম্বেলের পায়ে। গোলমুখে নিচু শট নেন ডেম্বেলে। লিওঁ’র বদলি গোলরক্ষক জর্জেলিন হাত বাড়িয়ে বল ছুঁয়ে দিলেও তা ঠেকানোর মতো যথেষ্ট ছিল না।
এই জয়ে রেকর্ড টানা ১২বারের মতো চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে পা দিল বার্সেলোনা। সর্বশেষ ২০০৬/০৭ মৌসুমে লিভারপুলের কাছে হেরে বিদায় নিয়েছিল দলটি।

আর পড়তে পারেন