সোমবার, ২৪শে মার্চ, ২০১৯ ইং

আজকের কুমিল্লার তৃতীয় বর্ষে পদার্পণ, পাঠকদের জানাই শুভেচ্ছা ও কৃতজ্ঞতা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ১৩, ২০১৯
news-image

ইমতিয়াজ আহমেদ জিতু:
প্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। আজ বৃহত্তর কুমিল্লার সংবাদপত্র “দৈনিক আজকের কুমিল্লা”র দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। অর্থাৎ আমরা তৃতীয় বর্ষে পদার্পণ করেছি। আপনাদের সবার সহযোগিতা আর ভালোবাসা নিয়েই কুমিল্লার সংবাদপত্র জগতের অন্যতম সদস্য আজকের কুমিল্লা এখন সর্বমহলের পত্রিকা হয়ে উঠতে সক্ষম হয়েছে ।

পত্রিকাটির অনলাইন ভার্সনও পেয়েছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা। আমরা চেয়েছি বৃহত্তর কুমিল্লার পারিবারিক কাগজ হতে, আপনাদের পরিবারের প্রিয় একজন সদস্য হয়ে উঠতে। আমরা তাই এমন কিছু নেতিবাচক বিষয় প্রকাশ করি না, যা আমাদের সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পারিবারিক মূল্যবোধে আঘাত করবে। আবার আমরা চেয়েছি বাড়ির ছোট শিশুটি থেকে প্রবীণতম সদস্যের চাহিদা যেন এই কাগজের মাধ্যমে মেটানো যায়। আমাদের চেষ্টা অব্যাহত আছে। একটি পত্রিকার সংবাদের মান দেখে পাঠকরা অনেক কিছু সিদ্ধান্ত নেন। সঠিক ও স্বচ্ছ সংবাদ প্রকাশিত হলে পাঠক সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে। আর পাঠকের প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ হলে ওই পত্রিকার ভবিষ্যত অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। সেই দিক থেকে আমরা আনন্দিত ও আশাবাদি । আজকের কুমিল্লার প্রচারসংখ্যা দুই বছরে বৃদ্ধি পেয়েছে। ভবিষ্যতে আরো বৃদ্ধি পাবে বলে আশাবাদি। এক ঝাঁক তরুণ ও মেধাবী সাংবাদিকের প্রচেষ্টায় আমাদের অনলাইন ভার্সন চট্টগ্রাম বিভাগে দ্রুত জনপ্রিয়তা পেয়েছে। বিভিন্ন মিডিয়া আমাদের অনলাইন ভার্সন অনুসরণ করছে। যা আমাদের জন্য আনন্দের বিষয়। জাতীয় দিবস ও বিশেষ দিনগুলোতে দৈনিক আজকের কুমিল্লাকে পাঠকের সামনে বিশেষভাবে উপস্থাপন করার চেষ্টা করেছি। যাতে বিশেষ দিন মানেই সবার কাছে মনে হয় দৈনিক আজকের কুমিল্লা। বিশেষ দিনের সাথে সংশ্লিষ্টতা রেখে বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করে যাচ্ছি, যা পাঠকের চাহিদা পূরণ করছে বলে আমরা আশাবাদি। পাঠকদের কাছ থেকে ভাল সাড়া পাচ্ছি। শিক্ষা ও সংস্কৃতির পাদপিঠ উপ-মহাদেশের প্রাচীণ জেলা কুমিল্লার মিডিয়া জগতে দৈনিক আজকের কুমিল্লা ইতিবাচক পরিবর্তনে কাজ করে যাচ্ছে। যা কিছু ভালো তার সঙ্গে আমরা আছি। আমাদের কাজের ধরণ ইতিবাচক । সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে কুমিল্লার মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি কুমিল্লা বিভাগ, বিমানবন্দর চালু নিয়ে আজকের কুমিল্লার প্রিন্ট ও অনলাইন ভার্সনে অসংখ্য সংবাদ প্রকাশ করেছি। এতে করে কুমিল্লাবাসির আস্থার জায়গাটায় আজকের কুমিল্লা বেশ ভালভাবে স্থান করে নিয়েছে বলে আমি বিশ্বাস করি। ২০১৭ সালের ১৩ মার্চ আমরা যাত্রা শুরু করি। আমাদের পথ চলাটা সহজ ছিল না। শুরু থেকেই অনেক কঠিন পথ পাড়ি দিতে হয়েছে। অনেক চোখ রাঙানি , প্রতিরোধের সম্মুখীন হতে হয়েছে। কিন্তু শুরুর দিনটি থেকেই আমাদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য ছিল একটাই । আমরা স্বাধীন, সৎ , নিরপেক্ষ ও সাহসী সাংবাদিকতা করব। দালালি, চাটুকারিতা থেকে দূরে থাকব । আমরা কোনো দলের মুখপত্র হব না, আমরা থাকব কুমিল্লার সাধারণ জনগণের পক্ষে। কোনো সত্য উচ্চারণে আমরা পিছু হটবো না। আমরা ইতিবাচক পরিবর্তনে সহায়তা করব। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের মূল্যবোধকে হৃদয়ে ধারণ করে আমরা গণতন্ত্রকে সুসংহত রাখতে কাজ করে যাব। নারী-শিশুর অধিকার, অসহায়ের অধিকারের পক্ষে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখব। আমরা চেষ্টা করেছি আমাদের লক্ষ্যে অটুট থাকতে। ভবিষ্যতে আমরা এ পথ থেকে সরে যাব না। আমরা স্বপ্ন দেখি সুখী, সমৃদ্ধ, শান্তিপূর্ণ এক অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের। এ স্বপ্নপূরণে আমাদের সবাইকে কাজ করে যেতে হবে। আমাদের পথ চলা এক বছর পূর্ণ হল। বসে থাকার সময় নেই, ফিরে তাকানোর সুযোগ নেই। মা, মাটি ও মানুষকে ভালোবেসে আমাদের পাড়ি দিতে হবে বহুদূর। আমরা অঙ্গীকারবদ্ধ, আমাদের লক্ষ্যমাত্রা অনেক। আমাদের উদ্দেশ্য সব সময় ইতিবাচক। পাঠকের ভালবাসা আর সহযোগিতায় আমরা অাজ প্রতিকূল পথ পাড়ি দিতে প্রস্তুত আছি। পাঠকের ভালবাসায় ‘আজকের কুমিল্লা’ তার পথে অবিচল আছে। এভাবেই বহুদূর যেতে চাই। ভালবাসা অবিরাম। সবাই ভাল থাকবেন। যা কিছু ভাল , তার সাথে থাকবে আজকের কুমিল্লা । সবাইকে ধন্যবাদ।

আর পড়তে পারেন