শুক্রবার, ২৩শে আগস্ট, ২০১৯ ইং

কুমিল্লার সদর দক্ষিণের কাউসার হত্যা মামলার প্রধান আসামী বাপ্পী গ্রেফতার

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জানুয়ারি ৩০, ২০১৯
news-image

মহিউদ্দিন ভূইয়াঃ

গত ২৯ জানুয়ারি আনুমানিক ১১:৪৫ ঘটিকার সময় র‌্যাব-১১, সিপিসি-২, কুমিল্লা ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার পলাতক আসামী জাহিদ হাসান @ বাপ্পী (২০), পিতা- জামাল মিয়া, সাং- ঝাকুনিপাড়া (জগন্নাথপুর বাবা মসজিদ সংলগ্ন), থানা- কোতয়ালি মডেল, জেলা- কুমিল্লা কোতয়ালি মডেল থানাধীন লক্ষীপুর এলাকায় অবস্থান করছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে কুমিল্লা কোতয়ালি মডেল থানাধীন লক্ষীপুর এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার প্রধান আসামী জাহিদ হাসান @ বাপ্পী (২০) কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

বিগত ২০১৭ সালের ১ জুলাই সকাল সাড়ে ৭ টায় মোছাঃ পুতুল আক্তার (৪০), স্বামী- আব্দুল হক, সাং- দীঘলগাঁও, থানা- সদর দক্ষিণ মডেল, জেলা- কুমিল্লা সংবাদ পান যে, তার ছেলে মোঃ কাউছার (২০) আহত অব¯’ায় কুমিল্লা পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড¯’ ঢাকা-চট্টগ্রাম রেললাইনের পার্শ্বে পড়ে আছে। সংবাদ পেয়ে ¯’ানীয় লোকজনসহ সে ঘটনা¯’লে গিয়ে তার ছেলে মোঃ কাউছারকে (২০) উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার ছেলে মোঃ কাউছার (২০) মারা যায়। মৃত মোঃ কাউছার (২০) এর মা-বাবা ও আত্মীয়-স্বজনরা ধারণা করে যে, মোঃ কাউছার (২০) ট্রেনের ধাক্কা খেয়ে আহত হয়ে পরবর্তীতে মারা গেছে। যার ফলে তারা তাদের সন্তানের লাশ ধর্মীয় বিধান মতে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করে।

ঘটনার প্রায় ৬ (ছয়) মাস পর ঘটনার প্রত্যক্ষ্যদর্শী বিভিন্ন ব্যক্তিদের নিকট হতে নিহত মোঃ কাউছার (২০) এর নিকটাত্মীয়রা ঘটনার বিষয়ে জানতে পেরে বিজ্ঞ আদালতে এজাহার দায়ের করলে বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে লাকসাম রেলওয়ে থানার মামলা নং-০১ তারিখ ০১/২/২০১৮, ধারা ২০১/৩০২/৩৪ দঃ বিঃ রুজু করে। মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা মামলার তদন্তকালে বিজ্ঞ আদালতের অনুমতি নিয়ে জনাব মোঃ ইসমাইল হোসেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট, লাকসাম, কুমিল্লা মহোদয়ের উপস্থিতিতে মোঃ কাউছার (২০) এর লাশ কবর হতে উত্তোলন করে সুরতহাল রিপোর্ট প্র¯‘তসহ ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। ময়না তদন্তে মামলার আসল রহস্য বেরিয়ে আসে এবং আসামী জাহিদ হাসান @ বাপ্পী (২০) সহ এজাহার নামীয় অপরাপর আসামীদের বিরুদ্ধে স্বাক্ষ্য-প্রমাণ পাওয়া যায়।

মামলা রুজুর পর হইতে অদ্যাবধি গ্রেপ্তারকৃত আসামী পলাতক ছিল। সম্প্রতী উক্ত মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোঃ মিছবাহুল আলম চৌধুরীর নিকট থেকে অধিযাচন পত্র পেয়ে মামলাটির বিষয়ে র‌্যাব-১১, সিপিসি-২, কুমিল্লা ক্যাম্প ছায়া তদন্ত শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৯ জানুয়ারি ২০১৯ ইং তারিখ উক্ত মামলার ১ নং আসামী জাহিদ হাসান @ বাপ্পী (২০) গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। গ্রেপ্তারের পর আসামী স্বীকার করে যে, অপরাপর এজাহার নামীয় আসামীদের সহায়তায় কুমিল্লা পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড¯’ উল্লাস বাস কাউন্টারে চাকুরীকালে অবৈধভাবে উপার্জিত টাকা-পয়সার ভাগ-বাটোয়ারা নিয়া আক্রোশ এবং ০১টি চোরাই মোবাইলের ভাগের টাকা না দেওয়ার আক্রোশে ভিকটিমকে ঘটনার দিন গত ০১/৭/২০১৭ ইং তারিখ রাত্র ০২:০০ ঘটিকা হইতে ভোর ০৬:০০ ঘটিকার মধ্যে কুমিল্লা পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড¯’ আল শাকিল হোটেলে ইয়াবা ট্যাবলেট সেবন করাইয়া তাহাকে অর্ধ মাতাল অবস্থায় ভোর বেলায় কুমিল্লা পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড¯’ ঢাকা-চট্টগ্রাম রেললাইনের পার্শ্বে নিয়া রড দ্বারা হাতে ও মাথায় আঘাত করিয়া গুরুতর রক্তাক্ত জখমসহ মুমূর্ষ অবস্থায় রেললাইনের পার্শ্বে ফেলিয়া যায়।

উক্ত ঘটনায় ধৃত আসামীর বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে তাকে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার নিকট হস্তান্তর করা হয়। পরবর্তীতে আসামী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট শারমীন দীনা, আমলি আদালতে-৬, কুমিল্লা এর নিকট ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী প্রদান করে।

কুমিল্লা র‌্যাব-১১,সিপিসি-২ এর ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ বিল্লাল হোসেন এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আর পড়তে পারেন