শনিবার, ১৭ই আগস্ট, ২০১৯ ইং

কুমিল্লা-৯: বিএনপি প্রার্থীর মিডিয়া সমন্বয়কের বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
ডিসেম্বর ২৯, ২০১৮
news-image

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ
কুমিল্লা-৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) আসনে বিএনপির মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী কর্ণেল (অব.) এম. আনোয়ারুল আজিমের মিডিয়া সমন্বয়কারী এক বিএনপি নেতার বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর চালিয়েছে একদল মুখোশধারী দুর্বৃত্ত। ওই বিএনপি নেতার নাম মনির আহমেদ। তিনি লাকসাম পৌরসভা বিএনপির সহ-সাধারণ সম্পাদকের পদে রয়েছেন বলে দলীয় সূত্র জানিয়েছে।

শুক্রবার (২৮ ডিসেম্বর) সন্ধা সাড়ে ৭ টার দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

বিএনপি নেতা মনির আহমেদের অভিযোগ, মুখোশধারী ওই হামলাকারীরা তার ব্যবহৃত ল্যাপটপসহ ঘরের সকল আসবাবপত্র ভাঙচুর করেছে এবং মূল্যবান মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে। ওই হামলাকারীদের হাতে তার পরিবারের একজন নারী সদস্য লাঞ্চিত হয়েছেন বলেও দাবি করেছেন তিনি।

মনিরের ভাষ্য,আমার বাড়িতে হামলা করে আমাকে ধানের শীষের পক্ষে আরও বেশী কাজ করতে উজ্জীবিত করেছে। কারণ আমাদের বিজয় সুনিশ্চিত দেখে তারা উম্মাদ হয়ে গেছে। আমাদের প্রার্থী কর্ণেল আজিমের জন্য জীবন উৎসর্গ করেছি অনেক আগেই। এসব করে আমাদের দমিয়ে রাখা যাবে না, আর আমি ভীত নই। এই হামলাকারীদের জবাব ৩০ ডিসেম্বর সকল শ্রেণির মানুষ ব্যালটের মাধ্যমে দিবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে লাকসাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনোজ কুুমার দে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে জানান তিনি।

এদিকে, নির্বাচনী প্রচারণা শেষ হবার পরও এমন হামলার ঘটনা সংগঠিত হওয়ায় বিষয়টিকে ন্যাক্কারজনক উল্লেখ করে তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন কুমিল্লা ৯ আসনের বিএনপি প্রার্থী দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক কর্ণেল (অব.) এম. আনোয়ারুল আজিম, তাঁর প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক দপ্তর সম্পাদক সফিকুর রহমানসহ দলীয় নেতারা।

ধানের শীষের প্রার্থী কর্ণেল (অব.) এম. আনোয়ারুল আজিম বলেন, কারা এই মুখোশধারী সন্ত্রাসী এটা সবাই জানেন। এতোদিন হামলা করেছে মুখ খুলে আর এখন করছে মুখোশ পরে। ইতিমধ্যে তাদের নৈতিক পরাজয় হয়ে গেছে। নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার পর থেকে লাকসাম-মনোহরগঞ্জের প্রতিটি এলাকাতেই এমন হামলা করেছেন তারা।

এবার সময় এসেছে এসব সন্ত্রাসীদের উচিত জবাব দেয়ার, প্রতিহত করার। তবে সেই জবাব সন্ত্রাসের মাধ্যমে নয়। আগামী ৩০ তারিখ বাধভাঙ্গা জোয়ারের মতো ভোটাররা কেন্দ্র গিয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে বিপ্লব ঘটিয়ে সেই জবাব দিবে। আগামী ৩০ ডিসেম্বর লাকসাম-মনোহরগঞ্জের প্রতিটি নির্যাতিত, নিপিড়িত মানুষের মুক্তির দিন। দেশেবাসী দেখবে এই আসনের ব্যালট বিপ্লব।

আর পড়তে পারেন