রবিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং

চাঁদপুরে ৫১ প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ, ৮ জনের বাতিল

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
ডিসেম্বর ৩, ২০১৮
news-image

মাসুদ হোসেন, চাঁদপুর:
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বাছাই জেলা রিটানিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (২ ডিসেম্বর) সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা মো মাজেদুল রহমান খান বাছাই কার্যক্রম পরিচালনা করেন। এতে ৫১ প্রার্থীর মনোয়নপত্র বৈধ ও ৮ জনের বাতিল ঘোষণা করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির পিপিএম, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিনসহ ৫টি আসনের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাগণ।

২৬০ চাঁদপুর -১ (কচুয়া) সংসদীয় আসনে ড মহিউদ্দীন খান আলমগীর (আওয়ামী লীগ মার্কা নৌকা), গোলাম হোসেন (আওয়ামী লীগ মার্কা নৌকা), এহসানুল হক মিলন (বিএনপি মার্কা ধানের শীষ), মোশারফ হোসেন (বিএনপি মার্কা ধানের শীষ), নাজমুন নাহার বেবী (বিএনপি মার্কা ধানের শীষ), অধ্যাপক এ কে এস এম শহীদুল ইসলাম (স্বতন্ত্র), এমদাদুল হক রুমন (জাতীয় পার্টি মার্কা লাঙ্গল), নুরুল আলম মজুমদার (ইসলামী ফ্রন্ট মার্কা মোমবাতি), জোবায়ের আহমেদ (ইসলামী আন্দোলন মার্কা হাত পাখা) ও আজাদ হোসেন (গণফোরাম/জাতীয় ঐক্য ফ্রন্ট মার্কা ধানের শীষ)। এ আসনে ১শতাংশ ভোটের বৈধতা না পাওয়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী খন্দকার মোশারফ হোসেনের মনোননয়পত্র বালিত হয়।

২৬১ চাঁদপুর -২ (মতলব উত্তর ও দক্ষিণ) সংসদীয় আসনে মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া (আওয়ামী লীগ মার্কা নৌকা), নুরুল আমিন রুহুল (আওয়ামী লীগ মার্কা নৌকা), ড জালাল উদ্দিন (বিএনপি মার্কা ধানের শীষ), তানভীর হুদা (বিএনপি মার্কা ধানের শীষ), এমরান হোসেন মিয়া (জাতীয় পার্টি মার্কা লাঙ্গল), আসরাফ উদ্দিন (ইসলামী আন্দোলন মার্কা হাত পাখা), মোঃ মনির হোসেন (ইমলামী ঐক্যজোট) ও নরুল আমিন লিটন (মুসলিম লীগ)। ১শতাংশ ভোটের বৈধতা না পাওয়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী খায়রুর হাসানের মনোননয়পত্র বালিত হয়।

২৬২ চাঁদপুর -৩ (চাঁদপুর সদর ও হাইমচর) ডাঃ দীপু মনি (আওয়ামী লীগ মার্কা নৌকা), শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক (বিএনপি মার্কা ধানের শীষ), এড ফজলুল হক সরকার (নাগরিক ঐক্য/ বিএনপি মার্কা ধানের শীষ), রাশেদা বেগম হিরা (বিএনপি মার্কা ধানের শীষ), এস এম আলম ( জাতীয় পার্টি জেপি বিএনপি মার্কা ধানের শীষ), এডভোকেট সেলিম আকবর (গণ ফোরাম/জাতীয় ঐক্য ফ্রন্ট মার্কা ধানের শীষ), আবু জাফর মো মাঈনুদ্দিন (ইসলামী ফ্রন্ট মার্কা মোমবাতি), মোঃ জয়নাল আবেদীন শেখ (ইসলামী আন্দোলন মার্কা হাতপাখা), দেওয়ান কামরুনন্নেসা (জাকের পার্টি মার্কা গোলাপ ফুল), শাহজাহান তালুকদার (বাসদ মার্কা মই), মোঃ আজিজুর রহমান (বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টি) ও মোঃ মিজানুর রহমান (তরীকত ফেডারেশন মার্কা ফুলের মালা)।

২৬৩ চাঁদপুর-৪ (ফরিদগঞ্জ) সংসদীয় আসনে ড মুহাম্মদ শামছুল হক ভূঁইয়া (আওয়ামী লীগ মার্কা নৌকা), মুহম্মদ শফিকুর রহমান (আওয়ামী লীগ মার্কা নৌকা), এম এ হান্নান (বিএনপি প্রার্থী মার্কা ধানের শীষ), কাজী রফিকুল ইসলাম (বিএনপি মার্কা ধানের শীষ), মোঃ জাহিদুল ইসলাম রোমান (স্বতন্ত্র), মাইনুল ইসলাম ( জাতীয় পার্টি মার্কা লাঙ্গল), মকবুল হোসেন (ইসলামী আন্দোলন মার্কা হাতপাখা), আনিসুজ্জামান ভূঁইয়া (বাসদ মার্কা মই), দেলোয়ার হোসেন পাটওয়ারী (ন্যাপ), বাচ্চু মিয়া ভাষানী (জাকের পার্টি গোলাপ ফুল), গোলাম মাহমুদ ভূঁইয়া মানিক (ইসলামী ফ্রন্ট মার্কা মোবাতি), মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া (মুসলিম লীগ)। বিএনপি লায়ন হারুনুর রশিদ, ১শতাংশ ভোটের বৈধতা না পাওয়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ, স্বতন্ত্র আবু জাফর মো ছালহের ও অসম্পন্ন কাগজ পত্রের কারনে বিএনপি প্রার্থী রিয়াজ উদ্দিন নসু মনোননয়পত্র বাতিল হয়।

২৬৪ চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ শাহরাস্তি) সংসদীয় আসনে মেজর (অব:) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম (আওয়ামী লীগ মার্কা নৌকা), মোঃ মমিনুল ইসলাম ( বিএনপি মার্কা ধানের শীষ), এম এ মতিন (বিএনপি মার্কা ধানের শীষ), মোঃ মনির হোসেন মজুমদার ( জাসদ ইনু মার্কা মোশাল), আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান আল কাদেরী (ইসলামী ফ্রন্ট মার্কা মোমবাতি), শাহাদাত হোসেন (ইসলামী আন্দোলন মার্কা হাতপাখা), সৈয়দ বাহাদুর শাহ মোজাদ্দেদী (ইসলামী ফ্রন্ট বাংলাদেশ মার্কা চেয়ার), ওয়াহেদ মোল্লা (জাকের পার্টি গোলাপ ফুল)।

এলডিপি প্রার্থী নেয়ামুল বশির, জাতীয় পার্টির খোরশেদ আলম খুশু ব্যাংকের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না জমা দেয়ার কারণে মনোনয়নপত্র বাতিল হয়। উল্লেখ্য, এর পূর্বে ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত জেলার ৫টি আসনে মোট ৫৯টি মনোনয়নপত্র রিটার্নিং অফিসারের নিকট জমা দেওয়া হয়। এরমধ্যে আওয়ামী লীগের ৮টি, বিএনপির ১৪টি, স্বতন্ত্র প্রার্থীর ৬টি এবং অন্যান্য দলের ৩১টি।

আর পড়তে পারেন